× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ১৫ অক্টোবর ২০১৯, মঙ্গলবার

দুয়োর জবাবে দর্শনীয় গোল নেইমারের

খেলা

স্পোর্টস ডেস্ক | ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯, সোমবার, ৮:৩৫

গ্রীষ্মকালীন দলবদলে নেইমারের প্যারিস সেন্ট জার্মেই (পিএসজি) ছাড়ার খবরে মোটেও সন্তুষ্ট ছিল না ফরাসি ক্লাবটির সমর্থকরা। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমগুলোতে ব্রাজিলিয়ান তারকার ব্যাপক সমালোচনা করে তারা। শনিবার সেটি দেখা গেল গ্যালারিতেও। স্ট্রসবুর্গের বিপক্ষে পিএসজির হয়ে চলতি মৌসুমে প্রথমবার মাঠে নামেন নেইমার। আর প্রত্যাবর্তনের ম্যাচে ঘরের মাঠের দর্শকদের বিদ্রূপের শিকার হলেন তিনি। ফরাসি লীগ ওয়ানের এ ম্যাচে স্কোয়াড ঘোষণার সময় নেইমারের নাম বলার পর পিএসজি সমর্থকরা দুয়ো দিয়ে ওঠে। এরপর যতবার নেইমারের পায়ে বল গেছে, ততবারই তারা শিষ বাজিয়েছে। পুরো ৯০ মিনিট নেইমারকে দুয়ো দেয় পিএসজি ভক্তরা! গ্যালারিতে নেইমার বিরোধী কয়েকটি ব্যানারও দেখা গেছে।
একটি ব্যানারে নেইমারের বাবার উদ্দেশ্যে লেখা ছিল, ‘নেইমার সিনিয়র তোমার ছেলেকে ভিলা মিমোসায় বিক্রি করে দাও।’ ভিলা মিমোসা হলো ব্রাজিলের সবচেয়ে বড় পতিতালয়। আরেকটি ব্যানারে লেখা ছিল, ‘মেসির কাছে ফিরে যেতে ২০ মিলিয়ন (ইউরো) নিজের পকেট থেকে খরচ করতে চাওয়া বেশ্যার স্থান পিএসজিতে নেই।’
স্ট্রসবুর্গের বিপক্ষে কিলিয়ান এমবাপ্পে-এডিনসন কাভানিহীন পিএসজিকে অবশ্য শেষ পর্যন্ত জিতিয়েছেন নেইমারই। ম্যাচের যোগ করা সময়ে (৯০+২) আবদু দিয়ালোর ক্রস থেকে দর্শনীয় ওভারহেড কিকে গোলে পিএসজিকে পূর্ণ তিন পয়েন্ট এনে দেন তিনি। ঘরের মাঠের দর্শকের দুয়ো নেইমারের জন্য নতুন কিছু নয়। এর আগেও এমন অভিজ্ঞতা হয়েছিল তার। ম্যাচের পর ২৭ বছর বয়সী এই সুপারস্টার বলেন, ‘এসব আমার কাছে পুরনো ব্যাপার। যদিও দুঃখজনক, কিন্তু আমি জানি এখন থেকে আমার জন্য পিএসজির প্রতি ম্যাচই হবে অ্যাওয়ে ম্যাচের মতো।’
দলবদল মৌসুমে ঘটে যাওয়া ঘটনা ভুলে সামনে এগোতে চান নেইমার। তিনি বলেন, ‘সবাই জানে আমি বার্সেলোনায় যেতে চেয়েছিলাম। ওসব আর বিশদ বর্ণনা করতে চাই না। এখন সময় পৃষ্ঠা উল্টানোর। এখন আমি পিএসজির খেলোয়াড়। তাদের জেতাতে মাঠে আমি সবটুকু উজার করে দিতে চাই।’
২০১৭ সালে রেকর্ড ২২২ মিলিয়ন ইউরোতে নেইমারকে দলে ভেড়ায় পিএসজি। তবে চোটের কারণে গত দুই মৌসুমের অধিকাংশ সময় সাইড লাইনে ছিলেন এই ব্রাজিলিয়ান তারকা। প্রথম মৌসুমে ২৮ ম্যাচে ৩০ গোল করেছিলেন নেইমার। গত মৌসুমে পিএসজির হয়ে সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে ১৮ ম্যাচ মিস করেন তিনি। এর মধ্যে ছিল চ্যাম্পিয়ন্স লীগের শেষ ষোলোর দুই লেগ। যেটিতে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের কাছে নাটকীয়ভাবে হেরে ছিটকে যায় পিএসজি। এরপর গত জুনে ব্রাজিলের হয়ে কাতারের বিপক্ষে প্রীতি ম্যাচ খেলতে গিয়ে আবার চোটে পড়েন নেইমার। ওই চোট তাকে ছিটকে দিয়েছিল কোপা আমেরিকা টুর্নামেন্ট থেকেও।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর