× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ২০ অক্টোবর ২০১৯, রবিবার

আখাউড়ায় ১৬ জুয়াড়ি আটক

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার, ব্রাহ্মণবাড়িয়া থেকে | ১১ অক্টোবর ২০১৯, শুক্রবার, ৭:৩১

১৬ জুয়াড়িকে আটক করেছে আখাউড়া থানা পুলিশ। উদ্ধার করা হয়েছে নগদ প্রায় ২৫ হাজার টাকা ও ২০ বান্ডিল তাস। দৈনিক মানবজমিনে ‘আখাউড়ায় নির্ভয়ে চলে জুয়া’- শিরোনামে একটি সংবাদ প্রকাশের পরদিন বুধবার রাতে আখাউড়া থানা পুলিশ লাল হোসেন ইনস্টিটিউট নামে পরিচিত আখাউড়া রেলওয়ে ক্লাবে অভিযান চালায়। এ সময় জুয়া খেলায় মগ্ন ওইসব জুয়াড়িদের আটক করা হয়। আটক জুয়াড়িদের বেশিরভাগ কোড্ডা গ্রামের এবং তারা আখাউড়া শহরের এক প্রভাবশালী জনপ্রতিনিধির আত্মীয়-স্বজন। আটক জুয়াড়িরা হচ্ছে- বিজয়নগরের বিষ্ণপুরের মো. আব্দুর রহমান (৪০), হবিগঞ্জ আজমিরীগঞ্জের রসুলপুরের রহিজ উদ্দিন (৪০), আখাউড়া দেবগ্রামের শেখ কাজল (৩৫), সদর উপজেলার কোড্ডা গ্রামের মো. হুমায়ুন কবির (৪৫), বাবুল মিয়া (৫০), জাহাঙ্গীর খলিফা (৫০), আয়ুব মিয়া (৫৫), সুশেন খলিফা (৫০), চান্দি গ্রামের সফিকুল ইসলাম (৫৫), শ্যামনগরের নির্মল দাস (৩২), সজিব দাস (৩০), খলিলুর রহমান (৫০), ফেনীর দাগনভূঞার মাছিমপুরের শাহ আলম (৫০), আখাউড়া কুমারপাড়া কলোনির কাউছার আলী (৫০), অরুন চন্দ্র দাস (৪২) ও রেলওয়ে কলোনির নজরুল ইসলাম (৫৭)। আখাউড়া থানার ওসি রসুল আহমেদ নিজামী জানান, জুয়াড়িদের গ্রেপ্তার করা ছাড়াও জুয়ার বোর্ড থেকে নগদ ২৪ হাজার ৪১০ টাকা ও ২০ বান্ডিল তাস উদ্ধার করা হয়। জুয়া আইনে নিয়মিত মামলা করে গ্রেপ্তার জুয়াড়িদের জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে বলে জানান তিনি।
রেলওয়ে ক্লাব আখাউড়া রেলওয়ে থানার কয়েক গজ দূরত্বের মধ্যে। কিন্তু রহস্যজনক কারণে এ ব্যাপারে নীরব ছিল আখাউড়া রেল পুলিশ।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর