× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২৪ আগস্ট ২০১৯, শনিবার

মন্ত্রী ত্রাণ দেবেন, রোদে দাঁড় করিয়ে রাখা হলো শিক্ষার্থীদের

বাংলারজমিন

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি | ২৩ জুলাই ২০১৯, মঙ্গলবার, ৯:২১

সিরাজগঞ্জের কাজিপুরে বন্যাদুর্গত এলাকা পরিদর্শনে আসা প্রতিমন্ত্রী ও উপমন্ত্রীকে সংবর্ধনা দেয়ার জন্য প্রচণ্ড রোদের মধ্যে দাঁড় করিয়ে রাখা হয়েছিল ৭ শতাধিক শিক্ষার্থীকে। গতকাল সকাল ১০টা থেকে উপজেলার শহীদ এম মুনসুর আলীর নামে নির্মাণাধীন ইকোপার্কে এই শিক্ষার্থীদের প্রচণ্ড রোদে দাঁড় করিয়ে রাখা হয়। সরজমিনে দেখা যায়, কাজিপুর উপজেলা প্রশাসন বানভাসি মানুষের মাঝে ত্রাণ বিতরণের আয়োজন করে। এতে অতিথি ছিলেন ত্রাণ ও দুর্যোগ প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. এনামুর রহমান এবং পানি সম্পদ উপমন্ত্রী একেএম এনামুল হক শামীম। অতিথিরা ঘটনাস্থলে পৌঁছার আগে তাদের স্বাগত জানাতে সকাল ১০টা থেকে দুপুর প্রায় ১টা পর্যন্ত মাইজবাড়ী বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রায় ৭ শতাধিক শিক্ষার্থীকে রোদের মধ্যে লাইনে দাঁড় করিয়ে রাখা হয়। এ সময় শিক্ষার্থীরা প্রচণ্ড রোদে অস্বস্তি বোধ করতে থাকে। একপর্যায়ে বিষয়টি মিডিয়াকর্মীদের নজরে এলে অতিথিরা ঘটনাস্থলে পৌঁছার আগেই দুপুর ১টার দিকে শিক্ষার্থীদের সেখান থেকে সরিয়ে নেয়া হয়। এ বিষয়ে বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণির ছাত্র সজল মাহমুদ ও ৯ম শ্রেণির ছাত্রী কানিজ ফাতেমাসহ অন্য শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, তারা আসতে না চাইলেও জোর করে তাদেরকে নিয়ে আসা হয়েছে।
এ বিষয়ে বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক রফিকুল ইসলাম মোল্লা বলেন, প্রধান শিক্ষকের নির্দেশে শিক্ষার্থীদের ঘটনাস্থলে আনা হয়েছে। তবে প্রধান শিক্ষককে সেখানে খুঁজে পাওয়া যায়নি। এ বিষয়ে অনুষ্ঠানের আয়োজক কাজিপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জাহিদ হাসান সিদ্দিকী জানান, আমরা কোনো শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে স্বাগত জানাতে অনুষ্ঠানস্থলে আসতে বলিনি। তবে কৌতূহল বশত কেউ কেউ সেখানে আসতে পারে। এদিকে, দুপুর ১টার পর ত্রাণ ও দুর্যোগ প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. এনামুর রহমান এবং পানি সম্পদ উপমন্ত্রী একেএম এনামুল হক শামীম ঘটনাস্থলে পৌঁছেন। এ উপলক্ষে জেলা প্রশাসক ড. ফারুক আহম্মেদের সভাপতিত্বে সেখানে ত্রাণ বিতরণ-পূর্ব এক সমাবেশের আয়োজন করা হয়। সমাবেশ শেষে বন্যার্তদের মাঝে ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করা হয়।  সমাবেশে ত্রাণ ও দুর্যোগ প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. এনামুর রহমান এবং পানি সম্পদ উপমন্ত্রী একেএম এনামুল হক শামীম, কাজিপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান খলিলুর রহমান সিরাজী, মাইজবাড়ি ইউপি চেয়ারম্যান শওকত হোসেন বক্তব্য রাখেন। এ সময় বগুড়া-৫ আসনের সংসদ সদস্য হাবিবুর রহমান, ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব শাহ কামাল, সিরাজগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবু ইউসুফ, পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী শফিকুল ইসলাম, জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা আক্তারুজ্জামান ভুঁইয়া ও কাজিপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জাহিদ হাসান সিদ্দিকী উপস্থিত ছিলেন। এর আগে মন্ত্রীদ্বয় স্পিডবোটে যমুনা নদী বেষ্টিত কাজিপুর উপজেলার চারটি চর ঘুরে দেখেন এবং সেখানকার বন্যা পরিস্থিতির খোঁজখবর নেন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর