× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার মন ভালো করা খবরসাউথ এশিয়ান গেমস- ২০১৯
ঢাকা, ৮ ডিসেম্বর ২০১৯, রবিবার

ধামরাইয়ে ভেকু দিয়ে মাটি কাটায় ঝুঁকির মুখে বিদ্যুতের খুঁটি

বাংলারজমিন

ধামরাই (ঢাকা) প্রতিনিধি | ১৯ নভেম্বর ২০১৯, মঙ্গলবার, ৮:২১

ঢাকার ধামরাইয়ে ইটভাটার মৌসুম শুরু হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে শুরু হয়েছে বিভিন্ন স্থানে মাটি লুট। মাটি ব্যবসায়ীরা যন্ত্রদানব ভেকু দিয়ে বিভিন্ন ফসলি জমির মাটি কেটে নিচ্ছে। এতে ভাড়ারিয়া ইউনিয়নে বিদ্যুতের খুঁটির পাশ থেকে মাটি কাটায় চরম হুমকির মুখে পড়েছে ১১ হাজার ভোল্টের তার টানানো কয়েকটি খুঁটি। জানা গেছে, ধামরাইয়ে প্রায় ২ শতাধিক ইটভাটা রয়েছে। যা ইতিমধ্যে ইট বানানো ও পোড়ানোর কাজ শুরু করেছে। এসব ইটভাটায় চড়া মূল্যে মাটি বিক্রির জন্য ধামরাই ভাড়ারিয়া ইউনিয়নের ভাড়ারিয়া গ্রামের আইতাল হক ও তার ছেলে হিরা তাদের বাড়ির সামনে থেকে যন্ত্রদানব ভেকু দিয়ে মাটি কেটে নিচ্ছে। এতে ট্রান্সফরমারসহ দুটি বিদ্যুতের খুঁটি ঝুঁকির মুখে পড়েছে। যেকোনো সময় খুঁটির গোড়ায় মাটি না থাকায় তা ধসে প্রাণনাশ হতে পারে।
বিষয়টি স্থানীয়রা ধামরাই পল্লীবিদ্যুৎ অফিস কর্র্তৃপক্ষকে জানিয়েছেন বলে জানা গেছে। ভাড়ারিয়া ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও ব্যবসায়ী মো. আবুল কালাম আজাদ সাংবাদিকদের জানান, কয়েকটি বিদ্যুতের খুঁটি হুমকির মুখে পড়বে বলে বার বার নিষেধ করার পরও মাটি কাটছেন আইতাল হক ও তার ছেলে হিরা। গ্রামবাসীদের বাধার মুখে মাটি কাটায় আজ খুঁটিগুলো ঝুঁকিতে। তাদের বিরুদ্ধে বিদ্যুৎ অফিসের পক্ষ থেকে তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া উচিত বলে দাবি করেন তিনি। এ ব্যাপারে মাটি ব্যবসায়ী হিরা পত্রিকায় সংবাদটি না প্রকাশ করার অনুরোধ করে বলেন, প্রয়োজনে বিদ্যুতের খুঁটির স্থানটি ভরাট করে দেয়া হবে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর