× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, শুক্রবার

চন্দ্রযান-২ ব্যর্থ হওয়ার খবরে পাকিস্তানি নেতা-মন্ত্রীদের উল্লাস, ভর্ৎসনা

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, শনিবার, ৫:১২

ভারতের চন্দ্রযান-২ এর মিশন ব্যর্থ হয়েছে। চাঁদে অবতরণের আগের মুহূর্তেই এর সঙ্গে যোগযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। ভারতের জন্য এটি হতাশাজনক হলেও আনন্দে ফেটে পরেছে পাকিস্তান। দেশটির মন্ত্রীরা এটি নিয়ে ভারতকে উপহাস করতে ভুলেননি। কেউ কেউ ভারতের এই অভিযানকে পাগলামো বলে আখ্যায়িত করেছেন। কেউ কাশ্মীর নিয়ে একটু খোঁচা মারার চেষ্টাও করেছেন। তবে অনেক পাকিস্তানিই আবার নেতাদের এমন মশকরার সমালোচনা করেছেন।

চন্দ্রযান-২ ব্যর্থ হওয়ার পর পাকিস্তানের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী ফাওয়াদ চৌধুরি টুইটে লেখেন- প্রিয় ভারত, চাঁদে যান পাঠানোর মত পাগলামো না করে নিজেদের দারিদ্রতা নিয়ে চিন্তা করো। নইলে কাশ্মীর মিশনও চন্দ্রযানের মত ব্যর্থ হবে তবে তার মূল্য হবে অনেক বেশি। এর আগের এক টুইটে তিনি মিশন ব্যর্থ হওয়ার পর ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির প্রতিক্রিয়া নিয়েও রসিকতা করেন।

এদিকে ইমরান খানের দল পাকিস্তান তেহরিক ই ইনসাফের এক সিনেটর ফয়সাল জাভেদ খান লিখেছেন, ভারতের উচিৎ চাঁদে অভিযান না চালিয়ে নিজেদের শৌচাগার নিয়ে কাজ করা। কাশ্মীরের মত চাঁদে অভিযান চালিয়ে ভারত শুধু অর্থ অপচয়ই করছে। এসময় তিনি ভারত ব্যর্থ বলেও হ্যাশট্যাগ দেন। ভারতকে খোঁচা মেরেছেন পাকিস্তান আইএসপিআর এর ডিরেক্টর জেনারেল আসিফ গফুরও। তিনি তার টুইটে লিখেছেন, এই মিশন ব্যর্থ হওয়ার জন্য কাকে দায় দেবে ভারত? কাশ্মীরিদের নাকি হিন্দুত্ববাদ বিরোধীদের!

তবে পাকিস্তানি নেতাদের এমন মশকরায় নামার সমালোচনাও হচ্ছে দেশটিতে। বিবিসি সাংবাদিক ফারান রাফি টুইটারে লিখেছেন, কেউ একজন ফাওয়াদ চৌধুরির সাক্ষাৎকার নিন। তাকে জিজ্ঞেস করুণ পাকিস্তানের মহাকাশ গবেষণার কী অবস্থা! তিনি মহাকাশ বিজ্ঞান সম্পর্কে কী জানেন? তিনি আগে বলুক সফট ল্যান্ডিং অর্থ কী?
মুবাশির জাইদি নামের আরেক পাকিস্তানি সাংবাদিক টুইটারে লিখেছেন, অন্তত ভারত চেষ্টা করে যাচ্ছে। আমাদের মন্ত্রীদের এত খুশি হওয়ার কারণ বুঝতে পারছি না। পাকিস্তানতো কখনো চেষ্টাও করতে পারেনি! এছাড়া দেশটির স্বনামধন্য সাংবাদিকদের মধ্যে বেশ কয়েকজন পাক নেতাদের রীতিমত ভর্ৎসনা করেছেন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
মনির সাংবাদিক
৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, শনিবার, ১০:২৫

ভারত ঠিকই চন্দের দক্ষিন মেরুতে (যা কেউ আজও দক্ষিন মেরুতে অভিযানে যায় নাই ) বৈজ্ঞানিক পাঠিয়েছে ? দক্ষিন মেরুতো অন্ধ তাই বিশ্বের চাইছে মুখ বন্ধ রাখতে ভারত রহস্য এখানে ?

মোঃ শোয়েব আহমদ
৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, শনিবার, ৭:২২

অভিনন্দন ভারতকে। এতে হতাশ হওয়ার কিছু নেই। ভারত প্রতিটা কাজে চেষ্টা করে, আর চেষ্টাকারী ও পরিশ্রমী জাতিকে আল্লাহ পছন্দ করেন। এগিয়ে যাও ভারত ( দয়াকরে মুসলিম হত্যা বন্ধ করুন)

Nil
৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, শনিবার, ৫:৫১

Pakistaner biggan. Montiri toi ekta buster na hole ei okti korte parti. Tor certificate check kora dorkar. Na hole toi ekjon biggani hoe indiar paglamo bolte parti na. R gorib to to deshe o ase. Na hole middle east a gie ki kaj korto. Aami kono goribe ke hinsa kore boli nay. Toke dekhie dilam je toora o indiar moto gorib desh. Tor dese o gorib ase

Nil
৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, শনিবার, ৫:৪৫

Paikka khusi howar ki ase, toi r india ekdine sadhin holi, india koi delh r toi koghay dek. Ekhane hinsar ki ase ar ekbar sofol o hobe. Tokhon tou ki korbi. Tor moto kharap desh r ekta ase toi laden ke lookie rekhechili sei desh na. Tokhon ki india nesechilo.

অন্যান্য খবর