× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ২০ অক্টোবর ২০১৯, রবিবার

সম্রাট অসুস্থ, হাসপাতালে

অনলাইন

অনলাইন ডেস্ক | ৮ অক্টোবর ২০১৯, মঙ্গলবার, ৯:২৫

র‌্যাবের ভ্রাম্যমান আদালতে ৬ মাসের সাজাপ্রাপ্ত ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের বহিষ্কৃত সভাপতি ক্যাসিনো সম্রাট খ্যাত ইসমাইল হোসেন চৌধুরী সম্রাট গুরুত্বর অসুস্থ। ‘বুকে ব্যাথা’ অনুভব করায় তাকে হাসপাতালে নেয়া হয়েছে।

আজ সকাল সাড়ে ৭টায় প্রথমে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নেয়া হয়। ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের সর্বপ্রধান কারারক্ষী মুজাহিদুল ইসলাম সম্রাটকে ঢামেকের জরুরি বিভাগে নিয়ে আসেন।

এরপর ঢামেক চিকিৎসকদের পরামর্শে সম্রাটকে জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউটে নিয়ে যাওয়া হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের ডেপুটি জেলার মো. জাহিদ।

জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালের এক চিকিৎসক বলেন, ‘বুকে ব্যাথা’ থাকায় সম্রাটকে হৃদরোগ ইনস্টিটিউটে আনা হলে ডা. মহসীন আহমেদের অধীনে তাকে ভর্তি রেখে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

তিনি আরও জানান, সম্রাটকে হৃদরোগ ইনস্টিটিউটের করোনারি কেয়ার ইউনিটের (সিসিইউ-১) ৭ নম্বর বেডে রাখা হয়েছে।

আজ মঙ্গলবার সকাল ১০টায় চিকিৎসক ও সম্রাটের আইনজীবীরা তার শারীরিক অবস্থা নিয়ে ব্রিফিং করবেন বলে জানা গেছে।

ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সাংগঠনিক সম্পাদক মাকসুদুর রহমান জানিয়েছেন, সম্রাটের অবস্থা খুবই খারাপ।

উল্লেখ্য, রোববার ভোর ৫টার দিকে কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামের আলকরা ইউনিয়নের কুঞ্জুশ্রীপুর গ্রাম  থেকে সম্রাটকে গ্রেপ্তার করা হয়। এ সময় তার সহযোগী আরমানকেও গ্রেপ্তার করে র‌্যাব। পরে ওইদিনই তাদেরকে যুবলীগ থেকে বহিষ্কার করা হয়।।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
ওমর ফারুক
৮ অক্টোবর ২০১৯, মঙ্গলবার, ৮:৩২

নাটক শুরু। হাসপাতাল ই হবে জেলখানা। মানে জামাই আদরে কাটাবেন।

নূর মোহাম্মদ
৮ অক্টোবর ২০১৯, মঙ্গলবার, ৪:৩৯

ভাই রোগ শোক, বালা মুসিবত, বিপদাপদ। কারো বলেকয়ে আসেনা যেকোনো সময় যেকারো হতেই পারে।আপনি আমি কেউই তার আওতার বাইরে নই। তবে উনারা মানে পুষাকিরা লালদলানে গেলেই কথিত অসুস্থ হয়ে যান। এমন অসুই হন যে তার এলাজ ওখানে থাকে না। দ্রুত কোন পাঁচ তারকা গোছের হাসপাতালে স্থানান্তর করতে হয়। বাছ্ রোগ ব্যারাম, শেষ । আরাম শুরু যতদিন না সাজাশেষ। দেহে যাইহোক কাগজে রূগীসেজে গুজরান করছেন। দিনের পর দিন , মাসের পর মাস , বছরের পর বছর। শুনাগেছে , এক প্রায়াত পাতি নেতাকে অনেক বার যেতে হয়েছিল জালাল দালানে। কিন্তু দুচার দিনের বেশি থাকতে হয়নি সেখানে । মাসের পর বছর কাটিয়ে ছেন হাসপাতালের কেবিনে। কোর্টে হাজিরা দিতে যেতেন হুইলচেয়ারে।টুপাইসের বিনিময়ে এ সবই নাকি সম্ভব সেখানে।

আজিজ
৮ অক্টোবর ২০১৯, মঙ্গলবার, ১২:০৬

কৌশলে তাকে নিরাপদে নেয়া হলো আর কি! আমরা সাধারন পাবলিক বুঝলাম কাঁচ কলা।

Raju
৮ অক্টোবর ২০১৯, মঙ্গলবার, ১২:৪৫

green signal পেয়েই সম্ভবত ধরা দিয়াছেন,জামাই আদর শুরু....

Saber ahmed
৭ অক্টোবর ২০১৯, সোমবার, ১০:০৮

শুরু হলো জামাই আদর

Kazi
৭ অক্টোবর ২০১৯, সোমবার, ৯:২৩

মারা তো যায় নি । এটা নাটক।

অন্যান্য খবর