× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, শুক্রবার

প্রার্থীদের নিয়ে সিলেট চেম্বারে মতবিনিময়

এক্সক্লুসিভ

স্টাফ রিপোর্টার, সিলেট থেকে | ৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, সোমবার, ৭:৩৯

সিলেট চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির নির্বাচন বোর্ডের উদ্যোগে দ্বি-বার্ষিক নির্বাচনের প্রার্থীদের সঙ্গে সিলেট চেম্বারের প্রশাসক, নির্বাচন বোর্ড ও আপিল বোর্ডের এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। এ সভায় নির্বাচন বোর্ডের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট মো. নাসির উদ্দিন খান বলেন, নির্বাচনী তফসিল অনুযায়ী প্রার্থীর চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে। এ বছর ৪টি সদস্য ক্যাটাগরি থেকে ৪১ জন প্রার্থী পরিচালক পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। যার মধ্যে ২২ জন প্রার্থী পরিচালক হিসেবে নির্বাচিত হবেন এবং তাদের মধ্য থেকে পরবর্তীতে সভাপতি, সিনিয়র সহ-সভাপতি ও সহ-সভাপতি নির্বাচিত করা হবে। তিনি জানান, টাউন এসোসিয়েশন ক্যাটাগরিতে অন্য কোনো প্রার্থী না থাকায় শমশের জামালকে ওই ক্যাটাগরি থেকে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত পরিচালক হিসেবে প্রাথমিকভাবে ঘোষণা করা হয়েছে। সিলেট চেম্বারের প্রশাসক আসাদ উদ্দিন আহমদ বলেন, সিলেট চেম্বার অব কমার্স সিলেটের ব্যবসায়ীদের ঐতিহ্যবাহী সংগঠন। এ সংগঠনের কার্যক্রমের ধারাকে অব্যাহত রাখতে যোগ্য নেতৃত্ব নির্বাচন একান্ত জরুরি। সকল ভোটারদের অংশগ্রহণে একটি সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন আয়োজনে আমরা সাধ্যমতো কাজ করে যাচ্ছি। আপিল বোর্ডের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট এ কে এম শমিউল আলম বলেন, নির্বাচনকে সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ করতে আপিল বোর্ড সদা সচেষ্ট রয়েছে। প্রাথমিক ভোটার তালিকার বিরুদ্ধে উত্থাপিত আপিল থেকে শুরু করে মনোনয়নপত্র বাতিলের বিরুদ্ধে আপিল সহ সকল আপিল আমরা সর্বোচ্চ সতর্কতা ও সাবধানতা অবলম্বন করে নিষ্পত্তি করেছি। সভায় প্রার্থীরা বর্তমান প্রশাসক মহোদয়ের নেতৃত্বাধীন নির্বাচন বোর্ড ও আপিল বোর্ডের কাজের প্রতি পূর্ণ আস্থা ও সমর্থন প্রকাশ করে বলেন, বর্তমান নির্বাচন বোর্ডের অধীনে একটি সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে বলে আমরা আশাবাদী। এ ব্যাপারে তারা সার্বিক সহযোগিতার আশ্বাস প্রদান করেন। সভায় উপস্থিত ছিলেন নির্বাচন বোর্ডের সদস্য অ্যাডভোকেট সৈয়দ শামীম আহমদ, অ্যাডভোকেট মো. জুনেল আহমদ, আপিল বোর্ডের সদস্য অ্যাডভোকেট মো. রাজ উদ্দিন ও হারুন আল রশিদ দিপু। প্রার্থীগণের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন এহতেশামুল হক চৌধুরী, মো. সাহিদুর রহমান, ফালাহ উদ্দিন আলী আহমদ, মুশফিক জায়গীরদার, মো. আব্দুর রহমান (জামিল), খন্দকার ইসরার আহমদ রকি, মো. শফিকুল ইসলাম, শান্ত দেব, মো. আব্দুস সামাদ, খলিলুর রহমান চৌধুরী, ফখর-উস সালেহীন নাহিয়ান, আলীমুল এহছান চৌধুরী, আবু তাহের মো. শোয়েব, মো. মামুন কিবরিয়া সুমন, এনামুল কুদ্দুছ চৌধুরী, মুকির হোসেন চৌধুরী, হুমায়ুন আহমদ, মো. ফারুক আহমদ, মো. নজরুল ইসলাম, জুবায়ের রকিব চৌধুরী, আক্তার হোসেন খান, আব্দুল হাদী পাবেল, শহিদ আহমদ চৌধুরী, মোহাম্মদ আব্দুস সালাম, মো. এমদাদ হোসেন, পিন্টু চক্রবর্তী, চন্দন সাহা, মো. আতিক হোসেন, ইলিয়াছ উদ্দিন লিপু, কাজী মো. মোস্তাফিজুর রহমান, মো. আবুল কালাম, মনোরঞ্জন চক্রবর্তী সবুজ, মো. সিরাজুল ইসলাম, মো. মাহবুবুল হাফিজ চৌধুরী (মুসফিক), তাহমিন আহমদ, মো. আমিনুজ্জামান জোয়াহির, ওয়াহিদুজ্জামান চৌধুরী ও শমশের জামাল।


অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর