× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২৪ আগস্ট ২০১৯, শনিবার

বান্দরবান ও সাতক্ষীরায় দুই আওয়ামী লীগ নেতাকে গুলি করে হত্যা

শেষের পাতা

বান্দরবান প্রতিনিধি | ২৩ জুলাই ২০১৯, মঙ্গলবার, ৯:৪৩

বান্দরবানের রোয়াংছড়িতে তারাছা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি মংমংথোয়াই মারমাকে গুলি করে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। গতকাল সোমবার  দুপুর দেড়টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। মংমংথোয়াই-এর বাড়ি তারাছা ইউনিয়নের তালুকদারপাড়ায়। সে তারাছার মিক্যা জাই মারমার ছেলে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, উপজেলায় জেলা আওয়ামী লীগের অনুষ্ঠিতব্য সম্মেলনকে সামনে রেখে রোয়াংছড়িতে উপজেলা পর্যায়ে একটি প্রস্তুতি সভা ছিল। সভা শেষ করে দুপুরে মোটরসাইকেলে বাড়ি ফেরার পথে ভাঙ্গামোড়া পাহাড়ে শামুকঝিরি এলাকায় তাকে গুলি করে দুর্বৃত্তরা। নেতাকর্মীরা আহত অবস্থায় উদ্ধার করে বান্দরবান সদর হাসপাতালে নিয়ে আসার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

বান্দরবান সদর হাসপাতালের ডাক্তার চিংম্রাসা বলেন, হাসপাতালে আনার আগেই তার মৃত্যু হয়েছে।জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি একেএম জাহাঙ্গীর বলেন, পাহাড়ের শান্তি-শৃঙ্খলা বিনষ্ট করার লক্ষ্যে পাহাড়ের আঞ্চলিক দল জেএসএস সন্ত্রাসীরা একের পর এক গুম, খুন ও হত্যা করে যাচ্ছে। তারা এর আগেও আওয়ামী লীগ নেতাদের হত্যা করেছে। আমি আগেও বলেছি, সন্ত্রাসীরা বিভিন্ন পর্যায়ের আওয়ামী লীগ নেতাদের হত্যার জন্য একটি তালিকা করেছে।
এবং বেছে বেছে তারা একের পর এক আওয়ামী লীগ নেতাদের হত্যা করে যাচ্ছে। আমরা সবাই নিরাপত্তাহীনতায় আছি। যেকোনো সময় আমাদের ওপরও হামলা হতে পারে।

এ বিষয়ে বান্দরবান জেলার পুলিশ সুপার জাকির হোসেন মজুমদার বলেন- সন্ত্রাসীরা আওয়ামী লীগের এক নেতাকে গুলি করে হত্যা করেছে। পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করছে। তবে কে বা কারা হত্যাকাণ্ডটি ঘটিয়েছে সেটি এখনো নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না।

উল্লেখ্য, গত ১৭ই মে কুহালং ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের এক কর্মীকে গুলি করে হত্যা করে সন্ত্রাসীরা। পরে ২২শে মে বান্দরবান পৌর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি সাবেক পৌর কমিশনার চথোয়াই মং মার্মাকেও গুলি করে হত্যা করা হয় এবং ২২শে জুলাই সোমবার রোয়াংছড়িতে তারাছা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি মংমংথোয়াই মারমাকে গুলি করে হত্যা করেছে। সে মামলায় জেএসএস-এর শীর্ষ নেতা কেএসমং সহ ৭ নেতাকর্মীকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। বর্তমানে তারা জেল হাজতে রয়েছে।

এদিকে সাতক্ষীরা প্রতিনিধি জানান, সাতক্ষীরার সদর উপজেলায় নজরুল ইসলাম (৫৫) নামের এক আওয়ামী লীগ নেতাকে গুলি করে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। গতকাল দুপুর সাড়ে বারোটার দিকে উপজেলার কুচপুকুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত নজরুল ইসলাম সদর উপজেলার আগারদারি ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ছিলেন। তার বাড়ি কুচপুকুর গ্রামে। গতকাল দুপুরে মোটরসাইকেলযোগে বাড়ি ফিরছিলেন তিনি। এ সময় বিপরীত দিক থেকে আসা আরেকটি  মোটরসাইকেল থেকে তাকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। গুরুতর আহত অবস্থায় নজরুল ইসলামকে হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।  

এ বিষয়ে সদর থানার ওসি মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে গিয়েছি। দুর্বৃত্তরা গুলি করে ঘটনাস্থল  থেকে পালিয়েছে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতাল মর্গে রয়েছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর