× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ২০ অক্টোবর ২০১৯, রবিবার

বশেমুরবিপ্রবি’র ভিসির পদত্যাগ দাবি ভিপি নুরের

শিক্ষাঙ্গন

বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার | ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, শনিবার, ৮:৪৫

গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবি) ভিসি খোন্দকার নাসির উদ্দিনের পদত্যাগ দাবি করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) ভিপি নুরুল হক। আজ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যের সামনে এক বিক্ষোভ সমাবেশে এ দাবি করেন তিনি। বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ এ কর্মসূচির আযোজন করে।

বশেমুরবিপ্রবিতে চলমান আন্দোলনে সংহতি ও শিক্ষার্থীদের ওপর সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে এ কর্মসূচির আয়োজন করা হয়। এরআগে সেখান থেকে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করে সংগঠনটি। মিছিলে ডাকসুর সামাজসেবা সম্পাদক আকতার হোসেন, বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের আহ্বায়ক হাসান আল মামুন, যুগ্ম আহ্বায়ক ফারুক হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

ডাকসু ভিপি নুরুল হক বলেন, রাজনৈতিক দলদাস ও অনুগত ব্যক্তিদের দিয়ে পরিচালনার মাধ্যমে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়সহ দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোকে ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে নিয়ে আসা হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের যেকোনো যৌক্তিক আন্দোলনে প্রশাসন ছাত্রলীগের মাস্তান বাহিনী দিয়ে হামলা চালায়। প্রতিটি বিশ্ববিদ্যালয়েই আমরা এই চিত্র দেখেছি। একই চিত্র দেখতে পাচ্ছি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের পুণ্যভূমি গোপালগঞ্জে।
সেখানকার বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য শিক্ষার্থীদের বাছুর বলে মন্তব্য করেন।

ভিপি আরো বলেন,  গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা যাতে ক্যাম্পাসে না আসতে পারেন, তার জন্য একটি সাঁকো পর্যন্ত ভেঙে দেয়া হয়েছে এবং ভাড়াটে মাস্তান দিয়ে শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা করা হয়েছে। গোপালগঞ্জের প্রশাসনকে বলতে চাই, বঙ্গবন্ধুর পুণ্যভূমিকে যে ভিসি কলঙ্কিত করলেন, আপনারা তাঁর ও তাঁর প্রশাসনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিন। এমন অপদার্থ একজন উপাচার্য গোপালগঞ্জের মাটিতে থাকতে পারেন না। শিক্ষার্থীদের যৌক্তিক আন্দোলনে ষড়যন্ত্র খোঁজা হলে তার ফল ভালো হবে না।

এসময় প্রধানমন্ত্রীর উপপ্রেস সচিব আশরাফুল আলম খোকনের সমালোচনা করে নুর করেন, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের ওই কর্মকর্তা শিক্ষার্থীদের যৌক্তিক আন্দোলনকে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পোস্টের মাধ্যমে ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করতে চান। বিক্ষোভে হাসান আল মামুন বলেন, বশেমুরবিপ্রবির ভিসি খোন্দকার নাসিরের পদত্যাগের দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সঙ্গে সংহতি জানাতে আমরা প্রয়োজনে গোপালগঞ্জে যাব। আমরা তাঁকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করছি।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
মাসুম
২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, শনিবার, ১১:০৫

আজকাল ভিসি হিসাবে যাদের নিয়োগ দেয়া তাদের মান মর্যাদাবোধ এতো কম যে , তারা দলবাজী ও তৈল মর্দনের মাধ্যমে পাওয়া পদ এতো সহজে ছাড়বেন না ।

অন্যান্য খবর