× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার মন ভালো করা খবরসাউথ এশিয়ান গেমস- ২০১৯
ঢাকা, ১২ ডিসেম্বর ২০১৯, বৃহস্পতিবার
সাক্ষাতকারে তালেবান মধ্যস্থতাকারী

ট্রাম্পের জন্য তালেবানদের আলোচনার দরজা খোলা

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, বুধবার, ১০:০৩

প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প তালেবানদের সঙ্গে শান্তি আলোচনাকে ‘মৃত’ ঘোষণা করলেও তালেবানরা বলেছে ট্রাম্পের জন্য তাদের দরজা খোলা। ভবিষ্যতে যেকোনো সময় তিনি শান্তি সংলাপ শুরু করতে পারেন। আফগানিস্তানে শান্তি প্রতিষ্ঠার একমাত্র পথ হলো সমঝোতা। বিবিসিকে দেয়া এক্সক্লুসিভ সাক্ষাৎকারে এসব কথা বলেছেন তালেবানদের প্রধান মধ্যস্থতাকারী শের মোহাম্মদ আব্বাস স্টানিকজাই। এ মাসের শুরুতে গত ৮ই আগস্ট যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে তালেবান নেতারা ও আফগানিস্তানের প্রেসিডেন্ট আশরাফ গণির সাক্ষাত হওয়ার কথা ছিল যুক্তরাষ্ট্রের মেরিল্যান্ডের ক্যাম্প ডেভিডে। আশা করা হয়েছিল, ওই বৈঠকের মধ্য দিয়ে আফগানিস্তানের ১৮ বছরের যুদ্ধের একটি সমাপ্তি ঘটবে। কিন্তু ৬ই সেপ্টেম্বর রাজধানী কাবুলে হামলা চালিয়ে বসে তালেবানরা। এতে যুক্তরাষ্ট্রের এক সেনা সদস্য ও অন্য ১১ জন নিহত হন।
এতে ক্ষিপ্ত হন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। তিনি শেষ মুহূর্তে তালেবানদের সঙ্গে ওই শান্তি আলোচনা বাতিল করে দেন। জবাবে তালেবানরা হুঁশিয়ারি দেয়। তারা জানিয়ে দেয়, এর ফলে আরো মার্কিনির প্রাণ ঝরবে আফগানিস্তানে।

মঙ্গলবার যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও তালেবানদের সাম্প্রতিক হামলাগুলোর কঠোর নিন্দা জানিয়ে একটি বিবৃতি দেন। এতে তিনি বলেন, তালেবানদেরকে অবশ্যই শান্তি প্রতিষ্ঠার খাঁটি মনোভাব দেখাতে হবে। তবে যুক্তরাষ্ট্রের উদ্বেগের বিষয়টি প্রত্যাখ্যান করেছেন তালেবানদের মধ্যস্থতাকারী স্টানিকজাই। তিনি বিবিসিকে বলেছেন, কোনো ভুল করেনি তালেবানরা। তার সাক্ষাতকার নেন বিবিসির আন্তর্জাতিক বিষয়ক প্রধান প্রতিবেদক লিসি ডসেট। তাকে স্টানিকজাই বলেছেন, মার্কিনিদের হিসাব অনুযায়ী তারা হাজার হাজার তালেবানকে হত্যা করেছে। ইত্যবসরে যদি একজন মার্কিন সেনা নিহত হন, তাহলে তাদের এমন প্রতিক্রিয়া দেখানো উচিত নয়। কারণ, উভয় পক্ষের মধ্যে এখনও কোনো অস্ত্রবিরতি চুক্তি নেই। আমাদের তরফ থেকে সমঝোতার দরজা খোলা। তাই আমরা আশা করছি অন্য পক্ষ সমঝোতার বিষয়ে তাদের সিদ্ধান্ত নিয়ে নতুন করে ভাববে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর