× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২১ আগস্ট ২০১৯, বুধবার

সুষমা স্বরাজ: এক ব্যতিক্রমী রাজনীতিক

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ৭ আগস্ট ২০১৯, বুধবার, ৯:৫১

ভারতের সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও বিজেপির শক্তিধর নেত্রী সুষমা স্বরাজ আর নেই। স্থানীয় সময় মঙ্গলবার রাত ৯টার দিকে তিনি মারা যান। এদিন সন্ধ্যায় তার স্বাস্থ্যের অবস্থার মারাত্মক অবনতি হওয়ার পর দ্রুত অল ইন্ডিয়া ইন্সটিটিউট অব মেডিকেল সায়েন্সেস (এআইআইএমএস)-এ নেয়া হয়। সেখানে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন। সেখান থেকে তার মৃতদেহ নেয়া হয়েছে জনপথে ধাওয়ান দ্বীপ বাসভবনে। আজ বুধবার স্থানীয় সময় ৮টা থেকে ১১টা পর্যন্ত জনগণ তার প্রতি শেষ শ্রদ্ধা জানাতে পারবে। দুপুর নাগাদ মরদেহ নেয়া হবে বিজেপির প্রধান কার্যালয়ে। সেখানে দলীয় নেতাকর্মীরা তার প্রতি শেষ শ্রদ্ধা জানাবেন।
আর বিকেল ৩টা নাগাদ লোধি রোডে বৈদ্যুতিক প্রক্রিয়ায় তার অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া সম্পন্ন হওয়ার কথা।

তার মৃত্যুতে ভারতের রাজনীতি থেকে একটি ঐশ্বর্যময় অধ্যায়ের অবসান হলো বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। সুষমা স্বরাজ তার দায়িত্ব পালনকালে নিজেকে অতি সহজ করে তুলেছিলেন। তার অধীনে মন্ত্রণালয়ে তার সঙ্গে যেকেউ সহজে সাক্ষাত করতে পারতেন। তিনি নিয়মিত টুইট করে লোকজনের সঙ্গে কথা বলতেন। তাদের টুইটের জবাব দিতেন। এভাবে তিনি বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে হতাশায় থাকা অনেক ভারতীয়কে উদ্ধার করেছেন। এ প্রক্রিয়ায় তিনি ভারতীয়দের সহায়তায় সম্ভাব্য সব প্রক্রিয়া অবলম্বন করতেন।
রাজনৈতিক ক্যারিয়ারে বিজেপির এই শক্তিধর নেত্রী অনেক সময় দলীয় অবস্থানের বাইরে গিয়ে কথা বলেছেন। অন্যায়ের বিরুদ্ধে কথা বলেছেন। সমর্থন করেছেন যথার্থ বিষয়ে। একবার যখন একজন সিনিয়র রাজনীতিক বিজেপিতে যোগ দিলেন, তিনি এর শেষ করলেন পার্লামেন্টে একজন নারীর বিরুদ্ধে অপমানজনক মন্তব্য করে। তার ওই মন্তব্যের প্রথম প্রকাশ্য সমালোচনা করেছিলেন সুষমা স্বরাজ। দলে নতুন এমন লোক প্রবেশ করার জন্য তিনি ক্ষমা চাওয়ার আহ্বান জানিয়েছিলেন। তার অনেক অর্জনের মধ্যে রয়েছে, তিনিই প্রথম নারী হিসেবে পাচ্ছেন ‘আউটস্ট্যান্ডিং পার্লামেন্টারিয়ান এওয়ার্ড’। এ ছাড়া এ যাবতকালের মধ্যে পূর্ণ মেয়াদে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর দায়িত্ব পালনকারী তিনিই প্রথম। তাকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি নেতৃত্বাধীন এনডিএ সরকারের প্রথম মেয়াদে দেয়া হয় পররাষ্ট্রমন্ত্রীর পদ। তিনি জনগণের কাছে ভীষণ জনপ্রিয় থাকা সত্ত্বেও এবার লোকসভা নির্বাচনের আগে ঘোষণা দেন, স্বাস্থ্যগত কারণে তিনি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন না। ২০১৬ সালে তার একটি কিডনি প্রতিস্থাপন করা হয়েছে।

সুষমা স্বরাজ অখিল ভারতীয় বিদ্যার্থী পরিষদের একজন সদস্য হিসেবে রাজনৈতিক জীবন শুরু করেন। ভারতের রাজনীতিতে তার উত্থান এক উল্লেখ করার মতো অধ্যায়। মাত্র ২৫ বছর বয়সে ১৯৭৭ সালে তিনি সবচেয়ে কম বয়সী মন্ত্রী নির্বাচিত হন। তিনিই প্রথম দিল্লির নারী মুখ্যমন্ত্রী। একটি রাজনৈতিক দলের প্রথম নারী মুখপাত্রও তিনি।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর