× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ঢাকা সিটি নির্বাচন- ২০২০ষোলো আনা মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ২৪ জানুয়ারি ২০২০, শুক্রবার

রাজ্জাক-আল আমিনের বোলিংয়ে জয়ের পথে খুলনা

খেলা

স্পোর্টস রিপোর্টার | ২০ অক্টোবর ২০১৯, রবিবার, ৯:১০

জাতীয় ক্রিকেট লীগের (এনসিএল) দ্বিতীয় রাউন্ডে টিয়ার-১ এর ম্যাচে রাজশাহী বিভাগের বিপক্ষে জয়ের পথে খুলনা বিভাগ। গতকাল শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামে আবদুর রাজ্জাক ও আল আমিন হোসেনের দুর্দান্ত বোলিংয়ে দ্বিতীয় ইনিংসে মাত্র ১৭০ রানে গুটিয়ে যায় রাজশাহী। তাতে খুলনার সামনে জয়ের জন্য ১২৩ রানের লক্ষ্য দাঁড়ায়। যেটি তাড়া করতে নেমে ১৫/১ তুলে তৃতীয় দিন শেষ করে আবদুর রাজ্জাকের দল। আজ শেষ দিনে জয়ের জন্য ১০৮ রান প্রয়োজন খুলনার। হাতে আছে ৯ উইকেট। ইমরুল কায়েস ১১ ও সৌম্য সরকার শূন্য রান নিয়ে পুনরায় ব্যাটিংয়ে নামবেন। খুলনার চেয়ে ৪৮ রানে পিছিয়ে থেকে দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করা রাজশাহী মোস্তাফিজুর রহমান ও আল আমিনের তোপে পড়ে ২৮ রানে ৩ উইকেট হারায়।
নাজমুল হোসেন শান্তর ৫৭ ও মুশফিকুর রহীমের ৪৪ রানের ইনিংসের পরও রাজশাহী ১৭০ রানের বেশি তুলতে পারেনি। ৯ ওভারে ১৭ রানে ৪ উইকেট নেন ডানহাতি পেসার আল আমিন। অধিনায়ক রাজ্জাকও সমান ৪ উইকেট নেন। ৮ ওভারে ১৮ রান দিয়ে মোস্তাফিজের শিকার ২ উইকেট। প্রথম ইনিংসেও ২ উইকেট নিয়েছিলেন মোস্তাফিজ।
এর আগে প্রথম ইনিংসে রাজশাহীর ২৬১ রানের জবাবে ২২৭/৬ তুলে দ্বিতীয় দিন শেষ করেছিল খুলনা। উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান নুরুল হাসান সোহানের কল্যাণে ৩০৯ রান তুলে থামে স্বাগতিকরা। ১২৭ বলে ৯৭ রান করে অপরাজিত থাকেন সোহান। ১০ বাউন্ডারি ও ৪ ছক্কায় ইনিংসটি সাজান তিনি। রাজশাহীর পক্ষে সর্বোচ্চ ৩ উইকেট নেন ডানহাতি পেসার শফিউল ইসলাম। তাইজুল ইসলাম ও সানজামুল ইসলাম নেন ২টি করে উইকেট।
লিটন-নাঈমের সেঞ্চুরিতে রংপুরের জবাব
চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে ঢাকা বিভাগকে জবাবটা ভালোই দিচ্ছে রংপুর বিভাগ। তৃতীয় দিন শেষে রংপুরের সংগ্রহ ৩৩৪/৫। ঢাকার চেয়ে রংপুর ২২২ রানে পিছিয়ে থাকলেও হাতে  মাত্র একদিন থাকায় এ টেস্ট ড্রয়ের পথেই এগোচ্ছে। গতকাল তৃতীয় দিনে রংপুরের হয়ে সেঞ্চুরি তুলে নেন ওপেনার লিটন কুমার দাস। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে এটি লিটনের ১৪তম শতক। ১৮৯ বলে ১৪ বাউন্ডারিতে ১২২ রানের ইনিংস উপহার দেন জাতীয় দলের এই ওপেনার। লিটনের পর দৃশ্যপটে নাঈম ইসলাম। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে ২৭তম সেঞ্চুরি তুলে অভিজ্ঞ এই অলরাউন্ডার ১২৪ রানে অপরাজিত আছেন। তার সঙ্গী তানবীর হায়দার অপরাজিত আছেন ৫২ রানে। ঢাকা বিভাগের হয়ে ২টি করে উইকেট নেন সুমন খান ও সালাউদ্দিন শাকিল। এর আগে সাইফ হাসানের ২২০ রানের সুবাদে ৫৫৬/৮ তুলে ইনিংস ঘোষণা করে ঢাকা বিভাগ।
সেঞ্চুরির দোরগোড়ায় মাহমুদুল্লাহ
বগুড়ায় শহীদ চান্দু স্টেডিয়ামে টিয়ার-২ এর ম্যাচে সিলেট বিভাগের বিপক্ষে ঢাকা মেট্রোকে টানছেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। সিলেটের চেয়ে ৭৩ রানে পিছিয়ে দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করা ঢাকা মেট্রো  ৭৪ রানে ৪ উইকেট হারিয়ে ফেলে। মাহমুদুল্লাহর ব্যাটে ভর করে সেখান থেকে দিন শেষে তাদের সংগ্রহ ২২৫/৬। পাঁচে ব্যাট করতে নেমে ৯৫ রানে অপরাজিত আছেন জাতীয় দলের অভিজ্ঞ এই অলরাউন্ডার। ১৯৪ বলের ইনিংসে মাত্র ৪টি আর একটি ছক্কা মেরেছেন রিয়াদ। তাতে দ্বিতীয় ইনিংসে ১৫২ রানের লিড নিয়েছে ঢাকা মেট্রো।
ফতুল্লায় ব্যর্থ আশরাফুল-মোসাদ্দেক
ফতুল্লায় টিয়ার-২ এর অপর ম্যাচে বরিশাল বিভাগের বিপক্ষে প্রথম ইনিংসে ৪ উইকেট নেন অফস্পিনার নাঈম হাসান। তাতে চট্টগ্রাম বিভাগের ৩৫৬ রানের জবাবে ২১৬ রানে গুটিয়ে যায় বরিশাল। দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিং নেমে ৫০/১ তুলে দিন শেষ করে চট্টগ্রাম। লিড দাঁড়িয়েছে ১৯০ রান। পিনাক ঘোষ ৩০ ও মমিনুল হক ৯ রানে অপরাজিত থাকেন। ১০৪/৪ নিয়ে তৃতীয় দিন শুরু করেছিল তারা। আশরাফুল ও মোসাদ্দেক উভয়েই ৪ রান নিয়ে গতকাল ব্যাটিংয়ে নামেন। আশরাফুল আউট হন ২১ করে। মোসাদ্দেক নামের পাশে কোনো রান যোগ না করেই ফেরেন। আট নম্বরে ব্যাটিংয়ে নেমে ৬০ রান করে নুরুজ্জামান।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর