× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ঢাকা সিটি নির্বাচন- ২০২০ষোলো আনা মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ২৪ জানুয়ারি ২০২০, শুক্রবার

বহিরাগতদের নিয়ে মিছিলের অভিযোগ মিশা-জায়েদের, যা বললেন মৌসুমী

বিনোদন

স্টাফ রিপোর্টার | ১৭ অক্টোবর ২০১৯, বৃহস্পতিবার, ১২:০৬

আগামী ২৫ শে অক্টোবর বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচন। এই নির্বাচনকে ঘিরে সম্প্রতি বিএফডিসিতে খল অভিনেতা ড্যানিরাজের কাছে শিল্পী সমিতি চত্বরে অপমানিত হয়েছেন চলচ্চিত্রের প্রিয়দর্শিনীখ্যাত মৌসুমী। এই নায়িকার সঙ্গে তর্কে জড়ান তিনি। একপর্যায়ে মৌসুমীকে তিনি ধাক্কা মারেন বলে অভিযোগ ওঠে। নির্বাচন কমিশনার ইলিয়াস কাঞ্চনের হস্তক্ষেপের মাধ্যমে সমস্যার সমাধান হয়। পরে মৌসুমীর কাছে ক্ষমা চেয়ে নিয়েছেন ড্যানিরাজ। বিষয়টি চলচ্চিত্রের কেউ স্বাভাবিকভাবে মেনে নেননি। এদিকে মঙ্গলবার মৌসুমী এফডিসিতে বহিরাগতদের নিয়ে নির্বাচনী মিছিল করেছেন বলে অভিযোগ তুলেছেন মিশা সওদাগর ও জায়েদ খান।
এই অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে মিশা-জায়েদ প্যানেল গতকাল সন্ধ্যায় এফডিসিতে শিল্পী সমিতিতে এক জরুরি সংবাদ সম্মেলন করেন। সেখানে মিশা সওদাগর ও জায়েদ খান চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচন কমিশনারের কাছে নির্বাচনের মধ্যে এফডিসিতে বহিরাগতদের প্রবেশ নিষিদ্ধ করার দাবি জানান। মিশা সওদাগর নির্বাচন কমিশনারের উদ্দেশ্যে বলেন, ভবিষ্যতে যেন এ রকম বিব্রতকর অবস্থার পুনরাবৃত্তি না হয় তার জন্য আমি এবং আমার কার্যকরী পরিষদ অতীতের ন্যায় ভবিষ্যতেও সদাসজাগ থাকতে বদ্ধপরিকর। আমি এবং আমার কার্যকরী পরিষদের সবার পক্ষ থেকে আপনার প্রতি অনুররোধ করছি, নির্বাচন কর্মকান্ডের শেষ পর্যন্ত বহিরাগতদের বিএফডিসিতে প্রবেশ নিষিদ্ধ করে একটি সুষ্ঠু, অবাধ, উৎসবমুখর নির্বাচন অনুষ্ঠান উপহার দেবেন। বহিরাগতদের প্রসঙ্গে  চিত্রনায়িকা মৌসুমী বলেন, আমার সঙ্গে নির্বাচনী প্রচারণায় যারা অংশ নিয়েছেন তারা সকলেই চলচ্চিত্রের শিল্পী। তারা এক সময় অনেক চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন। তাদের মধ্যে অনেককে অন্যায়ভাবে শিল্পী সমিতির সদস্যপদ থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে। তাদেরকে এফডিসিতে ঢুকতে দেওয়া হবে না বলেও শাসানো হয়েছে। এটা কেনো ? তাদের ভোটের অধিকার কেড়ে নেওয়া হয়েছে। তারা আমাকে আজ সাপোর্ট করছে। এটা কি তাদের অন্যায়? তারাও তো শিল্পী। তারা আমার সঙ্গে অনেক সিনেমায় কাজ করেছেন। তারা তো বহিরাগত কেউ না। প্রধান নির্বাচন কমিশনার ইলিয়াস কাঞ্চন বলেন, সহযোগি সদস্য বা চলচ্চিত্রের অভিনয়শিল্পীরা এফডিসিতে এই কয়েকদিন অবশ্যই আসতে পারবেন। এটা নিয়ে কোনো সমস্যা নেই। তবে শুধু নির্বাচনের দিন শিল্পী সমিতির সদস্য বা ভোটার ছাড়া অন্য কোনো অভিনয়শিল্পী প্রবেশ করতে পারবেন না। ভোটের দিনে শৃঙ্খলা রক্ষার জন্য এটা করা হবে। আর রাত ১০টার মধ্যে এফডিসিতে নির্বাচনী প্রচারণা শেষ করতে হবে। রাত ১০টার পর নির্বাচনী প্রচারণা নিয়ে এফডিসিতে কোনো মিছিল করা যাবে না।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর