× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার মন ভালো করা খবরসাউথ এশিয়ান গেমস- ২০১৯
ঢাকা, ৮ ডিসেম্বর ২০১৯, রবিবার

নৌকা দেখলেই গা জ্বলে এমপি পঙ্কজের : উপজেলা চেয়ারম্যান মুনসুর

অনলাইন

স্টাফ রিপোর্টার | ১৩ অক্টোবর ২০১৯, রবিবার, ১০:৫৯

নৌকা প্রতীক দেখলেই বরিশাল-৪ আসনের সংসদ সদস্য পঙ্কজ নাথের গা জ্বলে বলে অভিযোগ করেছেন মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে নৌকার প্রার্থী ও বর্তমান চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট মুনসুর আহম্মেদ। আজ রোববার দুপুরে বরিশাল রিপোর্টার্স ইউনিটিতে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব অভিযোগ করেন। অ্যাডভোকেট মুনসুর আহম্মেদ বলেন, ‘নৌকা প্রতীক দেখলেই গা জ্বলে বরিশাল-৪ আসনের সংসদ সদস্য পঙ্কজ নাথের। তিনি সব সময় নৌকার প্রার্থীর বিরুদ্ধে পাল্টা প্রার্থী দাঁড় করান। নৌকার বিরোধীতাই যেন তার কাজ।’ এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট তালুকদার মো. ইউনুস। অভিযোগ করে উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থী বলেন, ‘নৌকার পক্ষের লোকজনরা এমপি পঙ্কজের ভয়ে মেহেন্দিগঞ্জ যাচ্ছে না। আমার নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সদস্যরাও এখন আমার সঙ্গে থাকছে না। নৌকার সমর্থন করলেও তারা মারধর ও হামলার ভয়ে মাঠে নামছে না।
প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রী আমাকে মনোনয়ন প্রদান করলেও তাতে খুশি হতে পারেনি এমপি পঙ্কজ। এরই পরিপ্রেক্ষিতে তিনি মাহফুজুল আলম লিটন, মশিউর রহমান পলাশ ও কেএম রফিকুল ইসলামকে চেয়ারম্যান পদে দাঁড়াতে পরামর্শ দেন এবং এই তিনজনই মনোনয়ন পত্র দাখিল করেন।’ মুনসুর আহম্মেদ বলেন, ‘মনোনয়ন জমা দেওয়ার দিন থেকেই এমপি পঙ্কজ আমার বিরোধীতা শুরু করেন। আমার এক সমর্থকের চায়ের দোকানে তালা মেরে দেওয়া হয়, আমি যে মোটরসাইকেলে উঠেছি সেই মোটরসাইকেলের ড্রাইভার এবং স্পিড বোটের ড্রাইভারদের অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করা হয়। এমপি পঙ্কজের নির্দেশে সহযোগী সংগঠনের কোনো নেতাকর্মীই নির্বাচনী প্রচারণায় নামে নাই। তিনি প্রকাশ্যে আমাকে সমর্থন করলেও গোপনে চরম বিরোধীতা করেন। এ ছাড়া উপজেলা ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা এমপি পঙ্কজের নির্দেশে নির্বাচনী প্রচারণায় নেমে পড়ে মাহফুজুল আলম লিটনের ঘোড়া মার্কার পক্ষে লিফলেট বিতরণ করেন। নির্বাচনে কেউ পোলিং এজেন্ট হওয়ার সাহস পাচ্ছে না।’ সংবাদ সম্মেলনে এক প্রশ্নের জবাবে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক তালুকদার মো. ইউনুস বলেন, ‘এমপি পঙ্কজ দেবনাথ জেলা আওয়ামী লীগের কোনো নির্দেশনা মানেন না। তিনি আওয়ামী লীগের পদ পদবিতে না থাকার কারণে যা খুশি তাই করে থাকেন।’ তবে অভিযোগ অস্বীকার করে এমপি পঙ্কজ নাথ বলেন, ‘এই অভিযোগগুলো ভিত্তিহীন। আমার বিরুদ্ধে ধারাবাহিক ষড়যন্ত্রের একটি অংশ এটি। সকল নেতাকর্মী নৌকার পক্ষে কাজ করছে এবং নৌকার জয় হবে।’ আগামীকাল সোমবার মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
মোস্তফা কামাল চিশতী
১৩ অক্টোবর ২০১৯, রবিবার, ১০:৩৪

একটি সহযোগী সংগঠনের শীর্ষ পর্যায়ের নেতা হয়ে এবং নিজেও নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচিত হয়ে বারবার দলীয় প্রার্থীর বিরোধিতা করা সংগঠন বিরোধী কাজ বলে মনে করি। দলীয় শৃঙ্খলা ভংগের অভিযোগে পঙ্কজ দেবনাথের বিরুদ্ধে ব্যবস্হা নেয়া জরুরী বলে মনে করি।

অন্যান্য খবর