× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ঢাকা সিটি নির্বাচন- ২০২০ষোলো আনা মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ২৮ জানুয়ারি ২০২০, মঙ্গলবার

চট্টগ্রামের ট্রাফিক সার্জেন্টরা পেলেন সাপ্তাহিক ছুটি

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার, চট্টগ্রাম থেকে | ৫ ডিসেম্বর ২০১৯, বৃহস্পতিবার, ৮:২৯

সড়কের শৃঙ্খলা রক্ষায় সাপ্তাহিক ছুটি ছাড়াই দিনের পর দিন দায়িত্ব পালন করে আসছেন চট্টগ্রাম মেট্টোপলিটন পুলিশের ট্রাফিক বিভাগের সার্জেন্ট ও অন্যান্য পদবির কর্মকর্তারা। কিন্তু দীর্ঘদিন পর সেই প্রথা ভেঙে এবার সাপ্তাহিক ছুটি পেলেন ট্রাফিক সার্জেন্টরা। সিএমপির কমিশনার মো. মাহাবুবর রহমান ট্রাফিক বিভাগে কর্মরত সার্জেন্ট ও টিএসআইদের জন্য প্রথমবারের মতো সাপ্তাহিক ছুটি বা ডে-অফ প্রথা চালুর আদেশ দিয়েছেন। যা চলতি সপ্তাহ থেকে বাস্তবায়ন করা হয়েছে। বুধবার সকালে সিএমপির অতিরিক্ত উপকমিশনার (জনসংযোগ) আবু বকর সিদ্দিক স্বাক্ষরিত গণমাধ্যমে পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।
প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, সিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার (ট্রাফিক) মোস্তাক আহম্মদ খানের উদ্যোগে সম্মতি দিয়ে পুলিশ কমিশনার সিএমপিতে প্রথমবারের মতো ট্রাফিক বিভাগের কর্মরত সার্জেন্ট, টিএসআইদের সাপ্তাহিক ছুটির আদলে ডে-অফ প্রথা চালু করেছেন। চলতি সপ্তাহ থেকে এই উদ্যোগ বাস্তবায়ন করা হয়েছে।
এতে আরো উল্লেখ করা হয়, ট্রাফিক পুলিশ বিভাগে ডে-অফ প্রথা চালু একটি যুগান্তকারী পদক্ষেপ। এখন থেকে সপ্তাহের শুক্রবার ও শনিবার পালাক্রমে সকল ট্রাফিক অফিসার তাদের পছন্দমতো যেকোনো একদিন ছুটি পাবেন। এ ব্যাপারে জানতে চাইলে সিএমপি কমিশনার মাহবুবর রহমান বলেন, ডে-অফ প্রথায় অফিসারদের মধ্যে ব্যাপক কর্মউদ্দীপনা সৃষ্টি হয়েছে।
ট্রাফিক কর্মকর্তারা পরিবারকে এবার সময় দেয়ার সুযোগ পাচ্ছে, যা আগে ছিল না। এতে কর্মরতদের মধ্যে একঘেয়েমিভাব দূর হয়ে কাজের প্রতি নতুন করে উদ্দীপনা পাবে।
ট্রাফিক বিভাগ সূত্র জানায়, আগে প্রত্যেক ট্রাফিক সার্জেন্ট, টিএসআইদের সপ্তাহের সাত দিনই নিয়ম মেনে ডিউটি পালন করতে হতো। ফলে পরিবারকে সময় দেয়ার কোনো সুযোগ তারা পেতো না। এতে ব্যক্তিগত পারিবারিক কাজকর্ম সম্পাদন বিঘ্নিত হতো। সাপ্তাহিক ছুটির পদক্ষেপে মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তারা আনন্দিত এবং উৎসাহিত হচ্ছেন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর