× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯, সোমবার

মেক্সিকোতে বাংলাদেশী ও শ্রীলংকান ৬৫ অভিবাসী উদ্ধার

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ১৭ আগস্ট ২০১৯, শনিবার, ৯:৩৩

উপসাগরীয় তীরবর্তী মেক্সিকোর ভেরাক্রুজ রাজ্য থেকে ৬৫ জন বাংলাদেশী ও শ্রীলংকান অভিবাসীকে উদ্ধার করা হয়েছে। তাদেরকে একটি মহাসড়কের ধারে খুঁজে পায় মেক্সিকোর কেন্দ্রীয় পুলিশ। উদ্ধারের সময় তারা ভীষণ ক্ষুধার্ত ও পিপাসার্ত ছিলেন। মেক্সিকান কর্তৃপক্ষের বরাতে এ খবর দিয়েছে বার্তা সংস্থা এপি। তবে খবরে বলা হয়নি, উদ্ধারকৃতদের মধ্যে কতজন বাংলাদেশী, আর কতজন শ্রীলংকান।

বৃহস্পতিবার মেক্সিকোর কেন্দ্রীয় জননিরাপত্তা বিভাগ জানায়, মেক্সিকো হয়ে যুক্তরাষ্ট্রের সীমান্তে যাওয়ার উদ্দেশ্যে অত্যন্ত দীর্ঘ ও জটিল পথ পাড়ি দিয়ে মেক্সিকোয় পৌঁছান এই অভিবাসীরা। তারা জানান, ২৪শে এপ্রিল কাতারের একটি বিমানবন্দর থেকে তাদের যাত্রা শুরু হয়। সেখান থেকে তুরস্ক হয়ে কলম্বিয়ায় যান তারা। কলম্বিয়া থেকে ইকুয়েডর, পানামা ও গুয়েতেমালা হয়ে তারা মেক্সিকোয় পৌঁছান।
অভিবাসীরা জানান, মেক্সিকোতে এসে তারা নৌকায় করে কোৎসাকোয়ালকোস নদী ধরে এগোতে থাকেন। কিন্তু এটি স্পষ্ট নয় ঠিক কেন তারা এই নদী ব্যবহার করেছিলেন। কেননা, এই নদী দিয়ে কোনোভাবেই মার্কিন সীমান্তে পৌঁছানোর কোনো উপায় নেই।

উদ্ধারের পর অভিবাসীদের আসায়ুকান পৌরসভার একটি অভিবাসী কেন্দ্রে নেওয়া হয়েছে। সেখানেই তাদের আইনি মর্যাদা কী হবে, শনাক্ত করা হবে। অভিবাসীদের নাগরিকত্ব নিশ্চিত হওয়ার পর তাদেরকে নিজ নিজ দেশে ফেরত যেতে সহায়তা করা হবে।
প্রসঙ্গত, যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে ৭ই জুন অভিবাসন বিষয়ক চুক্তি হয় মেক্সিকোর। এরপর থেকে যুক্তরাষ্ট্রে পৌঁছানোর চেষ্টাকালে মোট ১৯,০০৫ জন অভিবাসীকে আটক করা হয়েছে বলে জানিয়েছে মেক্সিকো কর্তৃপক্ষ।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর