× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, বৃহস্পতিবার

‘সাকিবের সঙ্গে আমার দ্বন্দ্ব নেই’

খেলা

স্পোর্টস রিপোর্টার | ১৯ আগস্ট ২০১৯, সোমবার, ৯:০৩

বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচ।  দলের সহঅধিনায়ক সাকিব আল হাসান নাকি সেই ম্যাচে মাহমুদুল্লাহ রিয়াদকে দলে চাননি। এমন অনুরোধও নাকি করেছিলেন অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজার কাছে। যদিও সেই সময় এই খবর সংবাদমাধ্যমে প্রকাশ পায়নি। হঠাৎ করেই শ্রীলঙ্কা সফরে এমন কথা ছড়িয়ে পড়ে সংবাদমাধ্যমে। এ নিয়ে শুরু হয় নানা আলোচনা-সমালোচনা। এবার সেই বিষয়ে মুখ খুলেছেন মাহমুদুল্লাহ নিজেই। গতকাল এই প্রসঙ্গ উঠতেই তিনি বিষয়টি অস্বীকার করেন। সেই সঙ্গে জানিয়ে দেন সাকিবের সঙ্গে তার কোনো দ্বন্দ্ব নেই। তিনি বলেন, ‘আমার মনে হয় ওই ধরনের ব্যাপার নিয়ে কথা না বলাই ভালো। কিছু কিছু জিনিস যেভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে ওভাবে সম্ভবত জিনিসটা হয়নি বা উপস্থাপনটা ভিন্নভাবে হতে পারত। আমি শুধু এতটুকুই বলতে চাই, আমার মনে হয়না কোনো টিম মেটের সঙ্গে আমার গণ্ডগোল বা কোনো কিছু আছে। সাকিব আমরা খুব ভালো বন্ধু। ড্রেসিংরুমে চাইলে আপনারা আসতে পারেন আমরা কীভাবে একজন আরেকজনের সঙ্গে কথা বলি। একজন আরেকজনের সঙ্গে কত মজা করি, কত ভালেভাবে সময় কাটাই। আপনাদের স্বাগত জানাই চাইলে এসে দেখতে পারেন।’
দলের সবার সঙ্গে নিজের সস্পর্ক কতটা ভালো তা জানাতে গিয়ে মাহমুদুল্লাহ বলেন, ‘ছোট হোক বড় হোক আমরা কতটা ভালভাবে থাকি। আমি শতভাগ চেষ্টা করে যাচ্ছি আমি যেন সবার সঙ্গে ভালভাবে থাকতে পারি এবং টিমের জন্য ভালো খেলতে পারি। সবসময় এ কথাটা বলি এবং আজও এটি বললাম, ভবিষ্যতেও বলব যদি সবকিছু ঠিক থাকে।’ তবে বেশ কিছু দিন থেকেই তিনি এড়িয়ে চলছিলেন সংবাদ মাধ্যমকে। ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে তিনি সংবাদ মাধ্যমে কথা বলতেই আসেননি। এড়িয়ে গেছেন নানা ভাবে। বলার অপেক্ষা রাখেনা  বেশ চাপেই ছিলেন টাইগারদের অভিজ্ঞ ক্রিকেটার। তবে অন্য কোন সমস্যার কথা উড়িয়ে দিলেন মাহমুদুল্লাহ। তিনি বলেন, ‘না না। আমি মিডিয়ার বাইরে ছিলাম না। সঠিক সময়ের জন্য অপেক্ষা করছিলাম। যেন আমি ভালো কিছু করে আপনাদের সামনে আসতে পারি এটার জন্য অপেক্ষা করছিলাম। এর মধ্যে গত সিরিজটা আমার ভালো হয়নি। আমার মনে হয় বিশ্বকাপটা মোটামুটি ভালোই খেলেছি। শেষ সিরিজটা খারাপ গিয়েছে।’
এখন রিয়াদ আবশ্য বেশ ফুরফুরে। সামনে রয়েছে আফগানিস্তানের বিপক্ষে টেস্ট ও  ত্রিদেশীয় সিরিজ, সেই জন্য নিজেকে প্রস্তুতও করছেন তিনি। আফগান সিরিজ নিয়ে তিনি বলেন, ‘এই কয়দিন আমরা ব্রেকে ছিলাম। এখন আসলাম। ফিটনেস নিয়ে কয়েকদিন কাজ করবো। তারপর প্রতিদিনই স্কিল নিয়ে কিছু না কিছু কাজ করবো। তো আশা করি সামনে সিরিজ আছে। আফগানিস্তানের সঙ্গে টেস্ট আছে। তারপর টি-টুয়েন্টি সিরিজ। টি-টুয়েন্টি ম্যাচ অনেক বেশি। তো ওভাবেই ফোকাস করতে হবে। প্রতিটি টেস্ট যে কোনো টিমের সঙ্গেই গুরুত্বপূর্ণ। এটা স্পেশাল চ্যালেঞ্জিং একটা ক্ষেত্র। টেস্ট ক্রিকেট সবসময় পরিপূর্ণতা দেয় আমি মনে করি। আশা করি ভালো একটা ম্যাচ হবে।’

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
রাইয়ান আহমেদ
১৯ আগস্ট ২০১৯, সোমবার, ১০:০৯

শাক দিয়ে মাছ ঢাকার চেষ্টা না করে ভালো। সমস্যা আপনাদের ফিটনেস এ নয়, সমস্যা আপনাদের বয়স আর শিখতে না পাড়ার। এখনই সময় এক দশক এর ও বেশি সময় ধরে জাতীয় দলে থাকা আপনাদের বিদায়ের। বছরের পর বছর কোটি কোটি টাকা খরচ করলে বিশ্বের যে কোনো দলের ব্যাটসম্যান রা এতদিনে ব্যাটিং গুরু হয়ে যেত. আপনারা এভাবে ১৫-২০ বছর দল আঁকড়ে ধরে রাখলে তরুণ আর যুব খেলোয়াড় দের জাতীয় দলে খেলার স্বপ্ন শেষ হয়ে যাবে।

অন্যান্য খবর