× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ঢাকা সিটি নির্বাচন- ২০২০ষোলো আনা মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ২৪ জানুয়ারি ২০২০, শুক্রবার

রাজনগরে মামলা দিয়ে ব্যবসায়ীকে হয়রানির অভিযোগ

বাংলারজমিন

রাজনগর (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি | ১৫ অক্টোবর ২০১৯, মঙ্গলবার, ৭:৫২

রাজনগরে রাস্তার জায়গা নিয়ে বিরোধের জেরে ভূমি দখল, গাছ কাটা ও গাছ চুরির মামলা দিয়ে ব্যবসায়ীকে হয়রানির অভিযোগ পাওয়া গেছে। মামলার পর সামাজিক সম্মানহানী ও নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছেন উল্লেখ করে সোমবার দুপুরে রাজনগর প্রেস ক্লাবে এই সংবাদ সম্মেলন করেন উপজেলার মুন্সিবাজার ইউনিয়নের বাঙ্গালী গ্রামের আব্দুল বারীর ছেলে সেলিম আহমদ। লিখিত বক্তব্যে জানা যায়, ২০০৫ সালে উপজেলার বাঙ্গালী গ্রামে তার পৈত্রিক বাড়ির সীমানা প্রাচীর নির্মাণের সময় পার্শ্ববর্তী বাড়ির আব্দুল খালিকের সাথে আলাপ করে পশ্চিম পাশে রাস্তা করার জন্য কিছু জায়গা রেখে সীমানা প্রাচীর নির্মাণ করেন। সম্প্রতি ওই রাস্তার জায়গা নিয়ে উভয় পক্ষের মধ্যে বিরোধ দেখা দেয়। আব্দুল খালিক ও তার ছেলে আবুল কালাম আজাদ ওই রাস্তায় চলাচলের প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে বেড়া দেন বলে অভিযোগ করেন সেলিম আহমদ। আব্দুল খালিকের চাচাতো ভাই আনিছ মিয়া গত ৫ই সেপ্টেম্বর মারা যান। ওইদিন সেলিম আহমদ তার জানাযার নামাজে অংশগ্রহণ করেন ও বক্তব্য দেন। সেলিম আহমদ বলেন, অথচ ওইদিন বিরোধপূর্ণ জায়গার দখল, গাছ কাটা ও গাছ চুরির অভিযোগ এনে ৯ই সেপ্টেম্বর তিনি ও তার কয়েকজন আত্মীয়-স্বজনকে আসামী করে মৌলভীবাজার চীপ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে মামলা করেন আব্দুল খালিকের ছেলে আবুল কালাম আজাদ।
ওই মামলা দায়েরের ২ দিন পর বিরোধপূর্ণ রাস্তায় চলাচল ও ব্যবহারের উপর নিষেধাজ্ঞা চেয়ে মৌলভীবাজার অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে আরো একটি মামলা করেন আব্দুল খালিক। সেলিম আহমদ আরো বলেন, ওই মামলায় ঘটনার যে সময় উল্লেখ করা হয়েছে সেই সময় আমি সকাল ৯টা থেকে ৫টা পর্যন্ত বাংলাদেশ ফার্মাসি কাউন্সিল আয়োজিত একটি কর্মশালায় উপস্থিত ছিলেন। তিনি বলেন, আমার পরিবার ও স্বজনদের বিরুদ্ধে পরপর দুটি মিথ্যা মামলা দিয়ে আমাদের সামাজিক মর্যাদাহানি করছেন আব্দুল খালিক ও তার পরিবারের সদস্যরা। এঘটনায় আমরা নিরাপত্তাহীনতায় ভূগছি। এসময় সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন, শাহ উস্তার উদ্দিন আহমেদ, ডা. জাকির হোসেন মুন্না প্রমুখ।



 

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর