× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ১৮ নভেম্বর ২০১৯, সোমবার

শেরপুরে নিখোঁজের ৫ দিন পর স্কুলছাত্রের লাশ উদ্ধার, গ্রেপ্তার ৩

বাংলারজমিন

শেরপুর প্রতিনিধি | ৭ নভেম্বর ২০১৯, বৃহস্পতিবার, ৮:৫৯

শেরপুরের নালিতাবাড়ীতে খেলার মাঠ থেকে নিখোঁজের ৫ দিন পর পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থী আকিব ইসলাম খান অমির (১২) অর্ধগলিত বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ৬ই নভেম্বর বুধবার দুপুরে কালিনগর বাইপাস এলাকার বাড়ির কাছাকাছি এক ধানক্ষেত থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়। অমি স্থানীয় আব্দুর রউফ খানের ছেলে। এ ঘটনায় নিহত অমির বাবা বাদী হয়ে ৪ জনের নামে ও অজ্ঞাত আরো ৪ জনকে আসামি করে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। ওই মামলায় এজাহারনামীয় ৩ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এরা হচ্ছে- স্থানীয় বিল্লাল হোসেনের ছেলে রাকিব (২৩), ভাগ্নে জসিম মিয়া (২৭) ও সিয়াম (১৯)। এছাড়া জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আরো ৫ জনকে আটক করা হয়েছে। অন্যদিকে চাঞ্চল্যকর এ ঘটনায় স্কুলছাত্রের লাশ উদ্ধারের পরপরই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন শেরপুরের পুলিশ সুপার কাজী আশরাফুল আজীমসহ অন্য ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।
নালিতাবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বছির আহমেদ বাদল জানান, গত ২রা নভেম্বর শনিবার বিকালে বাড়ির কাছেই নাজমুল স্মৃতি সরকারি কলেজ মাঠে খেলার সাথীদের সঙ্গে খেলতে গিয়ে নিখোঁজ হয় স্থানীয় শাহীন স্কুলের পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থী অমি। পরে তার সন্ধান চেয়ে নালিতাবাড়ীসহ বিভিন্ন স্থানে মাইকিংসহ থানায় সাধারণ ডায়েরি করা হয়। এরপর প্রতিনিয়ত তৎপর থাকে থানা পুলিশ। কিন্তু গত ৪ দিনেও তার সন্ধান মেলেনি। একপর্যায়ে অমির পরিবারের পক্ষ থেকে বেশ কিছু তথ্য পুলিশকে দিলে মঙ্গলবার রাতে কালিনগর এলাকা থেকে সন্দেহভাজন হিসেবে স্থানীয় রাকিব, ভাগ্নে জসিম ও সিয়াম নামে ৩ জনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়। পরে তাদের দেয়া তথ্য মতে, বুধবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে অমির বাড়ির কাছাকাছি একটি ধানক্ষেত থেকে অর্ধগলিত বস্তাবন্দি অবস্থায় অমির লাশ উদ্ধার হয়।
 
স্থানীয় সূত্র জানায়, এর আগে ২০১৬ সালের ২৬শে মার্চ অমির বড় ভাই বর্তমানে শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী গোলাম রাব্বী খান জেনিথকে ক্রিকেট খেলা নিয়ে দ্বন্দ্বে ক্ষুর দিয়ে মারাত্মক জখম করে একই এলাকার রাকিব (বর্তমানে গ্রেপ্তার) ও হৃদয় নামে ২ যুবক। ক্ষুরাঘাতের ঘটনায় চার্জশিট দাখিলের পর মামলাটি বিচারাধীন রয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, পূর্বের ঘটনার জেরে অমিকে অপহরণের পর পরিকল্পিতভাবে হত্যা করে লাশ গুমের চেষ্টা করা হয়েছে।
এ ব্যাপারে সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (নালিতাবাড়ী সার্কেল) জাহাঙ্গীর আলম জানান, স্কুলছাত্র অমি হত্যার ঘটনায় থানায় নিয়মিত মামলা রুজু হয়েছে। ইতিমধ্যে এজাহারনামীয় ৩ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য অমির লাশ জেলা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। অন্যদের গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে। অপর এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, লাশ যেভাবে ফুলে উঠেছে তাতে ধারণা করা হচ্ছে ঘটনার দিনই তাকে হত্যা করে লাশ বস্তাবন্দি করে ধানক্ষেতে ফেলে রাখা হয়েছে।
 

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর