× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, বৃহস্পতিবার
সিলেটে সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ

লন্ডন প্রবাসীর দুই কোটি টাকা আত্মসাতের পর বাগানবাড়ি দখল

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার, সিলেট থেকে | ২৬ আগস্ট ২০১৯, সোমবার, ৮:৪৩

লন্ডন প্রবাসী ভায়রা ভাইয়ের দুই কোটি টাকা আত্মসাৎ করলেন দেশে থাকা ভায়রা ফয়জুল ইসলাম লেইছ। শুধু টাকা আত্মসাতই করেননি এখন লন্ডনপ্রবাসী ভায়রা দবির আহমদের পুরো বাগানবাড়ি দখলে রেখেছেন। দেশে এসে লন্ডনী দবির জমি ও হিসাব চাইলে তাকে প্রাণে মারার হুমকিসহ সন্ত্রাসী লেলিয়ে দেয়া হয়েছে পেছনে। এ কারণে তটস্থ হয়ে পড়েছেন ওই প্রবাসী। গতকাল সিলেটে সংবাদ সম্মেলন করে সিলেট নগরীর জালালাবাদ এলাকার বাসিন্দা মরহুম হাজী মখদ্দছ আলীর ছেলে লন্ডন প্রবাসী ও বৃটিশ নাগরিক দবির আহমদ এমন অভিযোগ করেন। তিনি বলেন- গোয়াইনঘাট থানার ফতেহপুরে ১৯৯৫-২০০২ ইং পর্যন্ত প্রায় প্রায় ৬৫ একর ভূমি খরিদ করে তম্মধ্যে ৩৫ একর ভূমিতে ৩০টি পুকুর খনন করে ‘শাহজালাল মৎস্য খামার’  নামে প্রকল্প করেন। আর অবশিষ্ট ভূমিতে সেগুন, বেলজিয়াম, আকাশী, মেহগুনি, রেনডি, চামসহ প্রায় ২০ প্রজাতির গাছ রোপণ করেন। তার ভাই ফয়েজ আহমদ তা রক্ষণাবেক্ষণ করতেন। যার ফলে ফয়েজ আহমদ মৎস্য উৎপাদনের জন্য ২০০২ সালে জাতীয় পুরস্কার অর্জন করেন। দীর্ঘদিন মৎস্য চাষ করে তার ভাই অন্যান্য ব্যবসা বাণিজ্যে ব্যস্ত হয়ে যান। ফলে ২০১০ সালে তাদের ঘনিষ্ঠ আত্মীয় ও আমার ভায়রা ভাই নগরীর শাহজালাল উপশহর বি-ব্লকের, ২০ নম্বর রোডের, ২২ নং বাসার বাসিন্দা মৃত এম এ খালিকের ছেলে ফয়জুল ইসলাম লেইছকে প্রতি বৎসরে ৫ লাখ টাকা ভাড়া সাব্যস্তক্রমে ৫ বছরের জন্য কোনো  চুক্তিনামা না করে মৌখিকভাবে সরল বিশ্বাসে ৫ বৎসরের জন্য ভাড়া দেন। এক বছরের মধ্যে ভাড়ার টাকা পরিশোধ করার শর্ত থাকলেও লেইছ পরিশোধ করেননি। উল্টো লেইছ তাকে না জানিয়ে গোপনে গাছপালা কেটে বিক্রি এবং পুকুরের মাছ বিক্রি ও বিভিন্ন লোকের কাছে জায়গা বন্দক ও ভাড়া দিয়ে প্রায় ২ কোটি টাকা আত্মসাৎ করেন। এ সকল কিছুরও কোনো হদিস এখনো পর্যন্ত তিনি পান নি। গত ১০ই জুলাই প্রবাস থেকে ফিরে ভায়রা ভাই ফয়জুল ইসলাম লেইছের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করে টাকা ও জায়গার বিষয়ে আলাপ করতে চাইলে তখন লেইছ ক্ষিপ্ত হয়ে তাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ শুরু করেন। টাকা দেবেন না বলে হুমকি দেন। এ ঘটনায় মামলা ও থানায় জিডি করেছেন বলে সংবাদ সম্মেলনে জানান দবির আহমদ।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
Kazi
২৬ আগস্ট ২০১৯, সোমবার, ১২:১১

সরকার বিনিয়োগ নিরাপদ বলে। এই কি তার নমুনা । বিনিয়োগকারির প্রাণ সংকটে পড়েছে ।

অন্যান্য খবর