× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার মন ভালো করা খবরসাউথ এশিয়ান গেমস- ২০১৯
ঢাকা, ১১ ডিসেম্বর ২০১৯, বুধবার

৯ বছর পর এমপিওভুক্তির ঘোষণা আজ

দেশ বিদেশ

স্টাফ রিপোর্টার | ২৩ অক্টোবর ২০১৯, বুধবার, ৯:১২

 দীর্ঘ ৯ বছর বন্ধ ছিলো এমপিও ভুক্তি। আজ সাড়ে ১১টায় গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নতুন ২ হাজার ৬২৭টি প্রতিষ্ঠানের এমপিওভুক্তির চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ করবেন। সেইসঙ্গে জানাবেন কোন পদ্ধতি, কোন মানদণ্ডে এসব প্রতিষ্ঠানকে এমপিও দেয়া হয়েছে। গতকাল আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইন্সিটিটিউটে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় এসব কথা বলেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।
ডা. দীপু মনি বৈঠকে বলেন, সর্বশেষ ২০১০ সালে ১৬শ’ ২৪টি প্রতিষ্ঠান এমপিও ভুক্ত হয়। তবে, এবার মাধ্যমিক, উচ্চ মাধ্যমিক, কারিগরি, মাদ্রাসা, বিএম, ভোকেশনালে কত প্রতিষ্ঠান এমপিওভূক্ত হচ্ছে তা জানালেও প্রায় দ্বিগুণ হবে বলে জানান। শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে জানা যায়, সর্বমোট ২ হাজার ৬২৭টি প্রতিষ্ঠান এমপিওভূক্ত হচ্ছে। এবারে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায় (স্কুল-কলেজ) ১ হাজার ৫৪৮টি এবং কারিগরি ও মাদ্রাসা বিভাগে ১ হাজার ৭৯টি প্রতিষ্ঠান এমপিও’র আওতায় আসছে। কারিগরি ও মাদ্রাসা বিভাগে এমপিওর জন্য অনুমোদন পাওয়া শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের তালিকায় আছে মাদ্রাসা দাখিল স্তরে ৩৫৯টি, আলিমে ১২৭ টি, ফাজিল ৪২টি এবং কামিল স্তরে ২৯টি।
মোট ৫৫৭টি মাদ্রাসা এমপিওভূক্তির জন্য চূড়ান্ত হয়েছে। কারিগরিতে কৃষি ৬২টি, ভোকেশনাল ৪৮টি এবং ভোকেশনাল সংযুক্ত ১২৯টি প্রতিষ্ঠান রয়েছেন। এছাড়াও এইচএসসি বিএম প্রতিষ্ঠান স্বতন্ত্র ১৭৫টি, বিএম সংযুক্ত ১০৮টি প্রতিষ্ঠান এই তালিকায় রয়েছে। মন্ত্রণালয়ের এক সূত্র জানায়, সারা দেশের ৮৫টি উপজেলার একটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানও এমপিওভুক্তির যোগ্যতা অর্জন করতে পারেনি। তবে সমতার স্বার্থে এসব উপজেলায় এমপিওভুক্তির ক্ষেত্রে শিক্ষা অনগ্রসর, ভৌগোলিকভাবে অসুবিধাজনক, পাহাড়ি, হাওর-বাওড়, চরাঞ্চল, নারী শিক্ষা, সামাজিকভাবে অনগ্রসর গোষ্ঠী, প্রতিবন্ধী, বিশেষায়িত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে বিশেষ বিবেচনায় শর্ত শিথিল করা হয়েছে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান শিক্ষার্থীর সংখ্যা ন্যূনতম ১শ’ জন এবং কমপক্ষে ২ বছরের স্বীকৃতি থাকার বিষয় বিবেচনায় নেয়া হয়েছে। বাদপড়া প্রতিটি উপজেলা/থানা থেকে ৬১টি প্রতিষ্ঠান নির্বাচন করা হয়েছে। এ ছাড়া দেশের দুর্গম ও পার্বত্য এলাকা, পাহাড়ি, হাওর-বাওড়, চরাঞ্চল এবং উপকূলীয় এলাকায় এমপিওভুক্তির জন্য প্রয়োজনীয় যোগ্যতা অর্জন করতে পারেনি, এমন ৫৭টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকে তালিকাভুক্ত করা হয়েছে। এসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকে ছাত্রছাত্রীর সংখ্যা ৫শ’ জন বা তার বেশি এবং কমপক্ষে ২ বছরের স্বীকৃতি থাকার শর্ত পূরণ করতে হয়েছে। এছাড়াও বাদপড়া ৮৯টি উপজেলায় বিশেষ ব্যবস্থায় এমপিও ভুক্ত করার পরেও ২৯টি উপজেলা ও থানা বাদ থেকে যায়। এরপর এই ১২টি উপজেলার ৭টি থেকে কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের আওতাধীন প্রতিষ্ঠান বাছাই করা হয়েছে। এরপরও ৫টি উপজেলা ফাকা থেকে যায়। আর দেশের ২৩টি উপজেলা/থানা এলাকা থেকে এমপিওভুক্তির জন্য এ বছর কোনো আবেদনই পাওয়া যায়নি।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর