× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯, সোমবার
আলাপন

‘এখন দর্শকের প্রশংসা বলে কিছু নেই’

বিনোদন

এন আই বুলবুল | ১৮ আগস্ট ২০১৯, রবিবার, ৯:৩৬

ঈদের ছুটি কাটিয়ে শুটিংয়ে ফিরেছেন টিভি নাটকের জনপ্রিয় অভিনেত্রী অপর্ণা ঘোষ। গতকাল থেকে এই অভিনেত্রী ‘টিপু সুলতান’ শিরোনামের একটি ধারাবাহিকের শুটিং করছেন বলে জানান। এটি নির্মাণ করছেন কিরণ জামান। এই ধারাবাহিকে অপর্ণা অভিনয় করছেন আনিসুর রহমান মিলনের বিপরীতে। প্রায় তিন বছর আগে এই ধারাবাহিকটির শুটিং শুরু হয়। মাঝে বিভিন্ন কারণে তা বন্ধ ছিল। শুটিংয়ে ফেরা ও এই ধারাবাহিকটি নিয়ে অপর্ণা বলেন,  এবার অনেক আনন্দে ঈদের ছুটি কাটালাম। ঈদের ছুটিতে চট্টগ্রামে ছিলাম। শুক্রবার ঢাকায় ফিরেছি। ফিরেই ‘টিপু সুলতান’ ধারাবাহিকটির শুটিং শুরু করেছি। এই ধারাবাহিকের গল্পটি মৌলিক। একটা সময় আমাদের দেশে কোনো বাড়িতে ডাকাতি করার ক্ষেত্রে ডাকাতরা আগেই জানিয়ে দিত। টিপু সুলতানের গল্পটি সেখান থেকে নেওয়া। অনেকদিন বন্ধ থাকার পর এই ধারাবাহিকটির শুটিং শুরু  করেছি। গল্পটি অনেক চমৎকার।

দর্শকদের ভালো লাগবে। ঈদে এবার সাতটির মতো নাটকে অভিনয় করেছেন এই অভিনেত্রী। উল্লেখযোগ্য  নাটকগুলো হলো অঞ্জন আইচের ‘তোমার নামের রোদ্দুরে’, দিপু হাজরার ‘আমি আবার তোমার আঙ্গুল ধরতে চাই’, সাজ্জাদ সুমনের ‘ম্যানেজ মকবুল’, সরদার রোকনের ‘চিনি বাবা’, সাগর জাহানের ‘কবুল বললো কে’ এবং রেদওয়ান রনির ‘বিহাইন্ড দ্য পাপ্পি’। ঈদের কোন কোন নাটকের জন্য দর্শকের প্রশংসা পাচ্ছেন? এই প্রশ্নের উত্তরে অপর্ণা বলেন, এখন দর্শকের প্রশংসা বলে কিছু নেই। কারণ বেশির ভাগ নাটক কমেডি। এগুলো দেখতে দেখতে দর্শক অভ্যস্ত হয়ে পড়েছে। নতুন কিছু নেই এসব নাটকে। তবু ‘বি হ্যাইন্ড দ্য পাপ্পি’ ও ‘কবুল বললো কে’ এই দুটি নাটকের জন্য অনেকের ভালো লাগার কথা শুনেছি। অনেক শিল্পী বলছেন ঈদে এবার সিরিয়াসধর্মী গল্পের নাটক নির্মাণ হয়েছে বেশি। ঈদে অন্য সহকর্মীদের নাটক কি দেখেছেন? অপর্ণা বলেন, ঈদে নির্মাতা আশফাক নিপুনের ‘এই শহরে’ এবং অন্য একটি নাটক দেখেছি। নাটক দুটি সমসাময়িক মনে হয়েছে। তবে এই সময়ে খুব বেশি সিরিয়াস গল্পের নাটক নির্মাণ হচ্ছে আমি বলবো না। কারণ আমাদের এখন গল্পের অভাব আছে। নাটকে কেন গল্পের এই অভাব মনে করেন অপর্ণা? তার ভাষ্য, শুধু গল্প নয়।

একইসঙ্গে আমাদের এখন ভালো মেকারেরও অভাব। এই কারণগুলোর মূলে আছে বাজেট। বাজেট ভালো না থাকলে ভালো নির্মাতারা কাজ করতে আগ্রহী হয় না। ভালো স্ক্রিপ্ট রাইটারের কাছ থেকেও ভালো গল্প নেওয়া সম্ভব হয় না। আমাদের সিনিয়র যারা আছেন তাদের এই সমস্যাগুলো সমাধানের জন্য এগিয়ে আসতে হবে। টেলিভিশন চ্যানেলগুলোর সঙ্গে বসে একটা ভালো সিদ্ধান্ত নিতে হবে। এভাবে চলতে থাকলে নিজেদের ক্ষতি নিজেরাই করবো। টিভি নাটকের বাইরে বড় পর্দায়ও এই অভিনেত্রী প্রশংসিত হয়েছেন। তার অভিনীত ‘মৃত্তিকার মায়া’, ‘সুতপার ঠিকানা’ ও ‘ভূবন মাঝি’ ছবিগুলো দর্শকের মধ্যে দারুণ সাড়া ফেলে।

তার অভিনীত মুক্তিপ্রাপ্ত সর্বশেষ ছবি হলো ‘ভূবন মাঝি’। এই ছবিতে তিনি ওপার বাংলার অভিনেতা পরমব্রতর বিপরীতে অভিনয় করেন। এটি নির্মাণ করেন ফাখরুল আরেফিন খান। বর্তমানে একই নির্মাতার ‘গন্ডি’ শিরোনামের একটি চলচ্চিত্র আছে অপর্ণার হাতে। এরইমধ্যে ছবিটির কিছু অংশের কাজ শেষ হয়েছে। ছবিটি নিয়ে জানতে চাইলে অপর্ণা বলেন, ১লা সেপ্টেম্বর থেকে এই ছবির শুটিং শুরু করবো। এবার প্রথম দুই দিন এফডিসিতে দৃশ্যধারণ হবে। তারপর ঢাকার বিভিন্ন লোকেশনে শুটিং চলবে। এই নির্মাতার সঙ্গে আগেও কাজ করেছি। তাই এই ছবির শুটিং করতে তেমন কোনো সমস্যা হচ্ছে না। নির্মাতা কি চান সেটি সহজেই বুঝতে পারি।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর