× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার মন ভালো করা খবরসাউথ এশিয়ান গেমস- ২০১৯
ঢাকা, ৮ ডিসেম্বর ২০১৯, রবিবার

দলবদলের মতো মাঠেও চমক দেখাতে চায় পুলিশ

খেলা

স্পোর্টস রিপোর্টার | ২০ নভেম্বর ২০১৯, বুধবার, ৯:০২

ফুটবলের দলবদলে আগের সেই জৌলুস নেই। ক্লাবের কোনো এক কর্মকর্তা রেজিস্ট্রেশন ফরমগুলো ফেডারেশনের জমা দিয়েই কাজ সারেন। এসবের ব্যত্যয় ঘটিয়েছে বাংলাদেশ পুলিশ অ্যাথলেটিক ক্লাব। মোটর শোভাযাত্রা নিয়েই দলবদল সেরেছে নবাগত ক্লাবটি। ক্যাসিনো-কাণ্ডে বিপর্যস্ত মোহামেডানও ঘটা করে দলবদল কার্যক্রমে অংশ নিয়েছে। আর বসুন্ধরা কিংস, শেখ রাসেল, সাইফ স্পোর্টিং ক্লাব তাদের কাজ সারে গতকাল।
ক্যাসিনো ঝড়ের পর মুখ থুবড়ে পড়েছিল ঐতিহ্যবাহী ক্লাব মোহামেডান। আসন্ন মৌসুমে দল গড়া নিয়েই সংশয় ছিল তাদের।  সেখান থেকে তাদের টেনে তুলেন সাবেক খেলোয়াড় ও কর্মকর্তারা। ক্লাবের সাবেক অতিরিক্ত সাধারণ সম্পাদক মোস্তাকুর রহমান বলেন ‘মোহামেডানকে কখনোই নিঃশেষ হয়ে যেতে দেয়া যায় না।
তাই সাবেক তারকা ফুটবলার ও কর্মকর্তারা একজোট হয়ে নতুনভাবে শুরু করলাম। আমরা চ্যাম্পিয়ন হওয়ার মতো দল গড়তে পারিনি। তবে ফাইট দেবো বড় দলগুলোর সঙ্গে।’ পরিচালক মঞ্জুর আলম মঞ্জু বলেন, ‘সকলের সহযোগিতায় দুর্যোগ কাটিয়ে আবার আমরা একত্রিত হয়েছি ক্লাবের স্বার্থে।’ মোহামেডানের সাবেক মিডফিল্ডার সৈয়দ রুম্মান বিন ওয়ালী সাব্বির বলেন, ‘দীর্ঘ দশ বছর পর আমি ফের ক্লাবের হয়ে দলবদল করতে এসেছি। ক্লাবের পুনর্জাগনের জন্যই।’ পাঁচ বিদেশিসহ ৩০ ফুটবলারকে নিবন্ধিত করে মোহামেডান। নতুন করে জেগে ওঠা সাদ-কালোদের নিয়ে আত্মবিশ্বাসী মোহামেডান সমর্থক দল ও মোহামেডান ফ্রেন্ডস।
শিরোপা অক্ষুণ্ন রাখতে এবারো বড় বাজেটে দল গড়েছে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন বসুন্ধরা কিংস। দলবদলের কার্যক্রমে অংশ নিয়ে ক্লাবটির  সভাপতি ইমরুল হাসান বলেন, ‘আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে যেনো এদেশের ফুটবল ছড়িয়ে যেতে পারে, আমরা সেভাবেই দল গড়েছি। এতে দেশের ফুটবলের ঐতিহ্য ফিরে আসবে। গত বছর রক্ষণভাগের দুর্বলতাগুলো কাটিয়ে ওঠার চেষ্টা করেছি আমরা। লীগে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার সুবাদে প্রথমবারের মতো এএফসি ক্লাব কাপে খেলার যোগ্যতা অর্জন করেছি। এসব মাথায় রেখেই আমরা দল সাজিয়েছি।’ পাঁচ বিদেশিসহ ৩১ ফুটবলারের নাম নিবন্ধন করেছে বসুন্ধরা কিংস। মোটর শোভাযাত্রা, সাজানো অশ্বারোহী এবং র‌্যালির মাধ্যমে দলবদল করেছে প্রথমবারের মতো এবারের প্রিমিয়ার লীগে খেলার যোগ্যতা অজর্ন করা বাংলাদেশ পুলিশ ফুটবল ক্লাব। এতেই রোমাঞ্চিত কর্মকর্তারা। পুলিশ ফুটবল ক্লাবের সভাপতি ও র‌্যাবের মহাপরিচালক ড. বেনজির আহমেদ বলেন, ‘আমাদের দীর্ঘদিনের স্বপ্ন বাস্তবে রুপ নিচ্ছে। পুলিশের সঙ্গে ক্রীড়াঙ্গণের সম্পর্ক বহুদিনের। ১৯৭২ সাল থেকে আমরা ফুটবল খেলছি। এছাড়াও অ্যাথলেটিকসেও অংশ নিচ্ছেন আমাদের অ্যাথলেটরা। আমি মনে করি, এই ফুটবলাররা দেশের দু’লাখ পুলিশের প্রতিনিধিত্ব করবেন।’ দলের ম্যানেজার শেখ মারুফ হাসান বলেন, ‘প্রিমিয়ার লীগে খেলার স্বপ্ন নিয়ে ২০১১ সালে ফুটবল দল গঠন করেছিলাম আমরা। সেই স্বপ্ন আজ বাস্তব হয়ে ধরা দিলো। আমরা ভালো খেলার প্রতিশ্রুতি দিচ্ছি।’ ৩৫ জনকে নিবন্ধিত করায় পুলিশ। এর মধ্যে পুলিশে চাকুরি করছেন এমন ফুটবলার ১৪ জন। ২৯ জনকে নিবন্ধনের মাধ্যমে দলবদল করেছে শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্র লিমিটেড। দল নিয়ে কোচ সাইফুল বারী টিটু বলেন, ‘গতবারের মতো এবারও চ্যাম্পিয়নের সঙ্গে ফাইট দেবো আমরা। সবাই প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ দল গড়েছে। এতে মাঠে দর্শকদের আগমনও বাড়বে।’ ক্লাবের ডিরেক্টর ইনচার্জ ইসমত জামিল আকন্দ লাভলু বলেন, ‘এবারের দলবদল ভিন্ন মাত্রা পেয়েছে। সব দলই ভালো মানের ফুটবলার এনেছে। তাই তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে।’

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর