× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, বৃহস্পতিবার

বরিশালে অপহৃত দুই তরুণী উদ্ধারের পর যা বললেন

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার, বরিশাল থেকে | ২৬ আগস্ট ২০১৯, সোমবার, ৮:৫৩

বরিশাল নগরী থেকে অপহৃত বিএনপি নেতার মেয়েসহ দুই তরুণী রাজশাহী থেকে উদ্ধার হয়েছে। শনিবার বিকেলে তাদেরকে শাহমখদুম নওদাপাড়ার একটি বাসা থেকে উদ্ধার করা হয়। পরবর্তী সময় বরিশালে নিয়ে এসে তাদের রোববার দুপুরে বরিশাল আদালতে উপস্থিত করে পুলিশ। পুলিশের কাছে এই দুই তরুণী স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে বলেছেন- তারা সমকামী। প্রেমের টানে ঘর ছাড়েন। কেউ তাদের অপহরণ করেনি। এই দুই তরুণী হচ্ছেন- বরিশাল নগরীর ১৭ নম্বর ওয়ার্ড বিএনপির আহ্বায়ক স্বর্ণ ব্যবসায়ী আনোয়ার হোসেনের মেয়ে ফাহমিদ আজমিন তামান্না এবং বিএম কলেজ রোড এলাকার বাসিন্দা প্রবাসী নাসির উদ্দিনের মেয়ে তামান্না আক্তার। পুলিশ জানায়, চলতি বছরের ১৯শে মার্চ তারা বরিশাল শহর  থেকে নিখোঁজ হন। এই ঘটনায় ১৮ই এপ্রিল তিনজনকে আসামি করে বরিশাল মেট্রোপলিটন কোতোয়ালি মডেল থানায় একটি অপহরণ মামলা করেন শহরের আগরপুর রোডের বাসিন্দা বিএনপি নেতা আনোয়ার  হোসেন। এতে নগরীর অক্সফোর্ড মিশন রোডের আমজাদ মঞ্জিলের ভাড়াটিয়া বাসিন্দা আব্দুর রহমান দুলাল ফকিরের ছেলে উজ্জল হোসেন রানা, স্ত্রী আলেয়া বেগম এবং মেয়ে জামাতা মো. মাসুমকে অভিযুক্ত করা হয়। তাদের মধ্যে মামলার প্রধান আসামি উজ্জ্বল হোসেন রানাকে  গ্রেপ্তার করে কারাগারে প্রেরণ করলেও অপহৃত দুই তরুণীর খোঁজ পাচ্ছিল না পুলিশ। সম্প্রতি পুলিশ তথ্যপ্রযুক্তির মাধ্যমে নিশ্চিত হয়, ওই দুই তরুণীর অবস্থান রাজশাহী শহরে। পরে বরিশাল মেট্রোপলিটন  কোতোয়ালি মডেল থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) ফিরোজ আল মামুন সেখানকার পুলিশের সহযোগিতায় অভিযান চালিয়ে শহরের শাহমখদুম থানাধীন নওদাপাড়া এলাকায় আব্দুল্লাহ আল মাহমুদের মালিকানাধীন বাসা থেকে তাদের উদ্ধার করেন। পুলিশের দাবি- উদ্ধার অভিযানের পরে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে দুই তরুণী জানিয়েছে- তাদের কেউ অপহরণ করেননি। বরং তারা দুজনেই পরিকল্পনা করে বরিশাল থেকে পালিয়ে এসে রাজশাহীতে ঘর ভাড়া নিয়েছেন। এবং তারা উভয়ে সমকামী বলেও পুলিশের কাছে স্বীকার করেছেন। বরিশাল মেট্রোপলিটন কোতোয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নুরুল ইসলাম জানান, দুই তরুণীকে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। আদালত তাদেরকে পরিবারের কাছে হস্তান্তরের নির্দেশ দিয়েছেন।’

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
Kazi
২৬ আগস্ট ২০১৯, সোমবার, ২:০৭

There is no relation of character of children to parents or party. It is choice of their own, for which parents really feel ashamed of. May Allah save us parents, from such embarrassing situations for behavior or character of our children.

Daysack
২৫ আগস্ট ২০১৯, রবিবার, ৪:৪৯

BNP JAMAT-SHIBIR KI BOLBEN ?

অন্যান্য খবর