× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, শুক্রবার

আজই ঢাকায় আসছে এপ্রিল টোয়েন্টি ফাইভ

খেলা

স্পোর্টস রিপোর্টার | ১৭ আগস্ট ২০১৯, শনিবার, ৮:৩৭

এএফসি কাপে প্রথমবারের মতো দ্বিতীয় পর্ব বা আন্তঃআঞ্চলিক সেমিফাইনাল খেলার যোগ্যতা অর্জন করেছে আবাহনী লিমিটেড। ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে তাদের প্রতিপক্ষ উত্তর কোরিয়ার ক্লাব এপ্রিল টোয়েন্টি ফাইভ। হোম অ্যান্ড অ্যাওয়ে ভিত্তিতে হবে ফাইনালে ওঠার লড়াই। প্রথম ম্যাচটি ২১শে আগস্ট বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে। নিজেদের অ্যাওয়ের ম্যাচটি খেলার জন্য চার দিন আগেই আজ ঢাকায় আসছে উত্তর কোরিয়ার ক্লাবটি। আগামী বুধবার সন্ধ্যা পৌনে ৭টায় বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে মুখোমুখি হবে দুই দেশের দুই জায়ান্ট। দুই দলের ফিরতি পর্বের ম্যাচ ২৮শে আগস্ট উত্তর কোরিয়ার রাজধানী পিয়ং ইয়ংয়ে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। কোরিয়ান দলটির চারদিন আগে আসার প্রধান কারণ ফ্লাইট জটিলতা। আবাহনী ক্লাব সূত্রে জানা গেছে, উত্তর কোরিয়া থেকে ঢাকায় আসার ফ্লাইট সমস্যার কারণেই দেশটির ক্লাবকে আগেভাগে চলে আসতে হচ্ছে। হোম অ্যান্ড অ্যাওয়ে ভিত্তিতে ইন্টার জোনাল সেমিফাইনাল বিজয়ী দলটি জোনাল ফাইনাল খেলবে। এদিকে ঈদের ছুটি কাটিয়ে আবাহনীর ফুটবলাররা মাঠে ফিরেছে গত বুধবার। কয়েকদিনের বৃষ্টিতে মাঠ ভিজে যাওয়ায় অনুশীলনে সমস্যা হলেও আবাহনীর ফুটবলাররা মানিয়ে নিয়েই সবকিছু করছে। পর্তুগিজ কোচ মারিও লেমস উত্তর কোরিয়ার আক্রমণ ঠেকাতে দলের রক্ষণভাগকে প্রস্তুত করছেন। কারণ, কোরিয়ান ক্লাবটি আবাহনীর চেয়ে অনেক বেশি শক্তিশালী। তারওপর লেমসের হাতে নেই লীগে রক্ষণদুর্গ সামাল দেয়া আফগান ফুটবলার মাসিহ সাইঘানি। বাছাই পর্ব দূর্দান্ত খেলা এই ডিফেন্ডার আবাহনী ছেড়ে যোগদিয়েছেন ভারতের চেন্নাইয়ান এফসিতে। এপ্রিলের বিপক্ষে ম্যাচ দুইটির জন্য নতুন দুইজন বিদেশি খেলোয়াড়কে দলে ভিড়িয়েছে আবাহনী। একজন দক্ষিণ কোরিয়ার মিডফিল্ডার তা মিন লি ও অন্যজন মিসরীয় সেন্টারব্যাক আলেদিন নাসের। দলের ফাঁকফোকর পূরণ করতে নতুন দুজন বিদেশি ফুটবলার নেয়া। মাসি সাইগানির আবাহনী ছেড়ে যাওয়ায় মিসরীয় ডিফেন্ডারকে আনা। ব্রাজিলিয়ান মিডফিল্ডার ওয়েলিংটন প্রিয়রিও অনেকদিন ধরে ইনজুরিতে। ব্রাজিলিয়ান এই মিডফিল্ডারের জায়গা পুরণ করতে কোরিয়ান মিডফিল্ডার লি। মিশরীয় ডিফেন্ডার নাসের দুই বছর আগে মালদ্বীপের ক্লাব টিসি স্পোর্টসের হয়ে বাংলাদেশে শেখ কামাল গোল্ডকাপ খেলে গিয়েছেন। তখন থেকেই তাঁকে চেনা আবাহনীর। আর ২১ বছর বয়সী মিডফিল্ডার লি দক্ষিণ কোরিয়ার সর্বোচ্চ ‘কে’ লীগে খেলার অভিজ্ঞতা আছে। রয়েছেন সানডে সিজোবা ও হাইতিয়ান ফরোয়ার্ড কেভিন বেলফোর্ট। আবাহনীর ম্যানেজার সত্যজিৎ দাশ রুপু জানান, ‘কোরিয়ান দলটি তাদের শক্তি নিয়ে খেলবে, আমরা খেলবো আমাদের শক্তি নিয়ে। আমরা জয়ের জন্যই মাঠে নামবো।’ এএফসি কাপের গ্রুপ পর্বে দুর্দান্ত ফুটবল খেলেছে আবাহনী। ৬ ম্যাচে ৪ জয় ও ১ ড্রয়ের বিপরীতে একটি মাত্র ম্যাচ হেরে ১৩ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন। তাদের প্রতিপক্ষ এপ্রিল টোয়েন্টি ফাইভ ক্লাবের পারফরমেন্স ছিল আরও দুর্দান্ত। ৬ ম্যাচে ৫ জয়ের বিপরীতে তারা ম্যাচ হেরেছে মাত্র একটি। ঘরোয়া লীগে এগারোর চ্যাম্পিয়ন হওয়া কোরিয়ান ক্লাবটিতে নেই কোনো বিদেশি খেলোয়াড়। এপ্রিল টোয়েন্টি ফাইভ বাংলাদেশের ফুটবলে খুব অপরিচিত প্রতিপক্ষ নয়। এই দলটির বিপক্ষে অতীতে জয়ের রেকর্ড আছে। ১৯৮৮ সালে সে সময়ের এশিয়ান ক্লাব কাপ চ্যাম্পিয়নশিপের সেমিফাইনাল পর্বে এই এপ্রিল টোয়েন্টি ফাইভকে ১-০ গোলে হারিয়েছিল মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব। মালয়েশিয়ার পাহাংয়ে অনুষ্ঠিত হয়েছিল ম্যাচটি। মোহামেডানই ১৯৯০ এশিয়ান ক্লাব কাপের চূড়ান্তপর্বে গোলশূন্য ড্র করেছিল উত্তর কোরীয় ক্লাবটির সঙ্গে। ১৯৯১ সালের জুলাইয়ে ঢাকায় অনুষ্ঠিত চূড়ান্ত পর্বে এপ্রিল টোয়েন্টি ফাইভ তৃতীয় হয়েছিল।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর