× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯, সোমবার

জাকির নায়েকের ক্ষমা প্রার্থনা, পুলিশের নিষেধাজ্ঞা

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ২০ আগস্ট ২০১৯, মঙ্গলবার, ১১:০৯

মালয়েশিয়ায় বিতর্কিত বক্তব্যের জন্য মঙ্গলবার ক্ষমা চেয়েছেন ধর্মীয় বিতর্কিত প্রচারক ড. জাকির নায়েক। কিন্তু তাতে শেষ রক্ষা হচ্ছে না। পুলিশ তাকে মালয়েশিয়ার যেকোনো স্থানে বক্তব্য দেয়ার ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে। সম্প্রতি তিনি মালয়েশিয়ার হিন্দু ও জাতিগত চীনাদের নিয়ে মন্তব্য করেন। তা নিয়ে তোলপাড় সৃষ্টি হয়। বিষয়টি মন্ত্রিপরিষদে ওঠে। দাবি ওঠে তাকে বহিষ্কারের। প্রথমদিকে জাকির নায়েকের পক্ষে প্রধানমন্ত্রী ড. মাহাথির মোহাম্মদ থাকলেও পরে তিনি বলেছেন, তাকে বহিষ্কার করা হতে পারে। ফলে ক্রমশ একপেশে হয়ে পড়ছেন ওই প্রচারক। এ অবস্থায় তিনি তার বিতর্কিত মন্তব্যের জন্য ক্ষমা চান। এ খবর দিয়েছে অনলাইন জি নিউজ।

সম্প্রতি জাকির নায়েক এক বক্তব্যে বলেছেন, ভারতে মুসলিমরা যে অধিকার ভোগ করছেন তার চেয়ে শতগুণেরও বেশি অধিকার ভোগ করছেন মালয়েশিয়ায় বসবাসকারী হিন্দুরা। তার এ বক্তব্যের জন্য এরই মধ্যে সাতটি রাজ্যে তাকে বক্তব্য রাখার ক্ষেত্রে নিষিদ্ধ করা হয়েছে। মঙ্গলবার তাই তিনি ক্ষমা প্রার্থনা করে বলেছেন, আমি আমার অবস্থান পরিষ্কার করা সত্ত্বেও, সবার কাছে ক্ষমা চাওয়া উচিত বলে মনে করছি। ক্ষমা চাইছি তাদের কাছে, যারা আহত হয়েছেন ভুল বোঝাবুঝির জন্য। আমার প্রতি আপনারা কেউ খারাপ অনুভূতি পোষণ করুন এমনটা আমি চাই না। আমাকে সাম্প্রদায়িক হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। তবে আমার অনেক বক্তব্য ভুলভাবে উদ্ধৃত করা হয়েছে।  

ড. জাকির নায়েক ক্ষমা প্রার্থনার সামান্য পরেই মালয়েশিয়ার রাজকীয় পুলিশের এক কর্মকর্তা নিশ্চিত করেছেন, মালয়েশিয়ার যেকোনো স্থানে বক্তব্য রাখার ক্ষেত্রে জাকির নায়েককে নিষিদ্ধ করা হয়েছে। পুলিশের কর্মকর্তা আসমাওয়াতি আহমেদ বলেছেন, পুলিশের সব কন্টিনজেন্টকে এমন নির্দেশ পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে। এটা করা হয়েছে জাতীয় নিরাপত্তা ও সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষার জন্য।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর