× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার মন ভালো করা খবরসাউথ এশিয়ান গেমস- ২০১৯
ঢাকা, ১২ ডিসেম্বর ২০১৯, বৃহস্পতিবার

কঠিন লড়াইয়ে গোটাবাইয়া-প্রেমাদাসা, দিনশেষে ঘোষণা হবে বিজয়ীর নাম

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ১৭ নভেম্বর ২০১৯, রবিবার, ৯:৫২

শনিবার শ্রীলঙ্কায় অনুষ্ঠিত প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে কঠিন লড়াইয়ে রয়েছেন সাবেক প্রতিরক্ষামন্ত্রী গোটাবাইয়া রাজাপাকসে এবং ক্ষমতাসীন সরকারের মন্ত্রী সাজিথ প্রেমাদাসা। বার্তা সংস্থা রয়টার্স বলছে, রোববার প্রাথমিক ফলাফলে দেখা যাচ্ছে তাদের মধ্যে তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতা হচ্ছে। ভয়াবহ সন্ত্রাসী হামলায় কমপক্ষে ২৫০ জন মানুষ নিহত হওয়ার পর অনুষ্ঠিত হয় এই নির্বাচন। ১৫ বছরের বেশি সময় দেশটির অর্থনীতির অবনমন হয়েছে। এ বছরে আত্মঘাতী হামলার পর সেখানে বিনিয়োগে আস্থা নষ্ট হয়েছে বিনিয়োগকারীদের।

এতে পর্যটন খাতও ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এখানে ১০ বছর আগে তামিল বিদ্রোহীদের সঙ্গে গৃহযুদ্ধ হয়েছে সরকারের। সেই যুদ্ধে তামিলদের পরাজিত করে সেনাবাহিনী, যদিও এ নিয়ে মানবাধিকার লঙ্ঘনের ভয়াবহ অভিযোগ আছে।
ওই সময় প্রতিরক্ষামন্ত্রী ছিলেন গোটাবাইয়া রাজাপাকসে। তিনি পূর্ব অভিজ্ঞতাকে ব্যবহার করে শক্তিশালী নেতৃত্বের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। বলেছেন, দেশের প্রায় দুই কোটি ২০ লাখ মানুষের জীবনকে নিরাপদ করবেন তিনি। নাগরিকদের বেশির ভাগই সিনহলিজ বৌদ্ধ। রোববার সকালের দিকে পাওয়া ফলাফলে দেখা যাচ্ছে দেশের দক্ষিণাঞ্চলে সিনহলিজ বৌদ্ধ অধ্যুষিত এলাকায় প্রাধান্য বিস্তার করে আছেন গোটাবাইয়া রাজাপাকসে। নির্বাচনে তার প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী ক্ষমতাসীন সরকারের মন্ত্রী সাজিথ প্রেমাদাসা। তিনি এগিয়ে আছেন দেশের উত্তরাঞ্চলে। এ এলাকাটি সংখ্যালঘু তামিল অধ্যুষিত। দেশটির নির্বাচন কমিশন বলেছে, তারা আশা করছেন আজ রোববার দিন শেষে ফল পরিষ্কার হতে পারে। ঘোষণা করা হতে পারে নির্বাচিত প্রার্থীর নাম। স্বল্প সময়ের মধ্যে নতুন প্রেসিডেন্টের শপথ হবে।

তামিল রাজনৈতিক দলগুলো কঠোরভাবে বিরোধিতা করছে রাজাপাকসের। কারণ, ২০০৯ সালে গৃহযুদ্ধের সময় প্রতিরক্ষা মন্ত্রী থাকা অবস্থায় গোটাবাইয়া রাজাপাকসে ভয়াবহ মানবাধিকার লঙ্ঘন করেছেন বলে তাদের অভিযোগ। বলা হয়, ওই সময় অকাতরে তার সেনাবাহিনী বেসামরিক তামিল লোকজনকে হত্যা করেছে। গোটাবাইয়া রাজাপাকসে ও তার ভাই মাহিন্দ রাজাপাকসে এসব অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করেছেন। অন্যদিকে অন্য বৃহৎ সংখ্যালঘু গ্রুপের মধ্যে রয়েছেন মুসলিমরা। তারাও এপ্রিলে ইস্টার সানডে’তে আত্মঘাতী হামলার পর  থেকে ভয়াবহ এক শত্রুতামুলক পরিস্থিতি মোকাবিলা করছেন। ওই হামলার দায় স্বীকার করেছে জঙ্গি গোষ্ঠী আইএস।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর