× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২৬ আগস্ট ২০১৯, সোমবার
ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগের পর্দা উঠছে আজ

নরউইচ পরীক্ষায় মিশন শুরু লিভারপুলের

খেলা

স্পোর্টস ডেস্ক | ৯ আগস্ট ২০১৯, শুক্রবার, ৯:৩২

‘প্রিমিয়ার লীগে কোন দল চ্যাম্পিয়ন হবে আর কোন দল জিতবে, তা আগে থেকে কেউই বলতে পারে না। সারপ্রাইজে পরিপূর্ণ একটা লীগ’- ব্রাজিলিয়ান ফুটবলার নেইমারের উক্তি এটি। ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগ নিয়ে এমন হাজারো উক্তি রয়েছে কোচ ও খেলোয়াড়দের। কারণ ইউরোপের শীর্ষ পাঁচ লীগের মধ্যে ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগটাই সবচেয়ে বেশি প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ। আর আজ বিশ্বের সবচেয়ে উত্তেজনা ও রোমাঞ্চকর ফুটবল লীগের পর্দা উঠছে। উদ্বোধনী ম্যাচে বর্তমান রানার্সআপ লিভারপুল মুখোমুখি হবে দ্বিতীয় বিভাগ থেকে উঠে আসা দল নরউইচ সিটির।  অ্যানফিল্ডে ম্যাচটি শুরু হবে বাংলাদেশ সময় রাত ১টায়।
গত দুই মৌসুমে ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগ ট্রফি জিতেছে ম্যানচেস্টার সিটি। পেপ গার্দিওলার দলের সামনে হ্যাটট্রিক শিরোপা জয়ের হাতছানি। তবে এবার শ্রেষ্ঠত্ব ধরে রাখা মোটেও সহজ হবে না সিটিজেনদের জন্য।  কারণ গতবার শিরোপা দৌড়ে তাদের সঙ্গে ছিল কেবল লিভারপুল।
এবার শুধু লিভারপুল নয়, ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড, আর্সেনাল, চেলসি, টটেনহ্যাম হটস্পারও থাকবে। ম্যান সিটির স্প্যানিয়ার্ড কোচ গার্দিওলা নিজেই বলছেন, এবারে মৌসুমে চতুর্মুখী লড়াই হবে। লড়াইটা এ পাঁচ দলের মধ্যে সীমাবন্ধ না থেকে আরো বিস্তৃত হতে পারে। এভারটন, লেস্টার সিটির মতো দলগুলোতে একেবারে ফেললা ভাবা যায় না। ২০১৫-১৬ মৌসুমে লেস্টার রূপকথার কথা নিশ্চয়ই ভুলে যায়নি কেউ! সেই মৌসুমে বাঘা বাঘা দলকে পেছনে ফেলে ইপিএল জিতেছিল দলটি।
এবারের দলবদলে ১৫৫ মিলিয়ন ইউরো ব্যয় করেছে ম্যান সিটি। রক্ষণভাগেই গেছে পুরো অর্থ। অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের স্প্যানিয়ার্ড ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডার রদ্রিকে নিতেই ৭০ মিলিয়ন ইউরো গেছে ম্যান সিটির। এছাড়া জুভেন্টাস থেকে পর্তুগিজ রাইটব্যাক জোয়াও ক্যানসেলোকে কিনেছে ৬৫ মিলিয়ন ইউরোতে। পিএসভি আইন্দোফেন থেকে ১২ মিলিয়ন ইউরোতে স্প্যানিয়ার্ড লেফট-ব্যাক অ্যাঞ্জেলিনো ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ২৪ বছর বয়সী গোলরক্ষক জ্যাক স্টিফেনকে দলে ভিড়িয়েছে ম্যান সিটি।
শীর্ষ দলগুলোর মধ্যে লিভারপুল সর্বশেষ ইংল্যান্ডের প্রথম বিভাগ লীগে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল ১৯৮৯-৯০ মৌমুমে। প্রথম বিভাগ বলা হচ্ছে, কারণ প্রিমিয়ার লীগ চালু হওয়ার পর আর শিরোপা জিততে পারেনি ঐতিহ্যবাহী ক্লাবটি। এরপর বেশ কয়েকার শিরোপার কাছে গিয়ে ব্যর্থ হয়েছে ‘অলরেড’ খ্যাত দলটি। গত মৌসুমে মাত্র ১ পয়েন্টের জন্য ম্যানচেস্টার সিটির কাছে ট্রফি খোয়াতে হয় ইয়ুর্গেন ক্লপের দলকে। এবারের দলবদলে বলতে গেলে কোনো অর্থই খরচ করেননি ইপিএলের ১৮ বারের চ্যাম্পিয়ন লিভারপুল। আসলে প্রয়োজনও হয়নি। রক্ষণ, মাঝমাঠ আর আক্রমণভাগ নিয়ে লিভারপুল দলটা সুগঠিত। গতবার চ্যাম্পিয়ন্স লীগ জেতা অলরেডদের এবার মূল লক্ষ্য থাকবে প্রিমিয়ার লীগের শ্রেষ্ঠত্ব ফিরিয়ে আনা।
১৩ বারের চ্যাম্পিয়ন আর্সেনাল সর্বশেষ লীগ জিতেছিল ২০০৩-০৪ মৌসুমে। ‘গানার’খ্যাত দলটি এবারের ট্রান্সফার উইন্ডোতে ১১৬ মিলিয়ন ইউরো খরচ করেছে। রাউট উইঙ্গের ধার বাড়াতে লিল থেকে আইভরি কোস্ট তারকা নিকোলাস পেপেকে ৮০ মিলিয়ন ইউরোতে নিয়ে এসেছেন কোচ উনাই এমেরি। এছাড়া সেত এতিয়েন থেকে সেন্টার ব্যাক উইলিয়াম সালিবাকে কিনেছে ৩০ মিলিয়ন ইউরোতে। লেফট উইঙ্গের জন্য ৬ মিলিয়ন ইউরোতে তারা নিয়েছে ব্রাজিলিয়ান গ্যাব্রিয়েল মার্টিনেল্লিকে। এছাড়া ধারে রিয়াল মাদ্রিদ থেকে স্প্যানিয়ার্ড মিডফিল্ডার দানি সেবায়োসকে দলে ভিড়িয়েছে আর্সেনাল।
স্যার আলেক্স ফার্গুসনের বিদায়ের পর আর প্রিমিয়ার লীগ জিততে পারেনি ইপিএলের সবচেয়ে সফল দল ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। ফার্গির সাবেক ছাত্র উলে গানার সুলশারের অধীনে এবার কোমড় বেঁধে নামছে ‘রেড ডেভিল’ খ্যাত দলটি। দলবদলে শুধু রক্ষণের পেছনেই তারা ঢেলেছে ১৪২ মিলিয়ন ইউরো। লেস্টার সিটি হতে সেন্টার-ব্যাক হ্যারি ম্যাগুয়েরকে রেকর্ড ৮৭ মিলিয়ন ইউরোতে কিনেছে তারা। ক্রিস্টাল প্যালেস হতে আরেক ইংলিশ রাইটব্যাক অ্যারন ওয়ান-বিসাকাকে নিয়েছে ৫৫ মিলিয়ন ইউরোতে। এছাড়া ওয়েলসের ২১ বছর বয়সী উইঙ্গার ড্যানিয়েল জেমসকে দলে ভিড়িয়েছে ম্যানইউ। নিজেদের ইতিহাসে মাত্র দুবার প্রথম ডিভিশন জিতেছে টটেনহ্যাম। সর্বশেষ ১৯৬০-৬১ মৌসুমে। দীর্ঘদিনের শিরোপাখরা ঘুচাতে স্পারসরা ৭১ মিলিয়ন ইউরো খরচ করেছে এবার। এর মধ্যে অলিম্পিকি লিঁও’র ফরাসি সেন্ট্রাল মিডফিল্ডার টেঙ্গাই এন’দম্বেলেকে নিতেই ৬০ মিলিয়ন খরচ হয়েছে টটেনহ্যামের। মাঝমাঠ আর আক্রমণভাগে সমৃদ্ধকরণেই বেশি জোর দিয়েছেন আর্জেন্টাইন কোচ মাউরিসিও পচেত্তিনো। তার অধীনে গতবার চ্যাম্পিয়ন্স লীগে রানার্সআপ হয় টটেনহ্যাম।
দলবদলে চেলসির উল্লেখযোগ্য সাইনিং ক্রোয়েশিয়ার ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডার মাতেও কোভাসিচ। রিয়াল মাদ্রিদ থেকে ৪৫ মিলিয়ন ইউরোতে তাকে দলে ভিড়িয়েছে ব্লুজরা। নতুন মৌসুমে চেলসির ডাগআউটে দেখা যাবে দলের সাবেক সফল ফুটবলার ফ্রাঙ্ক ল্যাম্পার্ডকে। ইডেন হ্যাজার্ডের শূন্যতা পূরণ করে ভালো ফুটবল উপহার দেয়া বড় চ্যালেঞ্জ হবে কোচ ল্যাম্পার্ডের জন্য।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর