× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ১৪ অক্টোবর ২০১৯, সোমবার

দলকে জেতাতে পেরে তৃপ্ত আফিফ

খেলা

স্পোর্টস রিপোর্টার | ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯, রবিবার, ৮:৩১

জিম্বাবুয়ের দেয়া ১৪৫ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ৬০ রানে ৬ উইকেট নেই বাংলাদেশের। সেখান থেকে ৩ উইকেটে জিতলো টাইগাররা। গত শুক্রবার মিরপুরে ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচে বাংলাদেশের জয়ের নায়ক আফিফ হোসেন ধ্রুব। বাঁহাতি এই অলরাউন্ডারের ২৬ বলে ৫২ রানের ঝড়ো ইনিংসটিই ব্যবধান গড়ে দেয় ম্যাচে। গত বছরের ফেব্রুয়ারিতে ক্যারিয়ারের অভিষেক টি-টোয়েন্টিতে শূন্য রানে আউট হয়েছিলেন আফিফ। আর ১ বছর ৭ মাস পর দ্বিতীয় ম্যাচেই নায়ক! দলের জয়ে অবদান রাখতে পারায় তৃপ্ত আফিফ। ম্যাচ সেরা এই ক্রিকেটার বলেন, ‘নিজের ব্যাটিং নিয়ে অবশ্যই আমি সন্তুষ্ট। ম্যাচ জেতানোর মতো ইনিংস খেলতে পেরেছি।’ যদিও ম্যাচটা শেষ করে আসতে পারেননি।
বাংলাদেশ দল জয় থেকে ৩ রান দূরে থাকার সময় আউট হন আফিফ। তাই কিছুটা আক্ষেপ নিয়েই ১৯ বছর বয়সী এই ক্রিকেটার বলেন, ‘শেষ করে আসতে পারলে আরো ভালো লাগতো নিজের কাছে।’ ২৬ বলে ৫২ রানের ইনিংসে ৮টি বাউন্ডারি ও একটি ছক্কা হাঁকান আফিফ। নিজের ব্যাটিং পরিকল্পনা নিয়ে আফিফ বলেন, ‘ম্যাচের আগে সবাই আমাকে বলেছে আমার নিজের মতো করে খেলতে। আমি সেই অনুযায়ী খেলতে পেরেছি। আমি সব সময় আমার মতো করে খেলতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করি। আমাকে কেউ বাধা দেয়নি কখনোই। আমরা ম্যাচ জিতেছি, ড্রেসিং রুম অনেক উৎফুল্ল ছিল। সেই আনন্দটাই উদযাপন করেছি।’

তবে ব্যাট করতে করতে নিজের হাফসেঞ্চুরি উদাযাপনের কথাই ভুলে যান আফিফ। ১৭তম ওভারে টেন্ডাই চাতার বলে সিঙ্গেল নিলে হাফসেঞ্চুরি পূর্ণ হয় আফিফের। কিন্তু উদযাপন না করে পানি খেতে ছুটে গিয়েছিলেন। পরে আর উদযাপনই করেননি। আফিফ বলেন, ‘সত্যি বলতে খেয়াল করিনি। তখন আমার চিন্তা ছিল ম্যাচ শেষ করবো। চিন্তায় ছিল যে ম্যাচ শেষ করলে একটা উদযাপন করবো, করতে পারিনি। তার আগেই আউট হয়ে গেছি। তবে এমন একটা ইনিংস খেলে নিজের দেশকে জেতানোর আনন্দ অন্যরকম। যেটা আজকে পূরণ হলো।’

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর