× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ঢাকা সিটি নির্বাচন- ২০২০ষোলো আনা মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ১৯ জানুয়ারি ২০২০, রবিবার

‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’ নানজিবা তোরসা

বিনোদন

স্টাফ রিপোর্টার | ১৩ অক্টোবর ২০১৯, রবিবার, ৭:৪৪
প্রথম ও দ্বিতীয় রানার আপের মাঝে তোরসা

এবারের ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’ হয়েছেন রাফাহ নানজিবা তোরসা। সে সূত্রে চলতি বছরের মিস ওয়ার্ল্ড প্রতিযোগিতার মূল আসরে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করবেন তিনি। গত ১১ই অক্টোবর রাতে সোনারগাঁও হোটেলে ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ ২০১৯’-এর গ্র্যান্ড ফিনালে অনুষ্ঠিত হয়। জমকালো এই আয়োজনে বিজয়ী হিসেবে রাফাহ নানজিবা তোরসার নাম ঘোষণা করা হয়। অনুষ্ঠানের দুই উপস্থাপক দেবাশীষ বিশ্বাস ও শ্রাবণ্য তৌহিদার কণ্ঠে নিজের নাম শুনে উচ্ছ্বাসে ফেটে পড়েন এ সুন্দরী। তার মাথায় মুকুট পরিয়ে দেন গতবারের ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’ জান্নাতুল ফেরদৌস ঐশী।। এবারে প্রথম রানার আপ হয়েছেন ফাতিহা মায়াবী। দ্বিতীয় রানার আপ হয়েছেন জান্নাতুল ফেরদৌস মেঘলা।
‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’ নির্বাচিত হয়ে নিজের অনুভূতি ব্যক্ত করতে গিয়ে রাফাহ নানজিবা তোরসা বলেন, ‘আমি  আসলে ভাষা হারিয়ে ফেলেছি। অনেক পরিশ্রম করেছি নিজেকে সেরা হিসেবে দেখবো বলে। আমার আত্মবিশ্বাস ছিল। সবার কাছে দোয়া চাই, আমি যেন দেশের মুখ উজ্জ্বল করতে পারি।’ আয়োজকরা জানিয়েছেন, আগামী ডিসেম্বরে লন্ডনে অনুষ্ঠিত হবে বিশ্বসুন্দরী প্রতিযোগিতা। সেখানে বাংলাদেশের হয়ে অংশ নেবেন রাফাহ নানজিবা তোরসা। এদিকে গ্র্যান্ড ফিনালেতে উপস্থিত ছিলেন আয়োজক প্রতিষ্ঠান অমিকন এন্টারটেইনমেন্টের চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার মেহেদী হাসান, আয়োজক সহযোগী প্রতিষ্ঠান এক্সপার্ট প্রোভাইডারের ম্যানেজিং ডিরেক্টর অপু খন্দকার, এক্সপোজার ট্যালেন্ট এজেন্সির সিইও সজীব রশীদ, আয়োজনের ব্রডকাস্টিং পার্টনার এটিএন বাংলার চেয়ারম্যান ড. মাহফুজুর রহমান ও বিভিন্ন অঙ্গনের তারকারা। গত ৫ই সেপ্টেম্বর আনুষ্ঠানিক ঘোষণার মাধ্যমে যাত্রা শুরু করে নতুন মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ নির্বাচনের এই আয়োজনটি। অমিকন এন্টারটেইনমেন্টে সঙ্গে এটির সহযোগী আয়োজক হিসেবে ছিল এক্সপার্ট ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট। এ বছরের ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’ অডিশনের জন্য ৩৭ হাজার ২ শত ৪৩ জন সুন্দরী নিবন্ধন করেন। সেখান থেকে অডিশনের জন্য ডাক পান ৩০০ জন। তাদের বিচারক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন দেবাশীষ বিশ্বাস, লুনা, সুমনা সোমা, রফিকুল ইসলাম। সেখান থেকে যাচাই-বাছাই শেষে ৩৫ জন সুন্দরী নিয়ে শুরু হয় প্রতিযোগিতার মূল আয়োজন। সৌন্দর্য, শিক্ষা, বুদ্ধিমত্তাসহ আরো কিছু যোগ্যতার ওপর ভিত্তি করে বাছাই করা হয় সেরা ১২ জন সুন্দরী। সেখান থেকে টপ সিক্স হিসেবে বাছাই করা হয় সুমাইয়া সানজিন শান্তা, জান্নাতুল ফেরদৌস মেঘলা, রাফাহ নানজিবা তোরসা, প্রিয়ন্তী উর্বী, ফাতিহা মাহামি ও নিশা চৌধুরীকে। সেখান থেকে ফাইনাল রাউন্ডে সেরা তিনে পৌঁছান রাফাহ নানজিবা  তোরসা, জান্নাতুল ফেরদৌস মেঘলা এবং ফাতিহা মায়াবী। এই তিনজনের মধ্যে চ্যাম্পিয়ন হন রাফাহ নানজিবা তোরসা। এখানে প্রধান তিন বিচারক ছিলেন চিত্রনায়িকা মৌসুমী, চিত্রনায়ক ফেরদৌস ও সৌন্দর্য বিশেষজ্ঞ ফারনাজ আলম।  প্রসঙ্গত, এর আগে ২০১৭ সালে মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশের মুকুট পরেন জেসিয়া ইসলাম ও ২০১৮ সালে বিজয়ী হন জান্নাতুল ফেরদৌস ঐশী।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর