× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার মন ভালো করা খবরসাউথ এশিয়ান গেমস- ২০১৯
ঢাকা, ১২ ডিসেম্বর ২০১৯, বৃহস্পতিবার

আনসার আল ইসলামের ছয় সদস্য গ্রেপ্তার ‘লোন উলফ’ হামলার পরিকল্পনা ছিল

দেশ বিদেশ

স্টাফ রিপোর্টার | ১৭ নভেম্বর ২০১৯, রবিবার, ৮:৪৭

নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন আনসার আল ইসলামের ছয় সক্রিয় সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)। শুক্রবার দিবাগত রাতে ঢাকার উত্তরা, গাজীপুর ও সাতক্ষীরার শ্যামনগর এলাকায় পৃথক অভিযান চালিয়ে আনসার আল ইসলামের ছয় সক্রিয় সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব-৪ এর একটি টিম। আটককৃতরা হলেন, শফিকুল ইসলাম ওরফে সালমান মুক্তাদির (২১), ইলিয়াস হাওলাদার ওরফে খাত্তাব (৩২), ইকরামুল ইসলাম ওরফে আমীর হামজা (২১), আমীর হোসাইন (২৬), মিপন মীর ওরফে আব্দুর রব (৩৩) ও ওয়ালি উল্লাহ ওরফে আব্দুর রহমান (২৫)। গ্রেপ্তারের সময় তাদের কাছ থেকে বিপুল পরিমাণ উগ্রবাদী বই, মোবাইল, ল্যাপটপ ও জঙ্গিবাদী ট্রেনিংসহ বিভিন্ন কনটেন্ট জব্দ করা হয়। গতকাল দুপুরে রাজধানীর কারওয়ান বাজারে র‌্যাব মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা জানান র‌্যাব-৪ অধিনায়ক পুলিশের অতিরিক্ত ডিআইজি মো. মোজাম্মেল হক। র‌্যাব জানায়, আনসার আল ইসলামের সদস্যরা গোপন অ্যাপসের মাধ্যমে নিজেদের মধ্যে যোগাযোগ করে। বড় কোনো পরিকল্পনা ছাড়া তারা একসঙ্গে মিলিত হয় না। নিজেদের মধ্যে পরিচিত না হয়েই তারা কাটআউট পদ্ধতিতে চলাচল করে সাংগঠিন কার্যক্রম পরিচালনা করে।
সম্প্রতি ‘লোন উলফ’ হামলার পরিকল্পনা করার জন্য উত্তরা এলাকায় কয়েকজন সদস্য একসঙ্গে মিলিত হয়েছিল। খবর পেয়ে র‌্যাব তাদের পরিকল্পনা বাস্তবায়নের আগেই সবকিছু ভন্ডুল করে দিয়েছে। র‌্যাব-৪ অধিনায়ক মোজাম্মেল হক বলেন, আটক ছয়জনই দীর্ঘদিন ধরে আনসার আল ইসলামের সঙ্গে সক্রিয় ছিল। তারা গণতান্ত্রিক শাসন ব্যবস্থার বিপক্ষে অবস্থান করছিলো। যেকোনো মূল্যে তারা ইসলামী খেলাফত প্রতিষ্ঠা করতে চায়। তাদের এই পরিকল্পনা বাস্তবায়নে যারা বাধার সৃষ্টি করে তাদেরকেই শায়েস্তা করতে চায়। তিনি বলেন, নিষিদ্ধ এই সংগঠনটি দুধরনের কাজ করে থাকে। প্রথমে তারা মোটিভেশনাল কার্যক্রমের মাধ্যমে দলে সদস্য সংগ্রহ করে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ভিত্তিক তারা কার্যক্রম পরিচালনা করে। এছাড়া যারা সরাসরি ইসলামী রাজনীতির বিপক্ষে বা যারা ‘নাস্তিক’ তাদের বিরুদ্ধে তারা কঠোর অবস্থান নেয়। র‌্যাব অধিনায়ক বলেন, আনসার আল ইসলামের সদস্যরা টার্গেটকৃত ব্যক্তিকে আগ্নেয়াস্ত্র দিয়ে হামলা না করে চাপাতি ব্যবহার করে। তারা সবসময় বড় পরিকল্পনার বাস্তবায়নের জন্য বৈঠক করে। তা না হলে তারা গোপণ অ্যাপসে যোগাযোগ রাখে। তবে এই সদস্যরা ঠিক কোথায় হামলার পরিকল্পনা করেছিলো সেটি এখন জানা যায়নি।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর