× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, শুক্রবার

পটিয়ায় ৪৫ লাখ টাকার ইয়াবা নিয়ে পুলিশের লুকোচুরি

বাংলারজমিন

পটিয়া (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি | ১৯ আগস্ট ২০১৯, সোমবার, ৭:৪১

এক রোহিঙ্গা নাগরিককে ১৫ হাজার পিস ইয়াবাসহ আটক করে পটিয়া থানার উপ-পরিদর্শক মোবারক হোসেনের বিরুদ্ধে দিনভর লুকোচুরির অভিযোগ উঠেছে। আটক রোহিঙ্গা নাগরিক হলেন, মমতাজ হোসেন (৪৮)। তার পিতার নাম আবদুল হাকিম। সে কক্সবাজার জেলার উখিয়া কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ব্লক সি-২তে তার পরিবার নিয়ে বসবাস করে আসছে। জানা যায়, গত ১৭ই আগস্ট শনিবার দুপুর ১২টায় চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের উপজেলার শান্তিরহাট মোড়ের ইউনিয়ন ব্যাংকের নিচে রোহিঙ্গা নাগরিক কাঁধে একটি ব্যাগ নিয়ে দাঁড়িয়ে থাকে। পটিয়া থানার এসআই মোবারক হোসেন তাকে তল্লাশি চালিয়ে কাঁধে থাকা ব্যাগ থেকে ১৫ হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার করে। পরে রোহিঙ্গা নাগরিককে আটক করে ইয়াবাসহ থানায় নিয়ে আসা হয়। এ খবর পেয়ে স্থানীয় সংবাদকর্মীরা এসআই মোবারকের কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান, ২৩শ’ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে। সংবাদকর্মীরা তথ্য নিশ্চিত করে এসআই মোবারককে ১৫ হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধারের কথা জানালেও ওই এসআই সংবাদকর্মীদের পাল্টা জানান, ‘১৫ হাজার পিস ইয়াবার কথা যে বলেছে তাকে তার কাছে ধরে নিয়ে আসতে।’ এ বিষয়ে সংবাদকর্মীরা থানার ওসি বোরহান উদ্দিনকে জানালে ওসি সংবাদকর্মীদের কিছুক্ষণের মধ্যে জানানো হবে বলে জানান। পরে তিনি রাত সাড়ে ১১টার দিকে সংবাদকর্মীদের ‘১৫ হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার এবং রোহিঙ্গা নাগরিক আটকের বিষয়টি স্বীকার করেন। যার আনুমানিক মূল্য ৪৫ লাখ টাকা। তার বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে। পরে ওই এসআই মোবারকের কাছে ইয়াবা নিয়ে লুকোচুরির বিষয়টি জানতে চাইলে তিনি জানান, ‘আসলে ওই সময়ে উদ্ধার করা ইয়াবাগুলো গণনা করা হয়নি।


অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর