× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, বুধবার

ভুটানের জালে বাংলাদেশের গোল উৎসব

খেলা

স্পোর্টস রিপোর্টার | ২৪ আগস্ট ২০১৯, শনিবার, ৮:৪২

অনূর্ধ্ব-১৫ সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে দুর্দান্ত শুরু করেছে বাংলাদেশ। গতকাল পশ্চিমবঙ্গের কল্যাণী স্টেডিয়ামে ভুটানের বিপক্ষে ৫-২ গোলে জয় কুড়ায় বাংলাদেশের কিশোররা। টুর্নামেন্টের প্রথম দিনে ভুটানকে ৩-২ গোলে হারায় শ্রীলঙ্কা। গতকাল বাংলাদেশের কাছে হেরে যাওয়ায় ভুটানের বিদায় প্রায় নিশ্চিত হয়েই গেল। টুর্নামেন্টে খেলছে সাফের ৫টি দেশ বাংলাদেশ, ভারত, নেপাল, ভুটান ও শ্রীলঙ্কা। ভারতও প্রথম দিনে ৫-০ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে নেপালকে।
এদিন গোল উৎসবের শুরু হয় ম্যাচের ১৫তম মিনিটে। লম্বা থ্রো-ইন থেকে হেডে লক্ষ্যভেদ করেন ফরোয়ার্ড আল আমিন রহমান। তবে দুই মিনিট পর তাদের উল্লাস থামিয়ে ভুটান সমতা ফেরায়। ক্রস থেকে হেডে ১-১ করেন সোনম চোজাং। ২১ মিনিটে আবারও এগিয়ে যায় বাংলাদেশ। ফ্রি কিক থেকে বল পেয়ে প্লেসিং শটে ব্যবধান ২-১ করেন আল মিরাদ। ৩২ মিনিটে নাটক জমে ওঠে আবার। বাংলাদেশের গোলকিপার সাব্বির গাজীর অমার্জনীয় এক ভুলে ম্যাচে ফেরে ভুটান। শট নিতে গিয়ে প্রতিপক্ষের স্ট্রাইকার চুজাংইয়ের পায়ে সরাসরি বল তুলে দিয়েছিল সাব্বির। এমন সুযোগ নষ্ট করেনি ভুটান। চোজাংয়ের কাছ থেকে বল পেয়ে গোল করেন ফের ম্যাচে সমতা আনে ফুব দর্জি (২-২)। বিরতিতে যাওয়ার ঠিক আগে বাংলাদেশ তৃতীয় গোলের দেখা পায়। দুর্দান্ত ভলির গোলে লাল-সবুজ দলকে এগিয়ে নেন মিডফিল্ডার শুভ সরকার।
৩-২ গোলে এগিয়ে থাকা বাংলাদেশ দ্বিতীয়ার্ধে চাপে ছিল। শেষ পর্যন্ত ৮৩ মিনিটে মিরাদের দ্বিতীয় গোলে স্বস্তি ফেরে চ্যাম্পিয়ন শিবিরে। ইনজুরি সময়ের ফ্রি কিক থেকে ভুটানের জালে পঞ্চমবার বল পাঠান ইমন ইসলাম।
অসুস্থতার কারনে দলের সঙ্গে যেতে পারেননি হেড কোচ রবার্ট মার্টিন রায়েলস। তার যায়গায় ম্যাচের আগের দিন হেড কোচের দায়িত্ব দেয়া হয় মোস্তফা আনোয়ার পারভেজকে। খেলার একদিন আগে হেড কোচের দায়িত্ব পাওয়া এই কোচের উচ্ছ্বাসটা তাই একটু বেশী। গতকাল খেলা শেষে পারভেজ বলেন,‘যে কোনও দলের জন্য জয়টা মুখ্য বিষয়। ব্যবধান বড় হলে তো আরও ভালো হয়। বাংলাদেশ ভালো খেলেছে। তাই জয়টাও বড় হয়েছে। এখানে প্রচণ্ড গরম। তাই ছেলেদের মানিয়ে নিতে সমস্যা হচ্ছে। তারপরেও আমরা গোল না খেলে ভালো হতো। ডিফেন্স ও গোলকিপারের ভুলের কারণেই আমরা দুটি গোল হজম করেছি। চেষ্টা থাকবে সামনের ম্যাচগুলোতে ভুলত্রুটি শুধরে আরো ভালো খেলার’।
রাউন্ড রবিন লীগের এই টুর্নামেন্টে বাংলাদেশ পরের ম্যাচে শ্রীলঙ্কার মুখোমুখি হবে আগামী কাল। এরপর ২৭ ও ২৯ আগস্ট নেপাল ও ভারতের বিপক্ষে শেষ দুটি ম্যাচ খেলবে লাল সবুজের প্রতিনিধিরা। পয়েন্ট টেবিলের সেরা দুই দল ৩১ আগস্ট খেলবে ফাইনালে। সব ম্যাচই খেলা হবে একই ভেন্যুতে। ২০১৫ সালে সিলেটে (অনূর্ধ্ব-১৬) প্রথম চ্যাম্পিয়ন হয় লাল-সবুজের দল। ২০১৮ সালেও বাংলাদেশ চ্যাম্পিয়ন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর