× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, শুক্রবার

পশ্চিমবঙ্গে লোকনাথ ব্রহ্মচারীর আশ্রমে পদপিষ্ট হয়ে ৬ জনের মৃত্যু

ভারত

কলকাতা প্রতিনিধি | ২৩ আগস্ট ২০১৯, শুক্রবার, ৮:৩২

পশ্চিমবঙ্গের উত্তর ২৪ পরগণা জেলার কচুয়াতে লোকনাথবাবার আশ্রমে পদপিষ্ট হয়ে ৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়েছেন ৩০ জনের বেশি পূণ্যার্থী। সরকারিভাবে অবশ্য ৩ জনের মৃত্যুর কথা স্বীকার করা হয়েছে। প্রতি বছরের মত এ বছরও লোকনাথ ব্রহ্মচারীর জন্মতিথি উপলক্ষে কচুয়া আশ্রমে বৃহষ্পতিবার রাত থেকেই আসতে শুরু করেছিলেন পূণ্যার্থীরা। ভোরের দিকে অতিরিক্ত ভিড়ের চাপে ভেঙ্গে গিয়েছিল পাঁচিল । এরপরেই আতঙ্কে হুড়োহুড়ি পড়ে গিয়েছিল। তাতেই ৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়েছেন ৩০ জন। আহতদের মধ্যে বেশ কয়েকজনকে বসিরহাট মহকুমা হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছে। তবে কয়েকজনের অবস্থা অত্যন্ত সংকটজনক হওয়ায় তাঁদের কলকাতার হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়েছে। দুর্ঘটনার খবর পেয়েই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কলকাতার বিভিন্ন হাসপাতালে গিয়ে আহতদের চিকিৎসার খোঁজ নিয়েছেন। আহতদের পরিবারের সঙ্গে কথা বলেছেন তিনি। নিহত ও আহতদের পরিবারের জন্য মুখ্যমন্ত্রী ক্ষতিপূরন দেবার কথাও ঘোষনা করেছেন। লোকনাথ ব্রহ্মচারীর জন্মস্থান কচুয়ার আশ্রমে জন্মতিথি উপলক্ষ্যে রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে পূণ্যার্থীরা এসেছিলেন লোকনাথ ব্রহ্মচারীর মাথায় গঙ্গাজল ঢালতে। বৃহস্পতিবার রাত থেকেই ভিড় বাড়ছিল মন্দিরে। শুক্রবার ভোর তিনটের সময় অতিরিক্ত ভিড় হয়ে যাওয়ায়, তা সামাল দিতে হিমশিম খেয়েছে পুলিস ও নিরাপত্তারক্ষীরা। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, রাত তিনটের সময় আচমকাই ভিড়ের চাপে ভেঙে গিয়েছে মন্দিরের সামনে পুকুরের ধারের পাঁচিল। অনেকেই জলে পডে গিয়েছেন। পদপিষ্ট হয়েছেন বেশ কয়েকজন। এই দুর্ঘটনার পরই বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে কচুয়ার নিরাপত্তা। এলাকায় পুলিস বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। অভিযোগ, ভিড় বাড়লেও মন্দির কর্তৃপক্ষের তরফে তা সামাল দেওয়ার কোনও ব্যবস্থা ছিল না। পূণ্যার্থীদের অভিযোগ, প্রতিবার ভিড় সামলাতে লকগেটের ব্যবস্থা থাকলেও এ বার তা ছিল না। ফলে বহু মানুষের সমাগমে পরিস্থিতি হাতের বাইরে চলে গিয়েছে। রাজ্য পুলিশের ডিজি বীরেন্দ্র জানিয়েচেন, দুর্ঘটনার তদন্ত করা হচ্ছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর