× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ১৪ অক্টোবর ২০১৯, সোমবার

আফগান ভয় জয় করার মিশন

খেলা

স্পোর্টস রিপোর্টার | ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯, রবিবার, ৮:৩১

বাংলাদেশের বিপক্ষে নিজেদের ক্রিকেট ইতিহাসের তৃতীয় টেস্ট খেলতে নেমেছিল আফগানিস্তান। ১১৪ টেস্ট খেলা অভিজ্ঞ টাইগারদের উড়িয়ে জয় তুলে নেয় ২২৪ রানে। এমন হারের জন্য সাকিব আল হাসানের দলের ব্যাটিং সামর্থ্য নিয়ে উঠেছে প্রশ্ন! বিশেষ করে তাসের ঘরের মতো ভেঙে পড়েছে টপ অর্ডার। অধিনায়ক সাকিব তো স্বীকারই করেছেন ভয়ে কাবু হয়েছে তার দল। আজ ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ আফগানিস্তান। যারা ক্রিকেটের এই সংস্করণে আইসিসির র‌্যাঙ্কিংয়ে রয়েছে ৭ নম্বরে। যেখানে বাংলাদেশ পিছিয়ে তাদের চেয়ে তিন ধাপ। প্রথম ম্যাচে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে শেষ ওভারে জিতলেও সেখানেও টপ অর্ডার ছিল দারুণ ব্যর্থ।
মাত্র ৬০ রানে ৬ উইকেট হারানো দলকে জয় এনে দেয় তরুণ আফিফ হোসেনের ঝড়ো ফিফটি। তাই টি-টোয়েন্টিতেও টাইগারদের চিন্তার বড় কারণ হচ্ছে টপ অর্ডারের ব্যর্থতা। কেন এমন অবস্থা! দলের ব্যাটিং কোচ নিল ম্যাকেঞ্জি বলেছেন আসলে বাংলাদেশ দলের শত্রু তারা নিজেরাই। সেটি হলো নিজেরাই চাপ তৈরি করে ভেঙে পড়া। আর এই ভয়কে জয় করতে পারলেই আফগানিস্তানের বিপক্ষেও জয় পাওয়া সম্ভব বলে মনে করেন তিনি। ম্যাকেঞ্জি বলেন, ‘আমি মনে করি মাঝে মাঝে আমরাই আমাদের সব থেকে বাজে শত্রু হয়ে যাই। নিজেদের ওপর অনেক বেশি চাপ নিয়ে ফেলি। নিজেদের ওপর বিশ্বাস রাখাটা খুব জরুরি।’
অন্যদিকে এই অবস্থায় সবাইকে দলে পাশে থাকার আহবান জানিয়েছেন দক্ষিণ আফ্রিকার এই ব্যাটিং কোচ। ম্যাকেঞ্জি বলেন, ‘দলের সবাইকে সবার ওপর আস্থা রাখতে হবে, দর্শক এবং মিডিয়াকেও খেলোয়াড়দের ওপর এই বিশ্বাসটা রাখতে হবে। সময় দিতে হবে, তারা যন্ত্র না, মানুষ।’ অন্যদিকে বাংলাদেশ দল যতই খারাপ করুক দর্শকরা তাদের দিয়ে গেছে উজার করা সমর্থন। আফগানদের বিপক্ষে লজ্জার হারের পরও শুক্রবার মিরপুর শেরেবাংলা মাঠের গ্যালারি ছিল পরিপূর্ণ। বৃষ্টি মাথায় করেও তারা মাঠ ছেড়ে যায়নি। খেলা শুরু হয়েছিল নির্ধারিত সময় পেরিয়ে দুই ওভার কমিয়ে। ১৮ ওভারের ম্যাচে টসে জিতে জিম্বাবুয়েকে ব্যাটিংয়ে পাঠায় টাইগার অধিনায়ক। বোলারদের কল্যানে ১৪৫ রানেই বেঁধে ফেলে সফরাকরীদের। জবাব দিতে নেমে দুই ওপেনারও আত্মবিশ্বাসী শুরু এনে দিয়েছিলেন। কিন্তু ২৬ রানেই ভাঙে ওপেনিং জুটি। দলের স্কোর বোর্ডে ২৯ রান যোগ হতেই নেই চার উইকেট। হার যেন প্রায় নিশ্চিতই হয়ে যাচ্ছিল। দলীয় ৬০ রানে ৬ উইকেটের পতন হয়। সেথান থেকে তরুণ আফিফ ২৬ বলে খেলেন ৫২ রানের ইনিংস। অভিজ্ঞ মোসাদ্দেক তাকে দারুণ সঙ্গ দিয়ে করেন ২৬ বলে ৩০ রান। শেষ পর্যন্ত দুই বল বাকি থাকতে তুলে নেয় ৩ উইকেটের জয়।
এই জয়ে যেমন টাইগার শিবিরে ফিরেছে স্বস্তি তেমনি জয়ের বিশ্বাসও। বিশেষ করে ব্যাটিং কোচ জানিয়ে দিলেন দলের উপর তার বিশ্বাস ও আস্থার কথা। তিনি মনে করেন বাংলাদেশ চাইলে পারে যে কোনও দলকে হারাতে। তিনি বলেন, ‘আমি যদি ভাবতাম যে আমরা হেরে যাবো, তাহলে আমি এখানে থাকতাম না। আমি মনে করি দর্শকরাও এটা জেনে মাঠে আসতো না। ঘরের মাঠে বাংলাদেশের রেকর্ড অনেক ভালো। রেকর্ডের পাতায় চোখ দিলেই দেখতে পারবেন। যদি এটা না হতো তাহলে তো আমি এখানে কোচিং করাতাম না। আমার বিশ্বাস, আমাদের এখানে যেই খেলতে আসুক, আমরা তাদের হারাতে পারি, আর স্বাগতিক হিসেবে আমাদের জেতা উচিত। আমাদের সেই প্রতিভা আছে।’ অন্যদিকে আফগানদের বিপক্ষে বাংলাদেশের টি-টোয়েন্টি রেকর্ডটা একেবারেই খারাপ। এখন পর্যন্ত চারবারের দেখাতে টাইগারদের জয় মাত্র একটিতে। সেটিও ২০১৪তে এই মিরপুর মাঠেই। এরপর ২০১৮তে তিন বার মুখোমুখি হয়েছে দুই দল। সেখানে অফগানদের কাছে বরণ করে লজ্জার হার। আজ আফগানদের বিপক্ষে কেমন হবে বাংলাদেশ দল! স্পিন শক্তি নিয়েই কি লড়াই হবে নাকি বাড়ানো হবে পেসার? নাকি অপরিবর্তিত দল নিয়েই মাঠে নামবেন সাকিব আল হাসান! যতটুকু জানা গেছে একজন স্পিনার কমিয়ে বাড়ানো হতে পারে একজন পেসার। তবে সেই সিদ্ধান্ত হবে আজ উইকেট দেখার পরই। গতকাল অবশ্য বাংলাদেশ তাদের প্রস্তুতি সেরে নিয়েছে মিরপুর শেরে বাংলাতে।



অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর