× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার মন ভালো করা খবরসাউথ এশিয়ান গেমস- ২০১৯
ঢাকা, ৬ ডিসেম্বর ২০১৯, শুক্রবার

১৪ জনের দলেই ছিলেন না রিশাদ

খেলা

স্পোর্টস রিপোর্টার | ২১ অক্টোবর ২০১৯, সোমবার, ৮:৩৯

জাতীয় ক্রিকেট লীগে রংপুর বিভাগ দলে  খেলানো হয়নি কোনো  লেগ স্পিনার। বাংলাদেশ ক্রিকেট  বোর্ডের (বিসিবি) কড়া নির্দেশ ছিল দলে একজন লেগ স্পিনার  খেলাতেই হবে। কিন্তু   কোচ মাসুদ পারভেজ রাজন এই নির্দেশ মানেননি। তাই তাকে বরখাস্ত করা হয়। শুধুু তাই নয় তাকে কারণ দর্শানোর নোটিশও দেয়া হয়েছে বিসিবির পক্ষ  থেকে। অথচ জানা  গেছে দ্বিতীয় রাউন্ডে ১৪ জনের দলেই ছিল না  লেগ স্পিনার রিশাদ  হোসেনের নাম। চলতি জাতীয় ক্রিকেট লীগে (এনসিএল) দলের ১৪ জনের তালিকা করে দেন জাতীয় দলের নির্বাচকরা। কিন্তু নির্বাচকদের করে দেয়া তালিকাতে রিশাদের নাম না থাকায় কোচও তাকে খেলাননি।
গতকাল মিরপুর শেরেবাংলা  স্টেডিয়ামে বিসিবির কার্যালয়ে এসেছিলেন  কোচ রাজন। লিখিতভাবে জবাব দিয়েছেন কারণ দর্শনোর নোটিশের। দৈনিক মানবজমিনকে রাজন বলেন, ‘আসরে নিদের্শটা  মৌখিক ছিল। আমি ছাড়াও একাদশ সাজাতে ভূমিকা রাখেন অধিনায়কও। দলের সিনিয়র ক্রিকেটার, এমনকি ম্যানেজারের সঙ্গেও আলাপ করা হয়। আমি যে একা সিদ্ধান্ত নিতে পারি তা কিন্তু নয়। তবে সবচেয়ে বড় কথা হলো এবার ১৪ জনের তালিকা করে  দেন নির্বাচকরা।  যেহেতু রিশাদ মাত্র শ্রীলঙ্কা সফর থেকে এসেছে, নির্বাচকদের কাছে আমাদের প্রস্তাব ছিল তাকে তৃতীয় রাউন্ড থেকে খেলানোর। তাই ওকে আমরা দ্বিতীয় রাউন্ডে একাদশে রাখিনি। আমি আমার বক্তব্য লিখিতভাবেই জমা দিয়েছি।’
কেন রিশাদ ১৪ জনের দলে ছিল না? এই বিষয়ে জাতীয় দলের প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু বলেন, ‘আসলে আমি তখন মাত্র শ্রীলঙ্কা  থেকে ‘এ’ দলের সফর  শেষ করে দেশে ফিরেছি তাই দল নিয়ে  তেমন কিছু বলতে পারছি না। তবে আমি রংপুরের সিনিয়র ক্রিকেটার নাঈম ইসলামকে বলেছিলাম রিশাদকে খেলানোর কথা। ওরা পরে যে তালিকা করেছিল সেটি আমাকে আর পাঠায়নি। আমরা তালিকা করেছি ঠিক না।’ অন্যদিকে জানা  গেছে তখন আরেক নির্বাচক হাবিবুল বাশার সুমন দল নির্বাচনে ভূমিকা  রেখেছিলেন। রংপুর বিভাগের একটি সূত্রে জানা গেছে হাবিবুল বাশারকে বলা হয়েছিল রিশাদ যেহেতু শ্রীলঙ্কা সফর থেকে ফিরেছে তখন তাকে দ্বিতীয় রাউন্ডে বিশ্রাম দিয়ে তৃতীয় রাউন্ড  থেকে  খেলানোর কথা। তবে বাশার এ বিষয়ে বলেন, ‘আসলে আমরাতো সব সময় দলে লেগ স্পিনার রাখার চেষ্টা করি। কিন্ত কখনো বিভাগগুলো  খেলাতে চায় না। আসলে এবারও বিসিবি কড়াকড়ি করেছে। কিন্ত বিভাগগুলোকে আনুষ্ঠানিক চিঠি না দেয়ায় তারা তা আমলে নেয়নি। তবে এখন আমি যতটা জানি বিসিবি  থেকে চিঠি দিয়ে বলা হয়েছে  যেন তারা লেগ স্পিনার  খেলায়। আর  কোচদেরতো সুযোগ আছে আত্মপক্ষ সমর্থন করার। তা তারা করবে।’
এছাড়াও রিশাদ না খেললেও রংপুর দলে   খেলেছেন আরেক লেগ স্পিনার তানভির হায়দার। তারপরও লেগ স্পিনার না  খেলানোর জন্য শাস্তি  পেয়ে কোচ রাজন বিব্রত। তিনি বলেন, ‘আসলে আমি এই বিষয়ে আর  কোনো মন্তব্য করতে চাই না। আমার দলেতো  লেগ স্পিনার তানভির হায়দারকে খেলানো হয়েছে। শুধু রিশাদের বিষয়টা বলবো একটা ভুলবুঝাবুঝি রয়ে  গেছে।’
অন্যদিকে  লেগ স্পিনার না  খেলানোর কারণে বরখাস্ত হয়েছেন ঢাকা বিভাগের  কোচ জাহাঙ্গীর আলমও। কিন্তু এখন পর্যন্ত বিসিবি’র কারণ দর্শানোর জবাব দেননি তিনি। কবে জবাব দিবেন তা নিয়ে জাতীয় দলের সাবেক ওপেনার জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ‘দ্বিতীয় রাউন্ড শেষ হয়েছে। আমি আমার দলের সিনিয়র ক্রিকেটারসহ সবার সঙ্গে আলাপ করেই রিপোর্ট জমা দিবো। আমিতো আগেই বলেছি, আমার আসলে কিছু করার ছিল না।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর