× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, বুধবার

ওয়ার্নারের প্রশংসার জবাবে বিনয়ী আর্চার

খেলা

স্পোর্টস ডেস্ক | ২৪ আগস্ট ২০১৯, শনিবার, ৮:৩৯

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে হেডিংলি টেস্টের প্রথম ইনিংস বল হাতে নৈপুণ্য নিয়ে প্রশংসায় ভাসছেন জফরা আর্চার। আর্চারকে অজি ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নার প্রোটিয়া ফাস্ট বোলার ডেল স্টেইনের সঙ্গে তুলনা করছেন। তবে এতে খুশি হলেও আর্চার এটাকে বাড়াবাড়ি মনে করেন। চলতি অ্যাশেজের তৃতীয় টেস্টে বৃহস্পতিবার ম্যাচের প্রথম দিনে ১৭৯ রানে গুঁড়িয়ে যায় সফরকারী অস্ট্রেলিয়ার ইনিংস। ইংল্যান্ডের বল হাতে ১৭.১ ওভারের স্পেলে মাত্র ৪৫ রানে ছয় উইকেট নেন জফরা আর্চার। লিডসে অস্ট্রেলিয়ার প্রথম ইনিংসের ৩১.৩ ওভার শেষে ১৩৬/২ সংগ্রহ নিয়ে লাগামটা ছিল অজিদের হাতেই। তবে ব্যক্তিগত ৬১ রানে ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নারকে সাজঘরে ফিরিয়ে লাগাম নিজেদের হাতে নেন ইংল্যান্ডের বার্বাডিয়ান পেসার জফরা আর্চার। ৪৩ রানে শেষ আট উইকেট খোয়ায় অস্ট্রেলিয়া। পরে দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে ৪৩৯ উইকেট নেয়া ডেল স্টেইনের সঙ্গে আর্চারের তুলনা করেন ওয়ার্নার। আর ২৪ বছর বয়সী জফরা আর্চার বলেন, এটা দারুণ ব্যাপার। একটু বাড়াবাড়িও। আমি সাসেক্সের হয়ে যখন খেলাে শুরু করি তখন ডেল (স্টেইন) আমাকে টুইট করেছিলেন। অনেক ম্যাচ খেলার অভিজ্ঞতালব্ধ এবং অনেক উইকেটের মালিক একজন খেলোয়াড় আমাকে নিয়ে ভাবেন, এটাও আমার জন্য বড় ব্যাপার।
চলতি মাসের শুরুর দিকে টেস্ট ক্রিকেটে অবসরের ঘোষণা দেন ডেল স্টেইন। ৩৬ বছরের ডেল স্টেইন দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে টেস্টে সর্বাধিক উইকেটের মালিক। এবং ক্যারিয়ারে ইনিংসে পাঁচ উইকেট নিয়েছেন ২৬ বার। ক্রিকেটের অভিজাত ফরম্যাট টেস্টে ২০০-উর্ধ্ব উইকেটের ল্যান্ডমার্ক ছোঁয়া ৭৪ বোলারের মধ্যে স্টেইনের স্ট্রাইক রেট সেরা। ক্যারিয়ারে প্রতি ৪২.৩ বলে উইকেটের নজির রয়েছে তার। চলতি অ্যাশেজের দ্বিতীয় টেস্টে লর্ডসে অভিষেক জফরা আর্চারের। অভিষেক টেস্টে দুই ইনিংসে মোট পাঁচ উইকেট নেন বার্বাডোসে জন্মগ্রহণকারী এ ইংলিশ পেসার। আর্চারের স্ট্রাইক গড় ৩৩.৩।
চলতি অ্যাশেজের পাঁচ ইনিংসে এটি ওয়ার্নারের প্রথম হাফসেঞ্চুরি। আর হেডিংলি টেস্টের প্রথম দিন শেষে ওয়ার্নার বলেন, সে (আর্চার) ডেল স্টেইনের মতো বল করে। নতুন বলে সে দারুণভাবে কন্ডিশনের ব্যবধার করে। এটা ছিল ওয়ার্ল্ড-ক্লাস বোলিং। ইংল্যান্ড দারুণ প্রতিশ্রুতিশীল একজন বোলার পেলো। লর্ডসে বল হাতে ৯৬ মাইল গতি তোলেন জফরা আর্চার। তবে হেডিংলিতে তার বলের গতি ছিল ৯০ মাইলের আশপাশে। এ নিয়ে দিনশেষে আর্চার বলেন, প্রত্যেক স্পেলেই আমাকে উইকেট পেতে ৯০ মাইল বেগে বল করতে হবে, তা নয়। টেস্টে লাইন লেন্থ ঠিক রেখে বল করাটাও জরুরী।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর