× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ২৩ অক্টোবর ২০১৯, বুধবার

পোষ্যদের জন্য ১০% কোটা চায় কারা অধিদপ্তর

দেশ বিদেশ

বিশেষ প্রতিনিধি | ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, মঙ্গলবার, ৮:৫৭

কর্মরত, অবসরপ্রাপ্ত ও মৃত কর্মকর্তা-কর্মচারিদের পোষ্যদের জন্য ১০% কোটা সংরক্ষণ চায় কারা অধিদপ্তর। এজন্য গত ১৪ই সেপ্টেম্বর একটি প্রস্তাব সুরক্ষা সেবা বিভাগের সচিবের কাছে পাঠিয়েছে তারা। প্রস্তাবে বাংলাদেশ জেলে সরাসরি জনবল নিয়োগে কর্মরত, অবসরপ্রাপ্ত ও মৃত কারা কর্মকর্তা বা কর্মচারিদের পোষ্যদের জন্য ১০% কোটা সংরক্ষণের কথা বলা হয়েছে। এতে বলা হয়, দেশের বিভিন্ন সরকারি দপ্তরে সরাসরি জনবল নিয়োগের ক্ষেত্রে তাঁদের সন্তানদের জন্য ১০% পোষ্য কোটা বিদ্যমান রয়েছে। এরপরও বাংলাদেশ জেলে কর্মরত, অবসরপ্রাপ্ত ও মৃত কারা কর্মকর্তা বা কর্মচারীদের পোষ্যদের জন্য কোন পোষ্য কোটা সংরক্ষণ করা হয় না। প্রস্তাবে বলা হয়েছে, বর্তমানে বাংলাদেশ জেলে ১২ হাজার একশ’ ৭৮ জন কর্মকর্তা ও কর্মচারী রয়েছেন। কারাগার বাংলাদেশ সরকারের একটি স্পর্শকাতর প্রতিষ্ঠান হওয়ায় অর্পিত দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে কারা কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা তাদের সন্তানদের লেখাপড়ার যথাযথ তদারকি করতে পারেন না।
আবার অনেক কর্মকর্তা ও কর্মচারিকে আকস্মিক দূর্ঘটনা বা শারিরীক অক্ষমতা জনিত কারনে চাকরি থেকে অবসর গ্রহণ করতে হয়।
ফলে, আকস্মিক দূর্ঘটনাসহ অবসর গ্রহণের পর তাদেরকে খুবই অসহায় অবস্থায় জীবন যাপন করতে হয়। এতে বলা হয়েছে, কারা কর্মকর্তা ও কর্মচারিদের সন্তান চাকরির প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েও অনেক ক্ষেত্রে মেধা তালিকার শীর্ষে অবস্থান করতে না পারায় তারা চাকরি পায় না। পোষ্য কোটা বিদ্যমান থাকলে অসহায় পরিবারের সন্তানকে ওই কোটায় চাকরি দিয়ে তাঁদের পরিবারে ভরণ-পোষণ নিশ্চিত করা সম্ভব। এজন্য কর্মরত, অবসরপ্রাপ্ত ও মৃত কারা কর্মকর্তা বা কর্মচারিদের পোষ্যদের চাকরি পাওয়ার সুবিধার্থে ১০% পোষ্য কোটা সংরক্ষণ করা আবশ্যক। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা সচিবের কাছে ১০% পোষ্য কোটা সংরক্ষণের অনুরোধ জানানো হয়েছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর