× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, বৃহস্পতিবার

মহাসড়কে টোল আদায়ের সিদ্ধান্তে অনড় সরকার: কাদের

অনলাইন

স্টাফ রিপোর্টার | ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, বুধবার, ৫:৪৭

মহাসড়কে টোল আদায়ের সিদ্ধান্তে সরকার অনড় রয়েছে বলে জানিয়েছেন পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, পৃথিবীর সব দেশেই সড়কে টোল আছে। চার লেন, ছয় লেন, আট লেনের সড়ক হবে, সড়ক যারা ব্যবহার করবে, সব দেশেই তাদের সড়কে টোল দিতে হয়। বাংলাদেশ কেন ব্যতিক্রম থাকবে?

আজ বুধবার সচিবালয়ে সাংবাদিকের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এসব কথা বলেন। ওবায়দুল কাদের বলেন, সড়কতো মেরামত করতে হয়, সংস্কার করতে হয়। বিভিন্নভাবে সড়ক ক্ষতিগ্রস্ত হয়, ওভারলোডের জন্য ক্ষতিগ্রস্ত হয়। সড়ক দেবে যায়, গর্ত সৃষ্টি হয়। এগুলোতো  মেরামত করার প্রয়োজন হয়। কোন গাড়ির কত টাকা টোল হবে, কোন রাস্তায় কত হবে, এই বিষয়গুলো একটা নিয়মের মধ্যে আনা হচ্ছে। এটা নিয়ে মন্ত্রণালয় কাজ করছে বলে জানান তিনি।

টোল বাড়ালে অর্থনীতির উপর বিরুপ প্রভাব পড়বে কী-না এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, আগে যে রাস্তায় আট ঘণ্টায় যেতেন, এখন সেই রাস্তায় সাড়ে তিন ঘণ্টায় যাচ্ছেন, ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক। কত সময় আপনি সাশ্রয় করতে পারছেন? কাজেই কেউ ক্ষতিগ্রস্ত হবে, এই রকম আশঙ্কা নেই। অন্য এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি জানান, চলমান নির্মিত পদ্মা সেতুর এখনও টোল আদায়ের সিদ্ধান্ত হয়নি।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
Mohammed Ali
১২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, বৃহস্পতিবার, ১০:১২

উন্নত বিশ্বের হাইওয়েতে টেক্স নেওয়া হয়। কিন্তু সেই মানের হাইওয়ে আমাদের দেশে নাই। ঢাকা চট্টগ্রাম রোড যেই শ্রেণির ঔ শ্রেণির রাস্তা হচ্ছে উন্নত বিশ্বের ৩য় কেটা গরীর। ওরা শুধু ১ম কেটাগরীর রাস্তা থেকে টোল নেয়। আর আমাদের দেশে ঔ শ্রেণির রাস্তা করতে হলে অনেক বিশাল invest এর দরকার যা আমাদের দ্বারা সম্ভব কিনা সন্দেহ আছে। আর টোল নিতে হলে বিকল্প রাস্তা অবশ্যই বানাইতে হবে, তারও কোন উদ্যোগ নাই। তবে গায়ের জোরে অনেক কিছুই করা যায়। যেমন ২০০৯ সালে আওয়ামীলিগ ক্ষমতায় আসার আগে কর্ণফুলী ৩য় সেতুর টোল ছিলো ২৫ টাকা। ক্ষমতায় এসে রাতারাতি টোল আদায় করী পরিবর্তন এবং নতুন দায়িত্ব মেয়র সাহেবের পারিবারিক এক প্রতিষ্ঠান পেয়ে যায়, আর ২৫ টাকা এক লাপে ১২৫ টাকা হয়ে যায়। অনেক প্রতিবাদের পরে ৭৫ টাকায় নেমে আসে। অথচ ঢাকা চট্টগ্রাম রোডে দাউদকান্দি এবং মেঘনা দুই সেতু মিলে নেওয়া হচ্ছে ৪০ টাকা।

Sayed Murrad
১১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, বুধবার, ৭:৫৮

তাহলে গাড়ির রোড ট্যাক্স কেন দিচ্ছি?

Siddique
১১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, বুধবার, ৫:১৩

Conditions of roads in Bangladesh is not same/safety with the other countries who are collecting tolls on highways...

অন্যান্য খবর