× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, শুক্রবার

অ্যামাজন নিয়ে ঐকমতের কাছাকাছি জি-৭ নেতারা

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ২৬ আগস্ট ২০১৯, সোমবার, ১০:২৩

পৃথিবীর অক্সিজেন বলে পরিচিত অ্যামাজন বন পুড়ছে। তা নিয়ে সারাবিশ্বে উদ্বেগ, উৎকণ্ঠা। এরই মধ্যে ফ্রান্সে বসেছে জি-৭ ভুক্ত দেশগুলোর নেতাদের শীর্ষ সম্মেলন। অনেক উত্তপ্ত ইস্যুর মধ্যে অ্যামাজন জঙ্গল তাতে স্থান পেয়েছে। ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রন বলেছেন, সম্মেলনের নেতারা অ্যামাজনের এই অগ্নিকা- নিয়ন্ত্রণের বিষয়ে সহায়তার জন্য একমত হওয়ার খুব কাছাকাছি। সর্বশেষ রোববার এ নিয়ে বৈঠক চলছিল নেতাদের মধ্যে। এ বিষয়ে ম্যাক্রন বলেছেন, ‘প্রযুক্তি ও আর্থিক সহায়তা’ দেয়ার একটি চুক্তির খুব কাছে রয়েছেন নেতারা। এ খবর দিয়েছে অনলাইন বিবিসি।
 
উল্লেখ্য, শনিবার থেকে ফ্রান্সের সমুদ্র তীরবর্তী বিয়ারিটজ শহরে শুরু হয়েছে জি-৭ শীর্ষ সম্মেলন। এতে অংশ নিচ্ছেন যুক্তরাষ্ট্র, জাপান, জার্মানি, ফ্রান্স, ইতালি, বৃটেন ও কানাডার নেতারা। আজ সোমবার এ সম্মেলন শেষ হওয়ার কথা।

সমালোচকরা এই অগ্নিকাণ্ডের জন্য ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট জায়ের বোলসোনারোকে দায়ী করছেন। বলছেন, পরিবেশবিরোধী কথাবার্তা বলে তিনি অ্যামাজন জঙ্গলকে ধ্বংসের সবুজ সংকেত দিয়েছেন। জঙ্গল নিধনের বিষয়ে তিনি কার্যকর কোনো পদক্ষেপ নিতে ব্যর্থ হয়েছে। আগুনের ভয়াবহতা ও তার সরকারের গৃহীত পদক্ষেপ নিয়ে দেশে দেশে ক্ষোভ ও বিক্ষোভ হয়েছে।
 
ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রন গত সপ্তাহে এই অগ্নিকা-কে একটি আন্তর্জাতিক সঙ্কট বলে বর্ণনা করেছেন। আর জি-৭ শীর্ষ সম্মেলনে এ ইস্যুকে অগ্রাধিকারে নিয়ে এসেছেন। রোববার তিনি বলেছেন, যেসব দেশ এই অগ্নিকা-ে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তাদেরকে যতটা দ্রুত সম্ভব সহায়তা করতে সবাই একমত হয়েছেন। তার ভাষায়, আমাদের টিম অ্যামাজন অঞ্চলের সব দেশের সঙ্গে যোগাযোগ করছে, যাতে আমরা প্রযুক্তিগত ও আর্থিক সহযোগিতার ক্ষেত্রে দৃঢ় পদক্ষেপ চূড়ান্ত করতে পারি। এক্ষেত্রে বৃটেনের সহায়তার অংক ঘোষণা করেছেন বৃটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। তিনি বলেছেন, অ্যামাজন রেইনফরেস্ট রক্ষা করতে তার দেশ এক কোটি পাউন্ড দেবে।
 
বাইরের দেশ থেকে তীব্র চাপের মুখে গত শুক্রবার ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট বোলসোনারো আগুন নিয়ন্ত্রণে সেনাবাহিনী মোতায়েন করেছেন। এরপর সহায়তায় নেমেছে ৪৪ হাজার সেনা সদস্য। রোববার ব্রাজিলের কর্মকর্তারা বলেছেন, সাতটি রাজ্যে অগ্নিকা- বন্ধে সেনাবাহিনীকে কর্তৃত্ব দেয়া হয়েছে। এছাড়া আক্রান্ত এলাকায় যুদ্ধবিমান ব্যবহার করে পানি ছিটানো হচ্ছে। রোববার ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট এক টুইটে বলেছেন ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুর কাছ থেকে সহায়তার একটি প্রস্তাব গ্রহণ করেছেন তিনি।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর