× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ২০ অক্টোবর ২০১৯, রবিবার

সেতুর অভাবে মীরসরাইয়ে ২০ হাজার মানুষের ভোগান্তি

বাংলারজমিন

আনোয়ারুল হক নিজামী, মীরসরাই (চট্টগ্রাম) থেকে | ১১ অক্টোবর ২০১৯, শুক্রবার, ৭:৩৮

মীরসরাই উপজেলায় একটি সেতু বদলে দিতে পারে কয়েক হাজার মানুষের ভাগ্য। মায়ানী, মঘাদিয়া ও সাহেরখালীর মোহনায় এই সাঁকোর উপর দিয়েই সাহেরখালী পয়েন্ট থেকে লাখ লাখ টাকার মৎস্য, কাঁকড়া, উপকূলীয় বন থেকে আহরিত জ্বালানি ও নানা খাদ্যদ্রব্য প্রতিদিন ১৩ নং মায়ানী, ১৪ নং হাইতকান্দি ও ১৬ নং সাহেরখালী ইউনিয়নসহ মীরসরাইয়ের বিভিন্ন স্থানে যায়। সকলেই অনেক দুর্ভোগের মধ্যদিয়ে পাড়ি দেয় এই সাঁকো। এলাকাবাসীর দীর্ঘকালের দাবি এই খালের উপর ব্রিজ নির্মাণ করার। উপজেলার ১৩ নং মায়ানী ইউনিয়নের আনন্দ বাজার সংলগ্ন সাহেরখালী স্লুইস গেটে যাওয়ার একমাত্র খালে তিন যুগেরও বেশি সময় ধরে হাজার হাজার মানুষের ভাগ্যের অন্তরায় হয়ে দাঁড়িয়েছে। নির্বাচন এলে জনপ্রতিনিধিরা আশ্বাস দিলেও নির্বাচনের পরে কেউ আর খবর নেন না উন্নয়নবঞ্চিত চরাঞ্চলবাসীর। উপজেলার মায়ানী, মঘাদিয়া ও সাহেরখালী ইউনিয়নের সংযুক্ত এ খালের পাশের তিনটি ইউনিয়নের প্রায় ২০ হাজার মানুষ প্রতিনিয়ত ভোগান্তির শিকার হচ্ছে। মাত্র একটি ব্রিজ বদলে দিতে পারে এই অঞ্চলের ২০ হাজার মানুষের ভাগ্যের চাকা।
এলাকার স্থায়ী বাসিন্দা দিনবন্ধু জলদাস জানান, এই সাঁকো দিয়ে দৈনিক ৪-৫ হাজার মানুষ চলাচল করে। জলদাসের তিন গ্রামের একটি নামকরা স্লুইস গেট সাহেরখালী। এই ঘাটে দৈনিক হাজার হাজার টাকার মাছ বিক্রি হয়। একটি সেতু নির্মিত হলে এখানে বসবাসরত মানুষের ভাগ্যের আমূল পরিবর্তন ঘটবে।

সাঁকো দিয়ে নিয়মিত যাতায়াতকারী হারুন অর রশিদ জানান, সাঁকোটির দুই পারের মানুষকে ঝুঁকির মধ্যে পারাপার হতে হয়। বর্ষাকালে সবচেয়ে বেশি কষ্ট হয়। বর্তমানে সাঁকোটি একেবারে চলাচলের অনুপযোগী হয়ে গেছে। সেতু নির্মাণ হলে চরাঞ্চলের মানুষের পড়ালেখার মান আরো বৃদ্ধি পাবে। এ বিষয়ে ১৩ নং মায়ানী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান কবির আহম্মদ নিজামী বলেন- সাহেরখালী খালের উপর বাঁশের সাঁকোর পরিবর্তে এলাকাবাসীর প্রাণের দাবি দ্রুত সেতু নির্মাণের। তিনি আরো বলেন, বর্তমানে সেতুটির নাজুক অবস্থা। আমি ইউপি সদস্য ও জলদাস সর্দারকে দায়িত্ব দিয়েছি বর্তমানে সাঁকোটি মেরামত করে চলাচলের উপযোগী করার জন্য। সাঁকোটি টেন্ডারের প্রক্রিয়াধীন আছে। আমরা আশা করছি, খুব শিগগিরই এর বাস্তবায়ন হবে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর