× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯, সোমবার

রোনালদোর ডিনারের নিমন্ত্রণে সাড়া দিলেন মেসি

খেলা

স্পোর্টস ডেস্ক | ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, শুক্রবার, ৮:৪০

বিষয়টি ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর কণ্ঠে ওঠে আসে পর্তুগিজ টেলিভিশনকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে। পরে উয়েফা বর্ষসেরার অনুষ্ঠানেও লিওনেল মেসির সঙ্গে ডিনার করার ইচ্ছার কথা জানান ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। রোনালদোর সেই নিমন্ত্রণে এবার সাড়া দিলেন মেসি। তাদের মাঠের লড়াই ফুটবলকে করেছে আরও আকর্ষণীয়। ব্যক্তিগত প্রতিদ্বন্দ্বিতা আগের সবকিছুকে ছাড়িয়ে গেছে। ২০০৯ সালে রোনালদো রিয়াল মাদ্রিদে যোগ দেয়ার পর গত বছরের আগপর্যন্ত একই স্প্যানিশ লা লিগায়  তাদের দ্বৈরথ ছিল জমজমাট। পর্তুগিজ অধিনায়ক জুভেন্টাসে চলে যাওয়ায় সেই উত্তেজনায় কিছুটা ভাটা পড়লেও ব্যক্তিগত পুরস্কারের লড়াইটা এখনও তার মেসির সঙ্গে। ব্যালন ডি’অর কিংবা ফিফা বর্ষসেরা- মেসি ও রোনালদো মঞ্চ ভাগাভাগি করেছেন একসঙ্গে। কিন্তু কখনও একসঙ্গে ডিনারে যাওয়া হয়নি তাদের। উয়েফার অনুষ্ঠানে রোনালদো বলেছিলেন, ‘অবশ্যই আমাদের সম্পর্ক ভালো। তবে আফসোসের বিষয় হলো, এখনও আমাদের একসঙ্গে ডিনার করা হয়নি। তবে ভবিষ্যতে আশা করি সেটা হবে।’
রোনালদোর আমন্ত্রণ গ্রহণ করেছেন মেসি। সম্পর্কটা বন্ধুত্বপূর্ণ না ?হলেও চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীর সঙ্গে ডিনারে যেতে আপত্তি নেই বার্সেলোনা অধিনায়কের। ডিনার প্রসঙ্গে স্প্যানিশ ক্রীড়া দৈনিক ‘স্পোর্ত’কে লিওনেল মেসি বলেছেন, ‘হ্যাঁ, আমার ডিনার করতে কোনও সমস্যা নেই। আমি সবসময় বলে এসেছি, কোনও বিষয় নিয়ে তার (রোনালদো) সঙ্গে আমার ঝামেলা নেই। হয়তো আমরা বন্ধু হতে পারিনি, কারণ কখনও একসঙ্গে ড্রেসিং রুম ভাগাভাগি করা হয়নি আমাদের। তবে অ্যাওয়ার্ড শোতে তার সঙ্গে আমার সবসময় দেখা হয়েছে।’ যদিও কখনও ডিনারের সুযোগ হবে কিনা, তা নিয়ে সংশয় আছে মেসির। কেন? মেসির ব্যাখ্যা, ‘সবশেষ অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানে লম্বা সময় পর আমাদের কথা হয়েছে। জানি না আমাদের একসঙ্গে ডিনার করা হবে কিনা, কোনও নির্দিষ্ট কারণে আমাদের পথ একসঙ্গে মিলবে কিনা, তাও জানি না। কেননা, প্রত্যেকে নিজের জীবন নিয়ে ব্যস্ত, প্রত্যেকের নিজস্ব প্রতিশ্রুতি আছে। তবে অবশ্যই আমি তার নিমন্ত্রণ গ্রহণ করবো ।’
এবারের ব্যালন ডি’অর পুরস্কারে তিনিই কি ফেভারিট? এমন প্রশ্নে মেসি বলেন, আমি জানি না। ব্যালন ডি’অর এমন পুরস্কার যেখানে কেউই জানে না কে ফেভারিট। সম্প্রতি ক্লাব ফুটবলের নৈপুণ্যটা বেশি বিবেচনায় নিচ্ছে তারা। এটা খারাপ নয়। কখনো কখনো বিশ্বকাপকে প্রাধান্য দেয়া হয়, এতে সব খেলোয়াড় হয়তো সমান মুল্যায়িত হয় না। আমি ফেভারিট কিনা- এমনটি কখনোই ভাবি না। আমি আগেও বলেছি, ব্যক্তিগত পুরস্কার আমার কাছে গৌণ বিষয়।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর