× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯, সোমবার

সংসদে মোজাফফর আহমদের জানাজা সম্পন্ন, প্রেসিডেন্ট-প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা

অনলাইন

অনলাইন ডেস্ক | ২৪ আগস্ট ২০১৯, শনিবার, ১২:২৪

জাতীয় সংসদ ভবনে মুজিবনগর সরকারের উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য ও ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টির (ন্যাপ) সভাপতি অধ্যাপক মোজাফফর আহমদের নামাজে জানাজা সম্পন্ন হয়েছে। আজ বেলা পৌনে ১১টার দিকে সংসদ ভবনের দক্ষিণ প্লাজায় নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয় বর্ষীয়ান এই রাজনীতিবিদের। পরে তার মরদেহে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান, প্রেসিডেন্ট আবদুল হামিদ,  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও স্পিকার ড. শিরীন শারমিন  চৌধুরী।

প্রেসিডেন্ট মো. আবদুল হামিদের পক্ষে তার সহকারী সামরিক সচিব শ্রদ্ধা জানান। আওয়ামী লীগের পক্ষে দলীয় নেতাদের সঙ্গে নিয়ে সভাপতি শেখ হাসিনা শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। পরে মরহুমের আত্মার শান্তি কামনা করে দোয়া ও মোনাজাত করা হয়।

এ সময় আওয়ামী লীগের নেতারা উপস্থিত ছিলেন। এর আগে মরহুমের জীবন নিয়ে স্মৃতিচারণ করেন তার দীর্ঘ দিনের রাজনৈতিক সহকর্মীরা। বীর এ মুক্তিযোদ্ধার কফিন জাতীয় পতাকায় মোড়ানো ছিল।

জানাজায় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন, সিপিবি সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম, ব্যারিস্টার আমির-উল ইসলাম, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিমন্ত্রী ইয়াফেস ওসমান, মাহবুব উল আলম হানিফ, জাহাঙ্গীর কবির নানক, আবদুস সোবহান গোলাপ উপস্থিত ছিলেন। মরহুমের জীবনী পাঠ করেন ন্যাপের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ইসমাইল  হোসেন।

জানাজা পরিচালনা করেন সংসদ ভবন মসজিদের ইমাম মাওলানা মো. সাইফুল্লাহ। জানাজা শেষে মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক মোজাফফর আহমেদকে গার্ড অব অনার ও রাষ্ট্রীয় সালাম প্রদান করা হয়। এ সময় এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়।

অধ্যাপক মোজাফফর আহমদ গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টা ৫০ মিনিটে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৯৭ বছর।

অধ্যাপক মোজাফফর আহমদ মুক্তিযুদ্ধকালীন মুজিবনগর সরকারের ছয়জন উপদেষ্টার মধ্যে একজন ছিলেন। ব্রিটিশবিরোধী আন্দোলন, ভাষা আন্দোলন, স্বাধীনতা যুদ্ধে তার ভূমিকা অবিস্মরণীয়।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর