× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ১৪ অক্টোবর ২০১৯, সোমবার

শোভন-রাব্বানীকে নিয়ে যা ছিল গোয়েন্দা রিপোর্টে

এক্সক্লুসিভ

বিশেষ প্রতিনিধি | ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯, সোমবার, ৮:৫৩

আগস্টের প্রথম সপ্তাহে ছাত্রলীগের সদ্য পদত্যাগী সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন এবং সাধারণ সম্পাদক গোলাম রব্বানীকে নিয়ে একটি গোয়েন্দা প্রতিবেদন হাতে পান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সংশ্লিষ্ট শাখা প্রতিবেদনটি প্রধানমন্ত্রীর কাছে পাঠান। প্রতিবেদনের মাধ্যমে আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ছাত্রলীগের কক্ষে মাদকদ্রব্যের সন্ধান, বিতর্কিত ব্যক্তিদের কেন্দ্রীয় কমিটিতে জায়গা দেয়া, অনৈতিক আর্থিক লেনদেন, সম্মেলনের এক বছর পরও একাধিক শাখায় কমিটি দিতে না পারা, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে উন্নয়ন প্রকল্পের কাজে চাঁদা দাবি, নীতি লঙ্ঘন করে বিমানবন্দরের রানওয়েতে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের অযাচিত অনুপ্রবেশ, সিনিয়র নেতাদের অসম্মান করা, দেরিতে ঘুম থেকে ওঠা, মধুর ক্যান্টিনে নিয়মিত না যাওয়া এবং সাংবাদিকদের অসম্মান করাসহ ছাত্রলীগের দুই শীর্ষ নেতার বিভিন্ন কর্মকাণ্ড সর্ম্পকে জানতে পারেন প্রধানমন্ত্রী। এসব বিষয় যাচাই করতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী অবাক হন। ছাত্রলীগ দেখভাল করার দায়িত্ব পালনকারী নেতাদের সামনে ক্ষোভ প্রকাশ করেন। এরপর কাকতালীয়ভাবে আওয়ামী লীগের সিনিয়র নেতাদের অসম্মান এবং জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসির বাস ভবনে চাঁদা চাইতে যাওয়ার বিষয়টি সরাসরি জানতে পারেন। গোয়েন্দা প্রতিবেদনে এ দুইটি বিষয় থাকায় প্রধানমন্ত্রীর কিছু বুঝতে বাকি থাকে না। প্রধানমন্ত্রীর কাছে পাঠানো গোয়েন্দা প্রতিবেদনে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়ন কাজ থেকে চাঁদা দাবি করার বিষয়টি উঠে আসে।
তবে কত টাকা ও কিভাবে চাঁদা দাবি করা হয়েছে এ বিষয়ে গোয়েন্দা রিপোর্টে কিছু বলা নেই। গোয়েন্দা রিপোর্ট পাওয়ার সপ্তাহ খানেক পর সরাসরি প্রধানমন্ত্রীর কাছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি অধ্যাপক ফারজানা ইসলাম ছাত্রলীগ নেতাদের বিরুদ্ধে নালিশ দেন। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করে ভিসি জানান, প্রায় ৮৬ কোটি টাকা চাঁদা দাবি করে ভিসির বাসায় গেছেন ছাত্রলীগের পদত্যাগী সভাপতি ও সম্পাদক। এরপরই চরমভাবে ক্ষুব্ধ হন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এদিকে নেপথ্যের এমন ঘটনা চলার মধ্যে গত ৭ই সেপ্টেম্বর ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের উচ্চ পর্যায়ের বৈঠকে ছাত্রলীগের কর্মকাণ্ড নিয়ে সিনিয়র নেতারা নানা অভিযোগ তোলেন। কারণ ছাত্রলীগের অনুষ্ঠানে অতিথি করেও আওয়ামী লীগের সিনিয়র নেতা তোফায়েল আহমেদ, ডা. দীপু মনি ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের সঙ্গে অসৌজন্যমূলক আচরণ করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর কাছে সরাসরি অভিযোগ করেন এসব নেতা। এরপর ১০ই সেপ্টেম্বর গণভবনে প্রবেশের জন্য দেয়া বিশেষ পাস বাতিল করা হয়। বিশেষ পাস বাতিলের পরও কয়েক দফা প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাতের চেষ্টা চালান তারা। কিন্তু সফল হননি। সর্বশেষ গত শনিবার ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে পদত্যাগ করতে বলা হয়। এর ভিত্তিতে পদত্যাগ করেছেন তারা।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
আশরাফ
১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, বুধবার, ৩:১৩

শিক্ষা প্রতিষ্টানের উন্নয়নের জন্য প্রকল্প্র বরাদ্দ করা হইছে সেখানে ছাত্রলীগের চাদা কিসের, তাহলে তারা কি চাদালীগ? এরকম চাদা প্রত্যেকটা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ছাত্রলীগ নিচ্ছে কিন্তু কেন? সরকার কি ছাত্রলীগ কমিটি গঠন করে দিছে চাদা তোলার জন্য, এসব কমর্কান্ডর জন্য সরকার আজ প্রশ্নের মুখে?

সাইফুল সেরনীয়াবত
১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, মঙ্গলবার, ১১:৪১

বঙ্গবন্ধুর প্রানের সংগঠন আওয়ামী লীগের কিছু অর্থ লিপ্সু নেতারা বিএনপি ও জামাতের লোকদের আওয়ামী লীগে যোগদান করাচ্ছে,এরাই এক সময়ে সোভন ও রব্বানির চেয়ে ও ভয়ংকর ক্ষতি করবে। তাই প্রধান মন্ত্রী মহোদয় এর কাছে এ বিষয়টা একটু দেখার অনুরোধ করছি।

Subhasish
১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, মঙ্গলবার, ৯:১৪

এতসব অন্যায় করার পর কঠিন শাস্তি অবশ্যই হওয়া উচিৎ।

Mahbubul
১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, মঙ্গলবার, ৯:০১

আরো কঠোর শাস্তি হওয়া দরকার ছিল

Doha Abdullah
১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, মঙ্গলবার, ২:২৮

ব্যবস্থা নেয়ার প্রক্রিয়া ও এর বাস্তবায়ন একটি সুন্দর উদ্যোগ। এতে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে সহায়ক হলো। আওয়ামীলীগ নেতৃকে অসংখ্য ধন্যবাদ।

কে এম হারুনুর রশীদ
১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, মঙ্গলবার, ১১:৩১

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, আপনার কাছে বিনীত অনুরোধ ঢাকা সিটিতে অন্য দলথেকে আওয়ামী লীগে এসে এখন আওয়ামীলীগের বিভিন্ন কমিটিতে অবস্থান করছে এদেরকে দল থেকে বহিষ্কার করুন, নতুবা এরাই দলের ক্ষতি করবে।

মুজিব
১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, মঙ্গলবার, ৮:৩৮

নেএী সাহসে৷ জন্য আমরা গর্বিত।সব আাগাছা ছাপ করুন দয়া করে।আমরা আপনার সাথে আছি।

Reza
১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, মঙ্গলবার, ৬:২৫

IT IS HAPPENING ALMOST EVERYWHERE ,

Liton
১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯, সোমবার, ১০:৪৭

তারা যে দুর্নীতিবাজ তাতে কোন সন্দেহ নাই তাছারা বর্আতমানে ওয়ামিলীগ এর প্রতিটা সেক্টরে একই অবস্থা কথায় আছেনা যে সর্বা অংগে ব্যাথা মলম লাগাবে কোথায়

Hossain
১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯, সোমবার, ৯:১৯

চট্টগ্রামের বায়েজিদ থানাধীন পাহাড়িকা হাউজিং সোসাইটির [বাংলাদেশ কোওপারেটিভ হাউজিং সোসাইটি লিঃ] ৩০ টি প্লটে সীমানা দেয়াল নির্মাণে বাধা দিচ্ছে স্হানীয় কাউন্সিলর, দেয়াল নির্মাণের বিনিময়ে প্রতি প্লটের মালিকের কাছ হতে ২৫ লক্ষ টাকা দাবী করছে। বিচারের ভার আল্লাহর উপর ছেড়ে দিলাম

হাসান
১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯, রবিবার, ১১:৫৪

আমাদের সব ফসিল জমি জোর করে সরকারি দলের নেতাগণ বসুন্ধরার হয়ে মাটি ভরাট করছে, তার কোন গোয়েন্দা রিপোর্ট কি প্রধানমন্ত্রীর কাছে যায় না? জমি না কিনেও ফসলীজমি কিভাবে ভরাট করা যায়? ফসল করতে না পারলে রূপগঞ্জের পূর্বাচলের দাউদপুর ইউনিয়নের জনগন কি খেয়ে বাঁচবে?

কি মতামত দিব কার কাছ
১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯, রবিবার, ৭:৪৫

উপরে লিখলাম।

অন্যান্য খবর