× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ২১ অক্টোবর ২০১৯, সোমবার

ঈদের আগমুহূর্তে ফ্রিজের বাম্পার সেল

বাংলারজমিন

অর্থনৈতিক রিপোর্টার | ১১ আগস্ট ২০১৯, রবিবার, ৮:৩৩

ঈদে কোরবানি দেয়া পশুর গোশত সংরক্ষণের জন্য শেষ মুহূর্তে ক্রেতারা ছুটছেন ফ্রিজের শো-রুমে। চলছে ফ্রিজ বিক্রির ধুম বা বম্পার সেল। সেরা দামে সেরা মানের ফ্রিজ কিনতে বিভিন্ন শো-রুমগুলোতে ক্রেতাদের উপচেপড়া ভিড় লক্ষ্য করা গেছে। জানা গেছে, সারাদেশে ফ্রিজের মোট চাহিদার প্রায় ৮০ শতাংশই ওয়ালটন পূরণ করছে। ওয়ালটনের বিক্রয়কেন্দ্রগুলোতে উৎসবমুখর পরিবেশে চলছে ব্যাপক বিক্রি। রাজধানীসহ চট্টগ্রাম, রাজশাহী, খুলনা, রংপুর, বাগেরহাট, বগুড়া, সিলেট, ফেনী, নরসিংদীসহ দেশের অন্যান্য অঞ্চলেও ঈদের আগে ফ্রিজ বিক্রির উৎসব চলছে বলে জানা গেছে। ওয়ালটন ফ্রিজ বিভাগের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা গোলাম মুর্শেদ জানান, এবার কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে সারাদেশে বাম্পার সেল হচ্ছে। এরইমধ্যে ঈদে ফ্রিজ বিক্রির নির্ধারিত লক্ষ্যমাত্রা পূরণ হয়ে গেছে।
গত কোরবানি ঈদের তুলনায় ৩০ শতাংশ বেশি হয়েছে। বার্ষিক বিক্রির লক্ষ্যমাত্রাও ৮০ শতাংশ পূরণ হয়ে গেছে। তিনি দাবি করেন, এবার ঈদে ফ্রিজ বাজারে একচেটিয়া আধিপত্য ওয়ালটনের। বিক্রির এই সাফল্যের পেছনে তারা যুক্তি দেখান- বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী ফ্রিজ উৎপাদন, দামে সাশ্রয়ী, গ্লোবাল স্ট্যান্ডার্ড, অসংখ্য যুগোপযোগী বৈচিত্র্যময় ডিজাইন ও মডেল, সহজ কিস্তি সুবিধা, ১ বছরের রিপ্লেসমেন্ট গ্যারান্টির পাশাপাশি কম্প্রেসারে ১২ বছরের গ্যারান্টি সুবিধা এবং সর্বোপরি বিশাল সেলস ও সার্ভিস নেটওয়ার্ক থাকায় ফ্রিজ কেনার ক্ষেত্রে ওয়ালটন ব্র্যান্ডের প্রতিই আস্থা রাখছেন গ্রাহকরা। ঈদ উপলক্ষে ওয়ালটন ফ্রিজ কিনে মিলিয়নিয়ার বা লাখপতি হওয়ার সুযোগসহ নিশ্চিত ক্যাশ ভাউচার অথবা হাজার হাজার পণ্য ফ্রি পাওয়ার সুযোগ থাকায় ওয়ালটন ফ্রিজ বিক্রি হচ্ছে আশাতীত। ইতিমধ্যে ওয়ালটন ফ্রিজ কিনে মিলিয়নিয়ার ও লাখপতি হয়েছেন অসংখ্য ক্রেতা। রাজধানীর শনির আখড়ায় ওয়ালটনের এক্সক্লুসিভ শোরুম ‘ইলেকট্রো ভিশন’ এ ফ্রিজ কিনেন স্থানীয় বাসিন্দা দেলোয়ার হোসেন। তিনি জানান, বন্ধু, আত্নীয়-স্বজন, প্রতিবেশী প্রায় সবার ঘরেই ওয়ালটন ফ্রিজ। সেসব ফ্রিজ সার্ভিসও দিচ্ছে ভালো। তাই, নিজেও ওয়ালটন ফ্রিজ কিনলেন।
রাজধানীর জিগাতলায় ওয়ালটন প্লাজা থেকে গত বৃহস্পতিবার একটি ডিপ ফ্রিজ কেনেন রুবি কাওসার। তিনি জানান, দেশে তৈরি ওয়ালটন ফ্রিজের মান অনেক ভালো, দামও কম। বাংলাদেশি হিসেবে দেশীয় ব্র্যান্ডের প্রতি আস্থার কথা জানান তিনি।
জানা গেছে, এবার ঈদে ১০ লাখ ফ্রিজ বিক্রি করতে যাচ্ছে ওয়ালটন। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে রপ্তানি হচ্ছে ওয়ালটন ফ্রিজ। চলতি মাসেই তারা সাড়ে ৪ লাখ ফ্রিজ এবং এসির রপ্তানি আদেশ পাচ্ছে। গত মাসে রপ্তানি হয়েছে ইয়েমেন, শ্রীলঙ্কাসহ বিভিন্ন দেশে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর