× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২১ আগস্ট ২০১৯, বুধবার

গাজীপুরে কারখানা ভাঙচুর, সড়ক অবরোধ

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার, গাজীপুর থেকে | ১০ আগস্ট ২০১৯, শনিবার, ৮:১৫

বকেয়া বেতন ও ঈদ বোনাসের দাবিতে গাজীপুরের তিন সড়ক এলাকায় স্টাইল ক্রাফট নামের একটি পোশাক কারখানায় শ্রমিক অসন্তোষ দেখা দেয়। দাবি আদায়ে বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা কারখানায় ভাঙচুর, বিক্ষোভ এবং সড়ক অবরোধ করে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে বার বার ব্যর্থ হয় পুলিশ। সড়ক অবরোধ শুরুর সাত ঘণ্টা পর সিটি মেয়র অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম শ্রমিকদের বকেয়া পরিশোধ করতে মালিক পক্ষকে নগদ দেড় কোটি টাকা দিলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে। শ্রমিকরা জানায়, স্টাইল ক্রাফট কারখানার কয়েক হাজার শ্রমিকের এক মাসের বকেয়া পাওনা রয়েছে। এছাড়া ঈদ বোনাস ও ছুটির বিল রয়েছে। কারখানা কর্তৃপক্ষ এসব না দিয়ে টালবাহানা শুরু করে। এ অবস্থায় বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা আন্দোলনে নামে।
তারা কারখানায় বিক্ষোভ মিছিল করে  গাজীপুর- ঢাকা সড়ক অবরোধ করে রাখে। এর আগে কারখানার ভেতরে ব্যাপক ভাঙচুর করা হয়। পুলিশ জানায়, বকেয়া বেতন ও বোনাসের দাবিতে শ্রমিক আন্দোলন করছে। তারা কারখানায় হামলা চালিয়ে কাঁচ এবং অন্যান্য মালামাল ভাঙচুর করে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে দিনভর চেষ্টা করে পুলিশ। তবে বিক্ষুব্ধ শ্রমিকদের সড়ক থেকে উঠাতে ব্যর্থ হয়। কারখানা মালিক শামস আলমাস রহমান ব্যাংক থেকে টাকা সংগ্রহ করে কিছু পাওনা পরিশোধ করার চেষ্টা করে । তাতেও থামেনি শ্রমিকরা । সড়কে বসে থাকে প্রায় ১০ হাজার শ্রমিক। পরে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর আলম পরিস্থিতি মোকাবেলায় নিজেই নগদ দেড় কোটি টাকা নিয়ে আসেন কারখানায়। খবর পেয়ে শ্রমিকরা সড়ক অবরোধ তুলে নেয়। শ্রমিকদের বেতন-বোনাস পরিশোধের বিষয়ে বক্তব্য রেখে তাদের আশ্বস্ত করেন মেয়র জাহাঙ্গীর আলম। এ সময় গাজীপুরের জেলা প্রশাসক এস এম তরিকুল ইসলাম, মেট্রোপলিটন পুলিশের ডিসি ক্রাইম শরীফুর রহমান, কারখানা মালিক আলমাস রহমান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মশিউর রহমান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন ।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর