× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার মন ভালো করা খবরসাউথ এশিয়ান গেমস- ২০১৯
ঢাকা, ১১ ডিসেম্বর ২০১৯, বুধবার

আন্দোলন থেকে সরে আসার আহ্বান শিক্ষামন্ত্রীর

দেশ বিদেশ

স্টাফ রিপোর্টার | ২৩ অক্টোবর ২০১৯, বুধবার, ৯:১১

এমপিও ভুক্তির দাবিতে ৮ দিন ধরে আন্দোলন করে যাচ্ছেন নন এমপিও শিক্ষকরা। শিক্ষকদের সঙ্গে বৈঠকে বসেছিলেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। সেই আলোচনায় অসন্তুষ্ট হন তারা। এরপর ২দিন যাবত আমরণ অনশন পালন করে আসছেন তারা। আজ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নতুন এমপিও ভুক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ষোঘণা দেবেন। সেইসঙ্গে জানাবেন কোন পদ্ধতি, কোন মানদণ্ডে এসব প্রতিষ্ঠানকে এমপিও দেয়া হয়েছে। আর গতকাল আন্দোলনরত শিক্ষকদের আন্দোলন স্থগিত করে নিজ নিজ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ফিরে যাবার আহ্বান জানান  তিনি। গতকাল রাজধানীর আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইন্সটিটিউটে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় এই আহ্বান জানান শিক্ষামন্ত্রী।
তিনি বলেন, অনেকেই দীর্ঘদিন ধরে শিক্ষকতা করেন। সঠিক বেতন পান না। তাদের প্রতি আমাদের সহমর্মিতা আছে। এবারের এমপিও ভুক্তি নীতিমালা অনুসরণ করা হয়েছে। এই চলমান প্রক্রিয়ার মধ্যে নীতিমালা পরিবর্তন করা যায় না। এবারে যোগ্য নির্বাচিত সকল প্রতিষ্ঠান এমপিও ভুক্তির আওতায় পড়বে। আমরা এখন থেকে চেষ্টা করবো প্রতি বছর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকে এমপিও ভুক্তির আওতায় আনতে। আন্দোলনরত শিক্ষকদের বলা হয়েছে পরের বার আপনাদের প্রতিষ্ঠান এমপিও ভুক্তি সুযোগ পাবে। নীতিমালা সংশোধনের সময় আপনাদেরও রাখা হবে। শিক্ষামন্ত্রী আরো বলেন, তাদের সঙ্গে আমরা বসেছি, বুঝেয়েছি। আমি আশা করেছিলাম তারা আন্দোলন স্থগিত করবেন। আন্দোলনরত শিক্ষকদের প্রতি অনুরোধ করতে চাই আপনারা আন্দোলন থেকে সরে আসেন। বেসরকারি বিদ্যালয়ের যোগ্যতা অনুযায়ী এমপিও করা হয়েছে। স্বীকৃতি পাওয়া প্রতিষ্ঠান মানেই এমপিও’র জন্য যোগ্যতা নয়। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যদি প্রয়োজনীয় শিক্ষক, ভবন, পাসের হার ঠিক না থাকে তাকে এমপিও ভুক্ত করা যায় না। তিনি আরো বলেন, বিদ্যালয়গুলোতে মনিটরিং করা হবে নিয়মিত। মনিটরিংয়ে উত্তীর্ণ না হতে পারলে কেড়ে নেয়া হবে এমপিও। এই মনিটরিংয়ের আওতায় পড়বে নতুন পুরাতন সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। শিক্ষামন্ত্রী বলেন, জুন মাসে বেসরকারি বিদ্যালয়ে এমপিও ভুক্তির তালিকা প্রকাশ করবার কথা ছিলো। আমরা সুচারুভাবে করবার চেষ্টা করেছি। এই জন্যই দেরি হয়েছে। আগামীকাল (আজ) প্রধানমন্ত্রী গণভবনে এই এমপিও ভুক্তির ঘোষণা দেবেন। গতবার এমপিও ভুক্তি হয়েছিলো ১৬শ’ ২৪টি প্রতিষ্ঠান। এবার তার প্রায় দ্বিগুণ করা হচ্ছে। এই মতবিনিময় সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন, শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল চৌধুরী নওফেল ও শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শাখার  সিনিয়র সচিব সোহরাব হোসেন। এদিকে, শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনির আহ্বান উপেক্ষা করে আমরণ অনশন অব্যাহত রেখেছেন নন এমপিও আন্দোলনরত শিক্ষক-কর্মচারীরা। তারা একযোগে সব প্রতিষ্ঠানকে এমপিও দেয়া, ২০১৮ সালের নীতিমালা সংশোধন করে নতুন করে এমপিও আবেদন নেয়ার দাবি জানিয়েছে আসছেন। তারা বিষয়টি নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাতও চান। আন্দোলন নিয়ে নন এমপিও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান শিক্ষক-কর্মচারী ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ ড. বিনয় ভূষণ রায় বলেন, শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে তিনি নীতিমালার অসঙ্গতি রয়েছে এটা তিনি স্বীকার করেছেন। তিনি সংশোধনের কথা বলেছেন। তারপরেও পূর্বের নীতিমালায় এমপিওভুক্ত হচ্ছে। স্বীকার করবার পরেও পূর্বে নীতিমালায় এমপিও হওয়ায় আমরা শিক্ষামন্ত্রীর আহ্বানে সাড়া দেয়া হচ্ছে না। সূত্র জানায়, শিক্ষামন্ত্রী বিষয়টি নিয়ে আবারো আন্দোলনরত শিক্ষকদের সঙ্গে মঙ্গলবার রাতে বসার কথা রয়েছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর