× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২৪ আগস্ট ২০১৯, শনিবার

গাজীপুর সিটির সোয়া ৬ হাজার কোটি টাকার বাজেট ঘোষণা

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার, গাজীপুর থেকে | ২৩ জুলাই ২০১৯, মঙ্গলবার, ৯:২০

গাজীপুর সিটি করপোরেশনের ২০১৯-২০২০ অর্থ বছরের ৬ হাজার ১৩৬ কোটি ৬৫ লাখ ৬৪ হাজার টাকার বাজেট ঘোষণা করা হয়েছে। গাজীপুর সিটি মেয়র অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম গতকাল দুপুরে বঙ্গতাজ অডিটরিয়ামে আনুষ্ঠানিকভাবে এ বাজেট ঘোষণা করেন। অনুষ্ঠানে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী  আ ক ম মোজাম্মেল হক, যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল, সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য শামসুন্নাহার ভূঁইয়া, গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার আনোয়ার হোসেন, গাজীপুরের জেলা প্রশাসক এস এম তরিকুল ইসলাম, সিটি করপোরেশনের বিভিন্ন ওয়ার্ডের কাউন্সিলর উপস্থিত ছিলেন। বাজেটে রাজস্ব আয়, পানি সরবরাহ, সরকারি অনুদান, বৈদেশিক সয়হায়তা প্রকল্প ও ডিপিপিভিত্তিক প্রকল্প খাতকে বাজেটের আয় ধরা হয়েছে। এছাড়ায় বিভিন্ন অবকাঠামো উন্নয়নসহ নাগরিক সুবিধা নিশ্চিত করার বিভিন্ন উন্নয়ন কাজে ব্যয় করা হবে। বাজেটে ব্যয় নির্ধারণ করা হয়েছে ৪ হাজার ৭৬২ কোটি ৮২ লাখ ২৪ হাজার টাকা। বাজেটে উদ্বৃত্ত দেখানো হয়েছে ১৩৭৫ কোটি ৪ হাজার টাকা।

নতুন এ বাজেটে রাজস্ব (সাধারণ তহবিল) ৪২ কোটি ৮০ লাখ টাকা, পানি সরবরাহ ১৮ কোটি ৪৮ লাখ টাকা, উন্নয়ন (সরকারি থোক বরাদ্দ) ১০৪ কোটি ৬৯ লাখ টাকা এবং বৈদেশিক সহায়তাপুষ্ট ও ডিপিপি প্রকল্পের ৪ হাজার ২১ কোটি ৪১ লাখ টাকা আয় প্রস্তাব করা হয়েছে।
এছাড়া ওই বাজেটে রাজস্ব (সাধারণ তহবিল) ১৬৩ কোটি ১ লাখ টাকা, পানি সরবরাহ ১৮ কোটি ২৫ লাখ টাকা, সরকারি অনুদান ১০ কোটি ৩৫ লাখ টাকা, উন্নয়ন (নিজস্ব রাজস্ব তহবিল) ২৬১ কোটি ৭৮ লাখ টাকা এবং বৈদেশিক সহায়তাপুষ্ট ও ডিপিপিভিত্তিক প্রকল্পের ৪ হাজার ২১ কোটি ৪১ লাখ টাকা ব্যয় প্রস্তাব করা হয়েছে।

বাজেট ঘোষণাকালে মেয়র জাহাঙ্গীর আলম বলেন, গাজীপুরকে সবার জন্য বসবাসযোগ্য একটি সুন্দর ও পরিচ্ছন্ন নগরী গড়ে তুলতে চাই। সড়ক বা রাস্তায় কোনো দোকানপাট বসতে দেয়া হবে না। হকারদের জন্য ১০টি হকার মার্কেট করে দেয়া হবে। যারা রাস্তা বা ড্রেনের জন্য জমি দেবে তাদের হোল্ডিং ট্যাক্স ফ্রি করে দেয়া হবে। তাদের নামও লিখে বা সংরক্ষণ করে রাখা হবে। ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তিদের বেকার ব্যক্তি থাকলে তাদের কর্মসংস্থানেরও ব্যবস্থা করা হবে। নতুন অর্থ বছরে কোনো ট্যাক্স বাড়ানো হয়নি। আমি আমার সততা থেকে এক ইঞ্চি নড়ব না। কেউ অন্যায় বা দুর্নীতি ও অনিয়ম করে পার পাবে না।
বাজেটে মেয়র ও কাউন্সিলরদের সম্মানী ভাতা ৩২৯.৪০ লাখ টাকা, কর্মচারী/কর্মকর্তাদের বেতনভাতা ১৭০০ লাখ টাকা রাখা হয়েছে। তবে মেয়রের কোনো বাড়ি ভাড়া না থাকলেও কাউন্সিলরদের অফিসভাড়া বাবদ রাখা হয়েছে ৭২.৯৬ লাখ টাকা। বাজেটে মশক নিধনে ৭৫ লাখ টাকা, কুকুর নিধনে ১০ লাখ টাকা রাখা হয়েছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর