× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার মন ভালো করা খবরসাউথ এশিয়ান গেমস- ২০১৯
ঢাকা, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯, শনিবার
আলাপন

‘কাজটি আমার জন্য চ্যালেঞ্জের ছিলো’

বিনোদন

এন আই বুলবুল | ১৬ নভেম্বর ২০১৯, শনিবার, ১১:৩৯

ছোট পর্দার একসময়ের জনপ্রিয় অভিনেত্রী তনিমা হামিদ। প্রায় চার বছর পর এ অভিনেত্রী টেলিভিশনের পর্দায় ফিরেছেন। তবে কোনো নাটক-টেলিছবির মধ্য দিয়ে নয়। উপস্থাপনার মাধ্যমে তনিমার কামব্যাক হলো। মাছরাঙা টিভিতে প্রচার হচ্ছে তার উপস্থাপনায় ‘নানা স্বাধে রাধুনী’ শিরোনামের একটি অনুষ্ঠান। নতুন করে ফেরা প্রসঙ্গে তনিমার ভাষ্য, অনেক দিন টেলিভিশনের পর্দা থেকে দূরে ছিলাম। তাই এই কাজটি আমার জন্য চ্যালেঞ্জের ছিলো। অবশেষে ভালো একটি কাজের মধ্য দিয়ে দর্শকদের মাঝে ফিরেছি তাই ভালো লাগছে।
বাংলাদেশ টেলিভিশন ও প্যাকেজ নাটকে দাপটের সঙ্গে অভিনয় করে দর্শক হৃদয়ে আসন তৈরি করেছেন এই অভিনেত্রী। তনিমা হামিদ সর্বশেষ ২০১৫ সালে একটি টিভি নাটকে অভিনয় করেছেন বলে জানান। নানা রকম বৈচিত্রময় চরিত্রে দেখা গেছে তাকে। তার অভিনীত ‘খোঁজ’, ‘দায়বন্ধন’, ‘বগুড়ার স্যার’, ‘টমটম’, ‘শিল্পী’, ‘দৈনিক তোলপাড়’ নাটকগুলো দর্শকের মধ্যে দারুণ সাড়া ফেলে। আবার টিভি নাটকে কি ফিরবেন? ফিরলেও সেটা কবে? উত্তরে তিনি বলেন, কবে টিভি নাটকে ফিরবো তা বলা মুশকিল। কারণ, আগে যেভাবে কাজ করেছি এখন সেটি সম্ভব নয়। তখন স্টুডেন্ট ছিলাম, হাতে সময় ছিল কাজ করার। সেই সময় এখন আর নেই। এমনিতে মাঝে মধ্যে অনেক নির্মাতা সিরিয়ালের জন্য বলছেন, তা বিনয়ের সঙ্গে ফিরিয়ে দিয়েছি। কারণ সিরিয়ালে কাজ করার মতো সময় নেই। তবে ভালো গল্পের খন্ড নাটক হলে এবং সহশিল্পী, পরিচালকসহ সব বিষয় যদি আমার চিন্তা-ভাবনার সঙ্গে মিলে তাহলেই কাজ করবো। টিভি নাটকে না থাকলেও মঞ্চে এ অভিনেত্রী সরব আছেন। মঞ্চে তার ‘একা এক নারী’ নাটকটি নিয়মিত প্রদর্শন চলছে। নাটকটি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, দারিও ফো এবং ফ্রাংকা রামের লেখা নাটক ‘এ উইমেন অ্যালোন’ বাংলায় নামকরণ করা হয়েছে ‘একা এক নারী’। একজন নারীর জীবন সংগ্রামের চিত্র এই নাটক। এ ছাড়াও নতুন নাটকের পরিকল্পনা করছি। দর্শকের কাছে বর্তমানে মঞ্চ নাটকের চাহিদা কেমন? এই প্রশ্নের উত্তরে মঞ্চের এ দাপুটে অভিনেত্রী বলেন, এখন অনেক ভালো ভালো মঞ্চ নাটক হচ্ছে। তবে মঞ্চ নাটকের প্রচার-প্রচারণা নেই। টিভি নাটকের জন্য প্রিন্ট ও অনলাইন মিডিয়াগুলো যে ভাবে সাপোর্ট দেয় সেটি মঞ্চকর্মীরা পান না। যার কারণে ভালো মঞ্চ নাটকগুলো সম্পর্কে দর্শক জানেন না। প্রচারের অভাবে তাই মঞ্চ নাটকের নতুন দর্শক তৈরি হচ্ছে না। মঞ্চ নাটকের বাইরে তনিমার ব্যস্ততা কি নিয়ে? এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে তিনি বলেন, মঞ্চের কাজ ছাড়া সংসার সামলাচ্ছি। পাশাপাশি বেসরকারি একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রভাষক হিসেবে কর্মরত আছি। এসব নিয়েই ব্যস্ত থাকতে হয়। অনেক শিল্পী আজকাল ক্যামেরার পিছনে কাজ করছেন। তনিমার কি নাটক-সিনেমা নির্মাণের পরিকল্পনা আছে? উত্তরে তিনি বলেন, আমি কোনো সিনেমায় অভিনয় করিনি। এ মুহূর্তে চলচ্চিত্রে অভিনয় করারও ইচ্ছে নেই। কিন্তু ইচ্ছে আছে চলচ্চিত্র নির্মাণের। ভালো গল্প এবং ভালো শিল্পী নিয়েই কাজ করব। তবে সেটি এখনই নয়। তবে নাটক নির্দেশনা দেয়ার ইচ্ছে নেই। যতটুকু সময় হাতে থাকে আমি মঞ্চ নিয়েই কাজ করতে চাই। আলাপনে এই অভিনেত্রী বর্তমান সময়ের নাটক ও নতুন প্রজন্মের শিল্পীদের নিয়েও কথা বলেন। তিনি বলেন, এই সময়ে খুব বেশি টিভি দেখার সময় পাই না। যার কারণে নতুন প্রজন্মের শিল্পীদের বিষয়ে আমার ভালো জানা নেই। মাঝে মধ্যে দুই একজনের নাটক চোখে পড়ে। আমি মনে করি, যারা অভিনয় করছেন তাদের কাজের প্রতি ভালোবাসা থাকা প্রয়োজন। একজন শিল্পী তার কাজের মধ্যে দিয়েই দর্শকের কাছে বেঁচে থাকেন। ভালো গল্প ও চরিত্রে অভিনয় করতে না পারলে তারা হারিয়ে যাবে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর