× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার মন ভালো করা খবরসাউথ এশিয়ান গেমস- ২০১৯
ঢাকা, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯, শনিবার

দ্বিতীয় দিনেও সুরের মূর্ছনায় মুগ্ধ দর্শক

বিনোদন

স্টাফ রিপোর্টার | ১৭ নভেম্বর ২০১৯, রবিবার, ৮:০৯

সান ফাউন্ডেশনের আয়োজনে লোক সংগীতের মহা উৎসব ‘ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ফোক ফেস্ট’ শেষ হয়েছে গতকাল। শেষদিন গতকাল সংগীত পরিবেশন করেন বাংলাদেশের মালেক কাওয়াল ও চন্দনা মজুমদার, রাশিয়ার সাতুমা এবং পাকিস্তানের ব্যান্ড জুনুন। অন্যদিকে শুক্রবার উৎসবের দ্বিতীয় দিনও দেশ-বিদেশের লোকসংগীত শিল্পীদের সুরের মূর্ছনায় মুগ্ধ ছিলো রাজধানীর আর্মি স্টেডিয়ামের দর্শক। দ্বিতীয় দিন শুরুতেই মঞ্চে আসেন শিল্পী শফিকুল ইসলাম। মন মজালে ওরে বাউলা গান, বন্ধু তুমি কই গেলা, কী সুন্দর এক গানের পাখি গানগুলো গেয়ে শোনান শফিকুল। এরপর সন্ধ্যা ৬টা ৩০ মিনিটের দিকে মঞ্চে আসেন লোকগানের শিল্পী কামরুজ্জামান রাব্বি। ‘তাকদুম তাকদুম বাজাই’ গান দিয়ে শুরু করেন তার পরিবেশনা। এরপর ভাব আছে যার গায়, একখান পান চাইলাম পান দিলে নাহ, আমি তো ভালা না, আগে কি সুন্দর দিন কাটাইতাম- গানগুলো পরিবেশন করে দর্শক-শ্রোতাদের মাতান তিনি।
তারপর আসেন বাংলাদেশের লোক গানের গায়ক কাজল দেওয়ান। মঞ্চে তিনি গেয়ে শোনান- দিন ফুরাইলেই ভাইঙ্গা যাইবো এই রঙ্গের মেলা, পিরিতের বাজার ভালো না, আমায় এত দুঃখ দিলি বন্ধু রে বন্ধু, আমি তোর পিরিতের দিওয়ানা রে দিওয়ানা গানগুলো। রাত ৮টা ২০ মিনিটে মঞ্চে উঠেন মালিয়ান লোকসংগীতের কিংবদন্তি শিল্পী হাবিব কইটে।

একের পর এক মালিয়ান গানে মুগ্ধ করেন তিনি। গান গাওয়ার মাঝে বাংলাদেশকে ধন্যবাদ দিয়েছেন বারবার। রাত ৯টা ৩৫ মিনিটে মঞ্চে আসেন বাংলাদেশের স্বনামধন্য লোকসংগীতশিল্পী ফকির শাহাবুদ্দিন। আল্লাহ্‌ বলো মনরে পাখি, একদিন মাটির ভেতরে হবে ঘর, দে দে পাল তুলে দে’সহ বেশ কিছু গানে আর্মি স্টেডিয়ামের দর্শকদের মাতিয়ে রাখেন তিনি। ফোক ফেস্টের দ্বিতীয় দিনের প্রধান চমক ছিলেন পাকিস্তানের গায়িকা হিনা নাসরুল্লাহ। প্রথমেই কণ্ঠে তোলেন সুবহান আল্লাহ্‌, সুবহান আল্লাহ্‌ সুফি গানের সুর। এরপর  গেয়ে শোনান ইয়া রাসূল আল্লাহ্‌, ইয়া হাবিব আল্লাহ্‌। এরপর আরো বেশ কয়েকটি গানে মুগ্ধ করেন তিনি। প্রসঙ্গত, বাংলাদেশসহ ছয় দেশের দুই শতাধিক শিল্পী অংশ নিয়েছেন এবারের উৎসবে। উৎসবটি সরাসরি সম্প্রচার করে মাছরাঙা টেলিভিশন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর